,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

পেকুয়া কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়নের নির্বাচন বৃহস্পতিবার

পেকুয়া সংবাদ দাতা,  বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ চকরিয়া,  পেকুয়ায় কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লি:এর ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন বৃহস্পতিবার। এশিয়ার সর্ব বৃহৎ সমবায়ী এ প্রতিষ্টানে নির্বাচনে আগামী বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোট গ্রহন অনুষ্টিত হবে। পেকুয়া কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লি: অর্থলগ্নি ও বিনিয়োগকারী প্রতিষ্টান হিসেবে সমাদৃত। ব্যবস্থাপনা পর্ষদের এ নির্বাচনকে ঘিরে পেকুয়ায় উথসব মূখর হয়ে উঠেছে।

bnr ad 300x250দেশের যেকোন নির্বাচনের চেয়ে এপ্রতিষ্টানের নির্বাচন কোন অংশে কম নয়। প্রায় ৬হাজার ৪শত ২জন সদস্য এনির্বাচনে সরাসরি ব্যালট প্রয়োগ করে ওই সমিতির নেতা নির্বাচিত করবেন। পেকুয়ায় সমবায়, সঞ্চয় ও ঋণদান সমবায় সমিতি লিমিটেড হিসেবে এর অগ্রগতি সাধিত হয়। বর্তমানে বৃহৎ বিনিয়োগকারী প্রতিষ্টান হওয়ায় ওই সমিতি কালবের সাথে সংযুক্ত হয়। মুলধন দাঁড়িয়েছে প্রায় ২০ কোটি টাকার বেশি। স্বত্তের মুল অংশীদাররা হচ্ছেন আমানতকারীগণ। পেকুয়ায় অর্থ ও বিনিয়োগের ক্ষেত্রে এ প্রতিষ্টান সুদুর প্রসার লাভ করেছে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার পেকুয়াবাজার সমবায় কমিউনিটি সেন্টারে ভোট গ্রহন চলবে। মোট ৬টি পদের জন্য ১৭জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। এরই মধ্যে সভাপতি পদে প্রার্থী হয়েছেন ৪ জন, সহ-সভাপতি পদে ২জন প্রার্থী হয়েছেন। এছাড়া সেক্রেটারী পদের জন্য লড়ছেন ৩ জন প্রার্থী। সদস্য ৩টি পদের জন্য ৮জন প্রার্থী ভোট করছেন। এরা সরাসরি ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত হবেন। এদের মধ্যে সাধারন সম্পাদক পদে বর্তমান সেক্রেটারী মাষ্টার মো.ইদ্রিস তৃতীয় বারের মতো প্রার্থী হয়েছেন। একই পদে প্রার্থী হয়েছেন তরুন সমাজসেবক ও সমবায়ী সংগঠক তারেক ছিদ্দীকী ও মাষ্টার মোজাম্মেল হক। এদিকে ইদ্রিস ইতিপুর্বেও ওই সমিতির ব্যবস্থপনা পর্ষদে দু’বার নির্বাচিত হয়েছেন। তারেক ছিদ্দীকী এই প্রথম নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। অনুসন্ধানে দেখা গেছে, এই নির্বাচনে ভোটাররা বর্তমান নেতৃত্বকে না পছন্দ করছেন। তারা নতুন নেতৃত্বের দিকে ঝুঁকছেন। ওই সমিতির স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যহত হয়েছে। সাধারন ভোটাররা জানিয়েছেন, ওই সমিতির অব্যবস্থাপনার জন্য বর্তমান সেক্রেটারী মাষ্টার ইদ্রিস দায়ী। বিগত সভার কার্য বিবরনী ও সিদ্ধান্ত গ্রহনে অধিকাংশ সদস্যারা সম্মত ছিলেন না। ওই সমিতির ঋণ বিতরনে স্বজন প্রীতি ও দূর্নীতির আশ্রয় নেওয়ার অভিযোগ আছে। সমিতির অর্থ লোপাট হয়েছে। এর জন্য বর্তমান সেক্রেটারী ভুমিকা ছিল প্রশ্ন বিদ্ধ। সম্পদ সংগ্রহ ও সমিতির নামে স্থাবর সম্পত্তি ক্রয় করা হয়েছে। ওই খাতে ব্যয়িত মুলধনের বিপুল অংক গেছে সেক্রেটরীর পকেটে। ঋণদান সমিতির সুদুর প্রসারী সকল পরিকল্পনা প্রনয়নে ব্যর্থ হয়েছেন বর্তমান সেক্রেটারী। এদিকে ভোটাররা এসব অদক্ষতার জন্য নতুন নেতৃত্বের দিকে মুখ ফিরিয়েছে। এদিকে তারেক ছিদ্দিকী কলসী প্রতীক নিয়ে সেক্রেটারী পদে নির্বাচনে লড়ছেন। ঋণদান সমিতিতে তার পরিচিতি ব্যাপক। তরুন সমবায় সংগঠক হিসেবে তার ইমেজ সর্বজন প্রসংশিত। এছাড়া পেকুয়ায় সবার সাথে তার সর্ম্পকও অত্যান্ত প্রকট। ভোটাররা জানিয়েছেন ঋণদান সমিতিতে তাকে ছিদ্দীকীর জনপ্রিয়তা ও গ্রহনযোগ্যতা ব্যাপক। ভোটাররা জানিয়েছেন, আমরা অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন চাই। আশা করছি অতীতের সব ব্যর্থতার অবসান ঘটবে এ সমিতি থেকে। তারেক ছিদ্দীকি তারুন্যের অহংকার একজন পরিশ্রমী সংগঠক। শিক্ষিত, মার্জিত ও ভদ্র হিসেবে আমরা তাকে চিনি। এ অর্থলগ্নি প্রতিষ্টানের সমৃদ্ধির জন্য সৎ এ তরুনকে আমরা এ মুহুর্তে দায়িত্ত অর্পণ করতে প্রস্তুতি নিয়েছি। তার বিকল্প নেই এই সমিতিতে। দূর্নীতিবাজদের ভোটাররা অবশ্যই ব্যালটের মাধ্যমে প্রত্যাখান করবে। এবিষয়ে সেক্রেটারী প্রার্থী তারেক ছিদ্দীকী বলেন, আমি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। সাধারন ভোটাররা সমিতির বর্তমান নেতৃত্বের প্রতি বর্তমানে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে। ইনশাল্লাহ আমি সকলের ভালবাসায় কলসী প্রতীক নিয়ে জয় লাভ করবো। তবে বর্তমান সেক্রেটারী মাষ্টার ইদ্রিস এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চলছে।

 

বি এন আর/০০১৬০০৩০০২২/০০০৩৭২/এস

মতামত...