,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

পুলিশ কমিশনারের সাথে পূজা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দের মত বিনিময়

cনিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ রিভিউজঃ সিএমপি’র সম্মেলন কক্ষে পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ ইকবাল বাহার, পিপিএম মহোদয়ের সভাপতিত্বে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ, চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন কমিটি এবং সকল থানার পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি, সেক্রেটারী ও সদস্যবৃন্দের সাথে আসন্ন শারদীয় দুর্গা পূজা উপলক্ষে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা সহ সার্বিক বিষয়ে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আজ ২৯ সেপ্টেম্বর সকাল ১১.০০ ঘটিকার সময়সভায় চট্টগ্রাম মহানগরী এলাকায় শারদীয় দুর্গা পূজা সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ভাবে সম্পাদনের লক্ষ্যে শারদীয় দুর্গা পূজা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দের সাথে পূজা উদযাপনের বিভিন্ন সমস্যা ও সমাধান নিয়ে আলোচনা করা হয়। পুলিশের পক্ষ থেকে পূজা উদযাপনকালে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় সর্বাত্মক সহযোগিতা দেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়। চলতি বছরে মহানগর এলাকায় ২৩১টি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে ১০৫টি পূজা মন্ডপকে অতিগুরুত্বপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। পূজা মন্ডপের ধরণ অনুযায়ী প্রতিবছরের ন্যায় এবারও চট্টগ্রাম মহানগরীতে প্রতিটি পূজা মন্ডপে পুলিশ এবং আনসার বাহিনীর সদস্যরা সমন্বিতভাবে দায়িত্ব পালন করবে। এছাড়াও সি-বীচ ও কালুরঘাট এলাকায় কোস্টগার্ড ও তাৎক্ষনিক অগ্নিকান্ড নিয়ন্ত্রণে ফায়ার ব্রিগেডের বিশেষ টিম সার্বক্ষণিক দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবে। সভায় সিএমপি এর পক্ষ থেকে উপস্থিত পূজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দের প্রতি প্রতিটি পূজামন্ডপ কেন্দ্রীক স্বেচ্ছাসেবক টিম গঠন ও টিমের সদস্যদেরকে সার্বক্ষণিক পালাক্রমে নিরাপত্তা ডিউটিতে মোতায়েন এবং তাদের পরিচিতি মূলক আইডি কার্ড অথবা নির্দিষ্ট টি-শার্ট পরিধানের জন্য অনুরোধ জানানো হয়। এছাড়াও পূজা মন্ডপে দর্শনার্থী প্রবেশের সুবিধার্থে মহিলা ও পুরুষদের জন্য আলাদা আলাদা প্রবেশ ও বহির্গমন পথের ব্যবস্থা করণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সভায় নিরাপত্তার স্বার্থে বড় বড় প্রতিটি পূজা মন্ডপে সিসি টিভি ক্যামেরা স্থাপন, মেটাল ডিটেক্টর যন্ত্র, ফায়ার ফাইটিং যন্ত্র ও জেনারেটরের ব্যবস্থা রাখার জন্য নেতৃবৃন্দের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়। তদুপরি আযানের সময় মন্ডপে পূজা কেন্দ্রিক সাউথ সিস্টেম সাময়িকভাবে বন্ধ রাখার জন্য সকলের প্রতি বিনীত অনুরোধ জানানো হয়। শারদীয় দুর্গা পূজা উদযাপন কালীন সমগ্র মহানগরীতে মন্ডপ কেন্দ্রীক মাদক, ছিনতাই এবং ইভটিজিং প্রতিরোধে পুলিশী অভিযান কার্যক্রম জোরদার, পুলিশী টহল বৃদ্ধি, সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারী এবং উর্ধ্বতন অফিসার কর্তৃক নিয়মিতভাবে প্রতিটি পূজা মন্ডপ পরিদর্শনের মাধ্যমে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা প্রদানে সর্বাতœক সর্বোচ্চ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে কমিশনার মহোদয় সকলকে আশ্বস্ত করেন এবং এ বিষয়ে নগরবাসীর সর্বাতœক সহযোগিতা কামনা করেন। উক্ত সভায় অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) জনাব দেবদাস ভট্টাচার্য্য, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) জনাব সালেহ মোহাম্মদ তানভীর, পিপিএম-সেবা, উপ-পুলিশ কমিশনার (বন্দর) জনাব হারুন-উর-রশিদ হাযারী, উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) জনাব ফারুক আহমেদ, উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) জনাব মোঃ ওয়ারীশ, উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) জনাব এস.এম. মোস্তাইন হোসেন, উপ-পুলিশ কমিশনার (পশ্চিম) জনাব ফারুকুল হক, উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি-উত্তর ও দক্ষিণ) জনাব পরিতোষ ঘোষ, উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি-বন্দর ও পশ্চিম) জনাব মোঃ মারুফ হোসেন, উপ-পুলিশ কমিশনার (সিএসবি) জনাব মোঃ মোখলেছুর রহমান, উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক বন্দর) জনাব সৈয়দ আবু সায়েম, উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক উত্তর) জনাব মোঃ সুজায়েত ইসলাম, উপ-পুলিশ কমিশনার (এমটি ও সরবরাহ) হাসান মোঃ শওকত আলী, সকল জোনাল সহকারী পুলিশ কমিশনার, র‌্যাব, এপিবিএন, ইন্ডাস্ট্রিায়াল পুলিশ, এনএসআই, ডিজিএফআই, আনসার ও ভিডিপি এর প্রতিনিধিসহ সকল থানার অফিসার ইনচার্জগণ, চট্টগ্রাম মহানগরীর পূজা উদযাপন পরিষদ সভাপতি অরবিন্দু পাল অরুণ এবং সেক্রেটারী সুজিত দাশ সহ সকল থানার পূজা উদযাপন কমিটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন ।

মতামত...