,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

নির্বাচনের প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশ খালেদা জিয়ার

নিউজ ডেস্ক, ১২ ফেব্রুয়ারী বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নিতে দলের সিনিয়র নেতাদের নির্দেশ দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। শনিবার রাতে গুলশানে চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত দলের ভাইস চেয়ারম্যানদের সঙ্গে বৈঠকে তিনি এই নির্দেশ দেন। বৈঠকে অংশ নেয়া একাধিক ভাইস চেয়ারম্যান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তারা জানান, বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেবে, গণতান্ত্রিক দল হিসেবে নির্বাচনই চূড়ান্ত। কিন্তু বর্তমান ইসির অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচন নিয়ে জনমনে আশঙ্কা রয়েছে। তাই সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার খুবই প্রয়োজন। কিন্তু সরকার সহায়ক সরকারের প্রস্তাব মানবে কিনা, হলে ধরন কী হবে- এটাই মুখ্য। বৈঠকের বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমেদ আযম খান বলেন, দলের চেয়ারপারসন প্রত্যেককেই যার যার এলাকায় যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। এদিকে আজ রোববার রাতে বিএনপির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যদের সঙ্গে আবারও বৈঠকে বসবেন তিনি।
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে বৈঠকে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ ভাইস চেয়ারম্যানদের মধ্যে অধ্যাপক এম এ মান্নান, আবদুল মান্নান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ব্যারিস্টার শাজাহান ওমর, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, সেলিমা রহমান, মোহাম্মদ শাজাহান, খন্দকার মাহবুবুর রহমান, রুহুল আলম চৌধুরী, মাহমুদুল হাসান, ইনাম আহমেদ চৌধুরী, আবদুল আওয়াল মিন্টু, ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, শামসুজ্জামান দুদু, আহমেদ আজম খান, জয়নুল আবেদীন, গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী ও শওকত মাহমুদ উপস্থিত ছিলেন।
বৈঠকে আলোচনা প্রসঙ্গে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আওয়াল মিন্টু বলেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশন সম্পর্কে ম্যাডাম সবার মতামত নিয়েছেন, বৈঠকে বলা হয়েছে তিনি (নতুন ইসি) নিরপেক্ষ নন, তিনি দলীয় টাইপের লোক। এছাড়া দেশের বর্তমান অবস্থা, আমাদের দলীয় নেতা-কর্মীদের ওপর অত্যাচার, জেল-জুলুম, নির্বাচন যখনই হয়, কেমন নির্বাচন হবে এসব বিষয় নিয়েই কথা হয়েছে। তিনি বলেন, নির্বাচনকালীন একটি নিরপেক্ষ সরকার লাগবে এজন্য জনমত সৃষ্টি করা, আমাদের দাবির সঙ্গে জনগণকে যুক্ত করতে দলের কি করণীয় এসব বিষয় নিয়েও আলোচনা হয়েছে।
দলের শীর্ষ নেতারা জানান, বিএনপি চেয়ারপারসন আগামী নির্বাচন সামনে রেখে দলের সিনিয়র নেতাদের দ্রুত প্রস্তুতি নিয়ে নিজ নিজ নির্বাচনী এলাকায় সভা-সমাবেশ করার নির্দেশ দিয়েছেন। বৈঠকে অংশ নেয়া ভাইস চেয়ারম্যানরা জানান, শনিবার রাতের বৈঠকে সার্বিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি, বিগত দিনের কার্যক্রম, নতুন ইসি কেমন হলো, সিইসি হওয়ার পর ফুলেল শুভেচ্ছা পাওয়ার বিষয়টি নিয়ে অংশগ্রহণকারী প্রায় প্রত্যেকেই কথা বলেন। মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আলোচনার মুখ্য বিষয়গুলো নোট করেন। নেতারা জানান, প্রায় দেড় ঘণ্টার বৈঠকে সবার কথা শোনেন খালেদা জিয়া। এর পর তিনি সময় নিয়ে আলোচনা করেন। তিনি নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে যার যার নির্বাচনী এলাকায় যেতে নির্দেশনা দিয়েছেন। প্রত্যেক ভাইস চেয়ারম্যানকেই তাদের নিজ নিজ জেলায় সভা ও সমাবেশ করার পরামর্শ দিয়েছেন খালেদা জিয়া।
এদিকে নতুন নির্বাহী কমিটি ঘোষণার পর প্রথমবারের মতো ভাইস চেয়ারম্যানদের নিয়ে বৈঠক ডাকেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তবে ৩৫ সদস্য বিশিষ্ট ভাইস চেয়ারম্যানদের মধ্যে ১৬ নেতাই বৈঠকে অনুপস্থিত ছিলেন। বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, প্রথম বৈঠকেই অনুপস্থিত ছিলেন ভাইস চেয়ারম্যান বিচারপতি এইচ টি ইমাম, এম মোর্শেদ খান, অ্যাডভোকেট হারুন আর রশিদ, শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন, আবদুল্লাহ আল নোমান, রাবেয়া চৌধুরী, হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, বরকত উল্লাহ বুলু, মীর মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন, কাজী শাহ মোফাজ্জল হোসেন কায়কোবাদ, ব্যারিস্টার মোহাম্মদ আমিনুল হক ও নিতাই রায় চৌধুরী। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসাধীন থাকায় সাদেক হোসেন খোকা, কারাগারে থাকায় আবদুল সালাম পিন্টু ও পদত্যাগ করায় মোসাদ্দেক আলী ফালু (যদিও তার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করা হয়নি) এবং দীর্ঘদিন ধরে দেশের বাইরে থাকায় ড. ওসমান ফারুক বৈঠকে উপস্থিত থাকতে পারেননি।

মতামত...