,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

নতুন স্কেলেই মার্চের বেতন শিক্ষক-কর্মচারীদের, এপ্রিলে ৬ মাসের বকেয়া

gov logoনিজস্ব প্রতিবেদক,  বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ ঢাকা, নতুন স্কেলেই মার্চের বেতন পাবেন এমপিওভুক্ত  শিক্ষক-কর্মচারীর  এপ্রিলের শুরুতে আর এপ্রিলেই ৬ মাসের বকেয়া পরিশোধ করা হবে।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ  বলেন,  ‘নতুন বেতন কাঠামো অনুযায়ী এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন বাবদ শুধু মার্চ মাসেই অতিরিক্ত খরচ পড়বে ৩৯৬ কোটি টাকা। আর ২০১৫ সালের জুলাই মাস থেকে নতুন স্কেল কার্যকর ধরা হয়েছে। এর জন্য গত বছরের জুলাই থেকে তাঁরা বকেয়াও পাবেন। সব মিলিয়ে এমপিওভুক্ত এসব শিক্ষক-কর্মচারির বেতন বাবদ সরকারের মোট খরচ হচ্ছে ২ হাজার ৫৩ কোটি ৫০ লাখ টাকা।’ একটু সময় নিলেও বিষয়টি সুরাহা হওয়ায় কিছুটা প্রশান্তি কাজ করছে বলেও জানালেন শিক্ষামন্ত্রী।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়  জানা যায়, এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের নতুন স্কেল অনুযায়ী এমপিও (বেতন-ভাতার সরকারি অংশ) প্রদানে সোমবার জিও (সরকারি আদেশ) জারি করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়। একই দিন  জিও’র কপিটি শিক্ষামন্ত্রণালয়ে পৌঁছে। এখন জিওটি এনডোর্স করে একটি পরিপত্র (সার্কুলার) জারি করব আজই (মঙ্গলবার) । পরে শিক্ষামন্ত্রী ও শিক্ষা সচিবের অনুমোদনক্রমে মাউশির (মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর) মাধ্যমে প্রতিমাসের মতো ব্যাংকে চেক পাঠানো হবে। তবে জুলাই থেকে বকেয়ার অংশটি  এপ্রিলের বেতনের সাথে ৬ মাসের (জুলাই থেকে ডিসেম্বর) বকেয়া উত্তোলন করতে পারবেন  শিক্ষক-কর্মচারী। আর বাকি দুই মাসের (জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি) বকেয়া মিলবে মে মাসের বেতনের সাথে।

বিদ্যমান এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা বাবদ প্রতি মাসে সরকারের ব্যয় হয় ৬’শ কোটি টাকার কিছু বেশি। নতুন স্কেলে বেতন প্রদানে প্রতি মাসে অতিরিক্ত আরও প্রায় ৪’শ কোটি (৩৯৬ কোটি) টাকা ব্যয় হবে সরকারের। আর বকেয়াসহ সবমিলিয়ে এ-বাবদ সরকারের খরচ ২ হাজার ৫৩ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

নতুন কাঠামো অনুযায়ী বেতন পেতে দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসানে সরকার ও শিক্ষামন্ত্রণালয়কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন   শিক্ষামন্ত্রী ও শিক্ষা সচিবের প্রতি  কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি (বাকবিশিস) ।

বিষয়টি জটিল ছিল উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমকে  বলেন, ‘প্রায় ৫ লাখ এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারি রয়েছেন। সংখ্যাটি কম নয়। নতুন কাঠামো অনুযায়ী এই বিশাল সংখ্যক শিক্ষক-কর্মচারীর বেতন বাবদ অতিরিক্ত যে টাকা খরচ হবে তাও কম নয়। তবে আশার কথা হচ্ছে- আমরা এই কঠিন কাজটির সুরাহা করতে পেরেছি। আর এর মাধ্যমে সরকারি চাকরিজীবীদের মতো আমাদের শিক্ষা পরিবারের সিংহ ভাগ বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীরাও সুফল পাবেন।’

মাউশির অধীনে বর্তমানে প্রায় ৩৫ হাজার বিদ্যালয়, কলেজ ও মাদ্রাসা রয়েছে। এগুলোর মধ্যে প্রায় ২৮ হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত। আর এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারী আছেন প্রায় পাঁচ লাখ। এর মধ্যে কর্মচারী ৭০ হাজারের কিছু বেশি। আর শিক্ষকের সংখ্যা চার লক্ষাধিক।

 

বি এন আর/০০১৬/০০৩/০০২৯/০০৩৬৩৫/এন

মতামত...