,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

দিনাজপুরে আত্মগোপনে থেকেও ইউপি নির্বাচনে বিএনপি নেতা বাদশার হ্যাট্রিক

badsha dinajpurbnr ad 250x70 1

মোঃ আরিফ জাওয়াদ, দিনাজপুর সংবাদদাতা, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ  দিনাজপুরের বহুল আলোচিত কর্ণাই সন্ত্রাস মামলার আসামি হওয়ার কারনে প্রায় আড়াই বছর আত্মগোপনে থেকে ও তৃতীয়বারের মতো সদর উপজেলার ১নং চেহেলগাজী ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে হ্যাট্রিক করেছেন বিএনপির প্রার্থী আনিছুর রহমান বাদশা।

৫ম দফায় অনুষ্ঠিত হওয়া ইউপি নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী আনিছুর রহমান বাদশা ২৮শে মে শনিবারের ইউপি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর চেয়ে বেশী ভোট পাওয়ায় নির্বাচিত হয় ।

রিটার্নিং কর্মকর্তা মঈনুল ইসলাম জানায়, বিএনপির প্রার্থী বাদশা তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর চেয়ে ৫৩৩ ভোট বেশি পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। “তিনি পেয়েছেন ১০ হাজার ৪৮৪ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের কাসেম আলী পেয়েছেন ৮ হাজার ৯৫১ ভোট।”

বাদশার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে ; তিনি বলেন, কর্ণাই সন্ত্রাস ও তাণ্ডবের ঘটনায় আমার কোনো রকম সম্পৃক্ততা ছিল না। “যেখানে আমার জন্ম, যেখানে আমি বড় হয়েছি, যে এলাকার মানুষের ভোটে এর আগে আমি দু’বার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছি। এবার তৃতীয় বারের মত এলাকাবাসী আমাকে নির্বাচিত করে প্রমান করেছে আমি কোন সন্ত্রাসী নয় ; আমি তাদের বিপদের বন্ধু। আমি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার।”

তিনি দাবী করেন, কেবলমাত্র বিএনপি রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ততার কারনে আমাকে কর্ণাই মামলার আসামী করা হয়েছে। প্রতিনিধিদের মাধ্যমে মনোনয়নপত্র জমাসহ নির্বাচনী কাজে অংশ নেন বলে জানান, নবনির্বাচিত এই চেয়ারম্যান।

দিনাজপুর-কোতোয়ালি থানার ওসি এ কে এম খালেকুজ্জামান জানান, ২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারি জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জেলার সদর উপজেলার ১নং চেহেলগাজী ইউনিয়নের কর্ণাই গ্রামে দুর্বত্তরা আওয়ামী লীগ সমর্থিত লোকজনসহ হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর হামলা, দোকানপাটে অগ্নিসংযোগসহ ব্যাপকভাবে লুটপাট ও মহিলাদের লাঞ্চিত করে। “এ ঘটনায় অন্যদের সাথে আনিছুর রহমান বাদশাকেও আসামি করা হয়। তখন থেকেই তিনি গ্রেপ্তার এড়াতে আত্মগোপনে রয়েছেন।”

মতামত...