,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

নীলফামারীতে স্ত্রী ‘বন্ধক’র ঘটনায় তোলপাড়

datiningনীলফামারী প্রতিবেদক  বিডিনিউজ রিভিউজ ডটকমঃ নীলফামারীর সৈয়দপুরে স্ত্রীকে ‘বন্ধক’ রেখে বিপাকে পড়েছেন এক যুবক। এ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়েছে।

জানা গেছে, লিটন নামের এক যুবক প্রথম স্ত্রীর অগোচরে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। দুই মাস পর প্রথম স্ত্রী বাড়ি আসবে জেনে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। উপায় হিসেবে বের করেন, নববধূকে কারও কাছে কিছু সময়ের জন্য রেখে দেয়া। তাও টাকার বিনিময়ে। আর এতেই বেধেছে বিপত্তি। বেঁকে বসেছেন নব স্ত্রী। স্বামীর কাছে ফিরবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, বন্ধক গ্রহীতাকে বিয়ে করবেন বলেও জানিয়েছেন।

ওদিকে বিপত্নীক বন্ধক গ্রহীতা ওলেমান মিয়াও বন্ধুর বউকে আর ফেরত দিতে রাজী নন।

লিটন আলী জানান, দুই মাস আগে প্রেম করে বিয়ে করেন এক তরুণীকে (২৩)। লিটন এর আগে চট্টগ্রামে রিকশাভ্যান চালাতেন। তার স্ত্রী-সন্তান সেখানেই বসবাস করছেন। প্রথম স্ত্রীকে না জানিয়ে তিনি বিয়ে করেন এই তরুণীকে।

লিটন জানান, প্রথম স্ত্রী চট্টগ্রাম থেকে বাড়িতে আসছেন, এ খবরে দিশাহারা হয়ে পড়েন। কী করবেন ভেবে পাচ্ছিলেন না। পরে নতুন শ্বশুরবাড়ির এলাকার বাসিন্দা বিপত্নীক কাঠমিস্ত্রি ওলেমান মিয়ার (৩২) কাছে তিনি নববধূকে মাত্র ৫০০ টাকায় বন্ধক রাখেন। কিন্তু চট্টগ্রাম থেকে আগের স্ত্রী না আসায় তিন দিনের মাথায় গতকাল রাতে নতুন স্ত্রীকে ফিরিয়ে নিতে যান তিনি।

লিটন জানান, বউ তো ফিরে এলোই না, বরং তাকে নানা রকম হুমকি ধমকি দেয়া হয়েছে।

অনেক অনুরোধ করলে বউ সাফ জানিয়ে দেন, যে ব্যক্তি স্ত্রীকে বন্ধক রাখে, সে কেমন স্বামী? তাই তিনি বন্ধক গ্রহীতার সঙ্গেই থাকতে চান।

ওই তরুণীও বলেন, ‘আমি কোনোভাবেই লিটনের কাছে ফিরে যাবো না।’

বন্ধক গ্রহীতা ওলেমান বলেন, ‘আমি ওই তরুণীকে বিয়ে করবো। ওকে ছেড়ে দেয়ার প্রশ্নই ওঠে না।’ এলাকার নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য আফজাল হোসেন বলেন, ‘লিটনের অপরাধ অমার্জনীয়। আর ওই তরুণীও যা করেছেন, তা ঠিক হয়নি। বিয়ে না করে তিনি কীভাবে অন্যের বাড়িতে আছেন, তা আমার বোধগম্য নয়।’

 

মতামত...