,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

পুঁজিবাজারে ইতিবাচক প্রভাব, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নতুন সিদ্ধান্তে

কেন্দ্রীয় ব্যাংক নীতিমালা পরিবর্তন করে পুঁজিবাজারে ব্যাংকের বিনিয়োগসীমা হিসাবের ক্ষেত্রে সহযোগী কোম্পানির মূলধন বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় স্টক এক্সচেঞ্জে ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে,সপ্তাহের দ্বিতীয় দিন সোমবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) মূল্যসূচক বেড়েছে সিএসইতে লেনদেন কিছুটা কমলেও ডিএসইতে বেড়েছে।

সোমবার ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ৬৭ দশমিক ৩৪ পয়েন্ট অর্থাৎ প্রায় দেড় শতাংশ বেড়ে ৪ হাজার ৫৭৯ পয়েন্টে উঠে।সিএসইর সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২০৫ পয়েন্ট বেড়ে ১৩ হাজার ৯৮০ পয়েন্টে উঠে।

ডিএসইর সাবেক সভাপতি ও শাকিল রিজভী বলেন, “পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ বাড়াতে394 কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নতুন সিদ্ধান্তের ফলে ব্যাংকিং খাত থেকে পুঁজিবাজারে নতুন বিনিয়োগ আসার পথ তৈরি হল, যার ইতিবাচক প্রভাব সোমবারের বাজারে পড়েছে।”

রোববার এক সার্কুলারে বাংলাদেশ ব্যাংক বলেছে, জানুয়ারি থেকে পুঁজিবাজারে ব্যাংকের বিনিয়োগসীমা হিসাবের ক্ষেত্রে সহযোগী কোম্পানি মার্চেন্ট ব্যাংক, ব্রোকারেজ হাউজর মূলধন আর ধরা হবে না।

চলতি নিয়মে, সহযোগী কোম্পানির মূলধন যোগ করে ব্যাংকের মোট মূলধনের ২৫ শতাংশের বেশি পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করা যায় না।

পুঁজিবাজারে বেশ কয়েকটি ব্যাংকের লাগামহীন বিনিয়োগ ২০১০ সালে ধসের মধ্যে পড়ার পর ব্যাংকিং খাতের ঝুঁকি বিবেচনা করে ২০১৩ সালের সেপ্টেম্বরে সার্কুলার জারি করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ওই সীমা বেঁধে দেয়।

একইসঙ্গে কোনো ব্যাংকের বিনিয়োগ মোট মূলধনের ২৫ শতাংশের বেশি হলে, তা কমিয়ে সীমার মধ্যে আনতে ২০১৬ সালের ২১ জুলাই পর্যন্ত সময় বেঁধে দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, দেশের ৪৮টি ব্যাংকের সবগুলো সাবসিডিয়ারি (সহযোগী প্রতিষ্ঠান) কোম্পানি মিলে ৫ হাজার ৬০০ কোটি টাকার বিনিয়োগ রয়েছে।

নতুন নির্দেশনার ফলে, ১ জানুয়ারির পর পুঁজিবাজারে ব্যাংকগুলোর বিনিয়োগ হিসাব করার ক্ষেত্রে এই ৫ হাজার ৬০০ কোটি টাকার মূলধন বাদ পড়বে।

সোমবার ডিএসইতে লেনদেন আগের দিনের চেয়ে ১৪০ কোটি ৯৭ লাখ টাকা বেড়ে ৪৮৮ কোটি ৮৭ লাখ টাকার শেয়ার হাতবদল হয়েছে।

লেনদেনে থাকা কোম্পানি ও মিউচুয়্যাল ফান্ডের মধ্যে ২৪৭টির শেয়ারের দর বেড়েছে, কমেছে ৫১টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ২২টির।

এদিকে সিএসইতে লেনদেন আগের দিনের চেয়ে ৯৭ লাখ টাকা কমে ২১ কোটি ৯০ লাখ টাকার হাতবদল হয়েছে।

লেনদেনে থাকা ২৩৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ারের মধ্যে দর বেড়েছে ১৮৮টির, কমেছে ৩৩টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ১৬টির দর।

মতামত...