,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

নাগরিকত্ব নিয়ে জটিলতা বিলুপ্ত ছিটমহলে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা, ১৫, ডিসেম্বর (বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম)::    বংশ পরম্পরার মাটির টান আর স্বজন-প্রতিবেশীদের  আত্মিক বন্ধন ছিন্ন করতে পারেননি বিলুপ্ত ছিটমহলগুলোর ২২ পরিবারের ৭৫ জন। ভারতের নাগরিকত্ব বহাল রেখে সে দেশে যাওয়ার জন্য সাময়িক পরিচয়পত্র এবং ট্রাভেল পাস গ্রহণ করেও যাননি তারা।

এই ট্রাভেল পাসের মেয়াদ গত ৩০ নভেম্বর শেষ হওয়ায় ভারতে যাওয়ার আর সুযোগ নেই তাদের। এ অবস্থায় ভারতীয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তাদের ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত জানাননি। এতে বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তাদের নাগরিকত্বের বিষয়টি সুরাহা করতে পারছে না। ফলে তাদের নাগরিকত্ব নিয়ে জটিলতা সৃষ্টির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

ভারতে না যাওয়া এসব সদস্যদের মধ্যে রয়েছে কুড়িগ্রামের দাসিয়ারছড়ার ১৬ পরিবারের ৫৯ জন, পঞ্চগড়ের কোটভাজনী, দহলা খাগড়াবাড়ি ও দইখাতার তিন পরিবারের ১৩ জন এবং লালমনিরহাটের গতামারী ও খরখরিয়ার তিন পরিবারের তিনজন।

চলতি বছরের ১ আগস্ট থেকে কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, পঞ্চগড় ও নীলফামারী জেলায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে সদ্য বিলুপ্ত ছিটমহল নামের ১১১টি জনপদ। এর আগে কাগজে-কলমে এই জনপদগুলো ভারতের ছিল। গত ৬ থেকে ১৬ জুলাই পর্যন্ত এই জনপদগুলোতে দু’দেশের যৌথ সমীক্ষা পরিচালিত হয়। যৌথ সমীক্ষায় হেড কাউন্টিং হালনাগাদ এবং অধিবাসীদের নাগরিকত্ব বিষয়ে মতামত গ্রহণ করা হয়।

এ সময় কুড়িগ্রাম জেলায় অন্তর্ভুক্ত দুটি ছিটমহলের ৬৪ পরিবারের ৩০৫ জন, লালমনিরহাট জেলায় অন্তর্ভুক্ত ৬টি ছিটমহলের ৪৯ পরিবারের ১৯৭ জন এবং পঞ্চগড় জেলার ১০টি ছিটমহলের ৯৮ পরিবারের ৪৮৭ জনসহ মোট ৯৮৯ জন ভারতের নাগরিকত্ব বহাল রেখে সে দেশে যাওয়ার জন্য মতামত প্রদান করেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে গত ৭ এবং ৮ সেপ্টেম্বর ঢাকার ভারতীয় হাই কমিশন ও রাজশাহীর সহকারী ভারতীয় হাইকমিশন কর্মকর্তারা জনপদগুলোতে এসে ভারতে গমনেচ্ছুদের মধ্যে ভারত সরকারের দেয়া সাময়িক পরিচয়পত্র ও ট্রাভেল পাস প্রদান করেন।

এদিকে এই পরিস্থিতিতে বিলুপ্ত ছিটমহলগুলোর অধিবাসীদের নাগরিকত্ব প্রদান ও গেজেট প্রকাশনা বিষয় নিয়ে গত ৮ ডিসেম্বর রংপুর বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই সভায় বিলুপ্ত ছিটমহলের উপজেলাভিত্তিক জনগণনার ফলাফল, অপশন প্রদানকারীদের ভারত গমন, অপশন প্রত্যাহার, অপশন প্রদানকারীদের স্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তর এবং বিক্রি বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানাsit গেছে।

জয়েন্ট বাউন্ডারি ওয়ার্কিং গ্রুপের বাংলাদেশ অংশের টিম লিডার ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রাজনৈতিক অনু বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় রংপুর বিভাগীয় কমিশনার মুহা. দিলওয়ার বখত, লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান, কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক খান মো. নুরুল আমিন, পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসক মো. সালাহ উদ্দিন ও নীলফামারীর জেলা প্রশাসক মো. জাকির হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

এ প্রসঙ্গে লালমনিরহাটের জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান জানান, সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যারা ভারতের নাগরিকত্ব বহাল রেখে সে দেশে যাওয়ার জন্য ট্রাভেল পাস গ্রহণ করার পরও যাননি, তাদের তালিকা ভারতের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে যে সিদ্ধান্ত আসবে সে অনুযায়ী পরে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মতামত...