,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

নিহতদের দেখতে গিয়ে হাসপাতালে অঝোরে কাঁদলেন মহিবুল হাসান চৌধুরী

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর কুলখানির মেজবানে অতিরিক্ত মানুষের ভিড়ে পদদলিত হয়ে হতাহতদের দেখতে গিয়ে অঝোরে কাঁদলেন বড় ছেলে মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। পিতা হারানোর শোক কাটিয়ে উঠার আগেই বাবার কুলখানি উপলক্ষে আয়োজিত মেজবানে পদদলিত হয়ে মানুষ হতাহতের ঘটনায় শোকে মুহ্যমান হয়ে পড়েন নওফেল।

সোমবার রীমা কমিউনিটি সেন্টারের মর্মান্তিক ঘটনার পর চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে হতাহতদের দেখতে ছুটে যান আওয়ামী লীগের এই সাংগঠনিক সম্পাদক। নওফেলের সঙ্গে আওয়ামী লীগের নেতারাও ছিলেন সেখানে। হতাহতদের দেখে তিনি আর নিজেকে সামলে রাখতে পারেননি। অঝোরে কাঁদেন তিনি। নিজেকে সংবরণ করতে না পেরে লাশের উপর পড়ে যাওয়ার উপক্রম হয়। এসময় পাশে থাকা আওয়ামী লীগ নেতারা তাকে ধরে ফেলেন।

নওফেলের সঙ্গে থাকা রাউজান উপজেলা চেয়ারম্যান এহছানুল হায়দর চৌধুরী বাবুল, মিরসরাই উপজেলার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিনসহ অন্যরাও নওফেলের সঙ্গে কান্নায় ভেঙে পড়েন। এসময় হাসপাতালের পরিবেশ আরও ভারী হয়ে ওঠে।

উল্লেখ্য, সনাতনীসহ অমুসলিমদের জন্য রীমা কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত মেজাবানে মানুষের হুড়োহুড়িতে পদদলিত হয়ে ১০জনের মৃত্যু হয়। আহত হন অর্ধশতাধিক।

মতামত...