,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

দেশে নারী শ্রমিকেরা মজুরি বৈষম্যের শিকার

women wokersদিলরুবা খানম, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ সারা দেশে শহর- গ্রামে বিভিন্ন  প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে দিনে দিনে নারী শ্রমিকের চাহিদা বাড়ছে। নিজের জীবন জীবিকার তাগিদে সকল সংশয় উপেক্ষা করে কাজ করছেন এসব নারী শ্রমিক। কিন্তু তারা  ন্যায্য মজুরি পাচ্ছেন না। ফলে প্রতিনিয়তই নারীরা মজুরির ক্ষেত্রে বৈষম্যের শিকার হচ্ছে।

সারা দেশে মে দিবসে শ্রমিকের অধিকার নিয়ে ডাক- ঢোল পিটানো হলেও নারী শ্রমিকের বরাবরই অন্ধকারেই থাকছে।রোদে পুড়ে আর বৃষ্টিতে ভিজে পুরুষের কাঁধে কাধঁ মিলিয়ে কাজে সমান পারদর্শিতা প্রদর্শন করলেও নারিরা পাচ্ছে মাত্র পুরুষের অর্ধেক মজুরি!

অনুসন্ধানে প্রকাশ, ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, খুলনা ও রাজশাহীসহ বিভিন্ন উপজেলার নিম্নবিত্ত পরিবারের নারীরা রাস্তাঘাট মেরামত, আবাসন, কৃষিসহ বিভিন্ন কাজ করে তাদের জীবিকা অর্জন করছে। আবার নারী শ্রমিকদের কম মূল্য কাজ করিয়ে নেওয়ার জন্য ব্যাপক চাহিদাও রয়েছে মালিক পক্ষের।

এক নারী শ্রমিকের সাথে কথা হলে তিনি জানান, সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সারা দিন কাজ করে তারা মজুরি পান ১৫০-১৮০ টাকা আর পুরুষ শ্রমিকরা একই কাজ করে পায় ৪০০-৫০০ টাকা। কাজের ক্ষেত্রে পরুষের সাথে সমান কাজ করেও এমন কি, নারীরা পুরুষের সাথে সাথে চুক্তিবদ্ধভাবে কাজ করেও পাচ্ছে না সমান মজুরি।

দেশের বিভিন্ন এলাকায় ইট ভাটায় কাজ করা কিছু নারী শ্রমিকও  এমন বেতন বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন বলে জানান।

আবার অনেক সময় শোনা যায়, নারীরা কর্মক্ষেত্রে বিভিন্ন ভাবে মালিক পক্ষের কাছ থেকে নির্যাতিত হচ্ছে। লোকলজ্জার কথা ভেবে ও কাজ হারানোর ভয়ে তারা তাদের নির্যাতনের কথা প্রকাশ করছ না।

বিশিষ্টজনদের অভিমত, বর্তমানে কাজের জন্য নারী শ্রমিকদের চাহিদা ব্যাপক, পুরুষ শ্রমিকের পাশাপাশি নারী শ্রমিকদরকেও যখন-তখন পাওয়া যাচ্ছে না। কাজ করাতে চাইলেও বেশ কয়েক দিন আগ থেকেই শ্রমিকদের বলে রাখত হচ্ছে। কিন্তু নারীরা বরাবরই হচ্ছেন মজুরি বৈষম্যের শিকার। সরকারি তৎপরতায় এ ধরনের বৈষম্য রোধ করা সম্ভব বলে মনে করছেন তারা।

 

মতামত...