,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

পিরোজপুরে ‘নৌকার হাট’

boat hat1বরিশাল সংবাদদাতা, বিডিনিউজ রিভিউজঃ বর্ষা মৌসুমকে কেন্দ্র করে পিরোজপুরের আটঘর কুরিয়ানায় বসেছে ঐতিহ্যের ‘নৌকার হাট’। জেলার হাজারো মানুষ ব্যস্ত নৌকা তৈরি ও কেনাবেচায়। তবে ফড়িয়া ও মহাজনদের দৌরাত্ম্য কাঙ্ক্ষিত লাভ পাচ্ছেন না নৌকার কারিগররা। এ অবস্থায়, সরকারি সহায়তার দাবি জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

বর্ষা মৌসুমে, নদ-নদী বেষ্টিত বরিশাল বিভাগের গ্রাম অঞ্চলে যাতায়াতে নৌকাই প্রধান বাহন। কম খরচে পণ্য পরিবহন ও যাতায়াতে এ বাহনকেই বেছে নেন মানুষজন। এবারও পিরোজপুরের স্বরূপকাঠি উপজেলার আটঘর কুরিয়ানা গ্রামে বসেছে দেশের সর্ববৃহৎ নৌকার হাট। থরে থরে সাজিয়ে রাখা হয়েছে ছোট-বড় নৌকা। সপ্তাহে শুক্র ও সোমবারে এ হাটে আসেন বরিশালের বিভিন্ন এলাকার মানুষ।

দিনদিন চাহিদা বাড়ায় জেলার স্বরূপকাঠি, নাজিরপুর ও কাউখালী উপজেলার মানুষেরা, নৌকা তৈরিকে বেছে নিয়েছেন পেশা হিসেবে। কিন্তু বেচাকেনা ভালো হলেও আর্থিক সামর্থ্য না থাকায় ফড়িয়াদের কবলে পড়ে ভাগ্য বদল হচ্ছে না বলে অভিযোগ তাদের।

তবে, মহাজন ও ফড়িয়াদের দৌরাত্ম্য কমাতে, নৌকার কারিগরদের সহজ শর্তে ঋণ দেয়ার কথা জানালেন পিরোজপুর বিসিক উপ-ব্যবস্থাপক মো. হাজরা সিদ্দিকুর রহমান।

তিনি বলেন, ‘যারা এই কাজে জড়িত তারা যদি বিসিকে আবেদন করে তাহলে তাদের লোন দেয়া হবে। আর যারা বলছে বিসিক লোন দিচ্ছে না সেটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। কেউ যদে আবেদন করে তাহলে অবশ্যই তাকে সহজ শর্তে ঋণ দেয়া হবে।’

জেলার তিনটি উপজেলার অন্তত পাঁচ হাজার মানুষ, বর্ষা মৌসুমে নৌকা তৈরি করে জীবিকা নির্বাহ করেন।

মতামত...