,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

নারায়ণগঞ্জে গুলশানে হামলার মাষ্টারমাইন্ড তামিমসহ ৩ জঙ্গি নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ রিভিউজঃ নারায়ণগঞ্জ শহরের পাইকপাড়ায় আজ শনিবার অভিযানে তিন জঙ্গি নিহত হয়েছে। তাদের মধ্যে গুলশানে জঙ্গি হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী তামিম চৌধুরী রয়েছেন।

পুলিশের মহাপরিদর্শক এ কে এম শহীদুল হক এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলামও এই অভিযানে তামিমের নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আজ সকালে পাইকপাড়ার বড় কবরস্থান এলাকার একটি তিনতলা ভবন ঘিরে অভিযান শুরু করে ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ইউনিট। তাদের সঙ্গে যোগ দেয় সোয়াট। সহযোগিতা করে র‍্যাব-১১ ও নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ।

সকাল সাড়ে নয়টার পর ভবনের কাছ থেকে প্রথম গুলির শব্দ শুনতে পাওয়া যায়। এরপর থেমে থেমে গোলাগুলি হয়। বড় ধরনের বিস্ফোরণের শব্দও শোনা যায়।

ঘণ্টা খানেক পর অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়। পরে ঘটনাস্থলে উপস্থিত পুলিশের মহাপরিদর্শক সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি বলেন, অভিযানে নব্য জেএমবির তিন জঙ্গি নিহত হয়েছে। পুলিশের কাছে তামিমের যে ছবি রয়েছে, তার সঙ্গে নিহত একজনের চেহারা হুবহু মিলে গেছে।

শহীদুল হক বলেন, ‘এতে স্পষ্ট, তিনি তামিম হবেন।’

নিহত বাকি দুজনের নাম-পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডার নাগরিক তামিম গুলশানের হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী ছিলেন বলে পুলিশের ভাষ্য। তাঁকে ধরতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছিল পুলিশ। তামিমকে ধরিয়ে দিতে ২০ লাখ টাকা পুরস্কারও ঘোষণা করা হয়েছিল।
পাইকপাড়ার স্থানীয় লোকজনের ভাষ্য, আজ সকালে ঘুম থেকে উঠে তাঁরা বেশ কয়েকটি গাড়ি দেখতে পান। গাড়িতে করে আসা সাদাপোশাকের পুলিশ সদস্যরা এলাকায় সতর্ক অবস্থান নেন। তাঁরা পাইকপাড়া বড় কবরস্থান এলাকায় অবস্থিত একটি ভবন ঘিরে তৎপরতা শুরু করেন।

অভিযানকালে জেলা পুলিশ ও র‍্যাব পুরো এলাকা ঘিরে রাখে। এলাকার বিদ্যুৎ, গ্যাস ও ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ব্যাপক উপস্থিতি ও গোলাগুলির শব্দে স্থানীয় লোকজনের মধ্যে একধরনের ভীতি ছড়িয়ে পড়ে।

গত ১ জুলাই রাতে পাঁচ জঙ্গি গুলশান-২-এর ৭৯ নম্বর সড়কে হলি আর্টিজান বেকারি রেস্তোরাঁয় হামলা চালায়। তারা দেশি-বিদেশি ২০ নাগরিককে নৃশংসভাবে হত্যা করে। ওই রাতে অভিযান চালাতে গিয়ে জঙ্গিদের বোমায় নিহত হন পুলিশের দুজন কর্মকর্তা। পরদিন সকালে সেনা অভিযানের মধ্য দিয়ে জঙ্গিদের ১২ ঘণ্টার জিম্মি সংকটের অবসান হয়। অভিযানে পাঁচ জঙ্গিসহ ছয়জন নিহত হন।

মতামত...