,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

পৌরসভা নির্বাচনে ১০৬৫ জন মেয়র প্রার্থী বৈধ

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা, ১৩ eeডিসেম্বর (বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম)::আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে যাছাই-বাছাইয়ে বিএনপির ৯ জন ও আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের মধ্যে ৭ জনের প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।২৩৫ পৌরসভায় বিএনপির ২২৪ ও আওয়ামী লীগের ২৩১ জন বৈধ প্রার্থী রয়েছে।বাতিল হওয়াদের মধ্যে বেশিরভাগই আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী। ফলে বাতিলের খাতায় ক্ষমতাসীন দলের চেয়ে বিএনপির প্রার্থীই বেশি।

ইসির নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার উপ-সচিব শাসসুল আলমজানান, গত ৫ ও ৬ ডিসেম্বর মনোয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষ এটিই দলভিত্তিক চূড়ান্ত তালিকা ।
তিনি জানান, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ ২০ রাজনৈতিক দলের মনোনিত বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা  ৬৭১ জনে। সেই সঙ্গে ৩৮৫ জন স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী বৈধ।আওয়ামী লীগের ২৩১, বিএনপির ২২৪ ও জাতীয় পার্টির ৮৫ জন মেয়র প্রার্থী রয়েছে। তবে যারা অবৈধ হয়েছে তাদের আপিল করা রসুযোগ আছে ফলে এ সংখ্যা বাড়তে পারে।

ইসি সূত্র জানায়, পৌরসভা নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য দলীয় ও স্বতন্ত্র মিলে ১ হাজার ২১৩ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। এর মধ্যে যাচাই-বাছাইয়ে বাতিল করা হয়েছে ১৫৭ জনের মনোনয়নপত্র। বাতিল হওয়া প্রার্থীরা ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রার্থিতা বাতিলের বিরুদ্ধে আপিল করেছেন।

বিধি অনুযায়ী, তিন দিনের মধ্যে আপিল নিষ্পত্তির বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সে হিসেবে ১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত আপিলের শুনানি করেছে ইসি। তবে আপিলের পর প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ার তথ্য এখনও ইসিতে আসেনি।

ইসি সর্বশেষ তথ্য অনুসারে, নির্বাচনে অংশ নেয়া রাজনৈতিক দলগুলোর বৈধ প্রার্থীর মধ্যে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির দু’জন, জাতীয় পার্টির (জেপি) ছয় জন, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির চার জন,  বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টি সাত জন, বিকল্প ধারা একজন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) ২৪, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের এক জন, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির ১৬ জন, প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দল-পিডিপিরির এক জন জন, ইসলামী ঐক্যজোটের দু’জন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের ৫৬ জন, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের তিন জন, বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির এক জন এবং খেলাফত মজলিশের ৫ জন।

গত ৩ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন পর্যন্ত মেয়র পদে ১ হাজার ২১৩ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের ২৩৮ জন, বিএনপির ২৩৫ জন এবং জাতীয় পার্টির ৯১ জন মেয়র প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। এছাড়া, দলের বাইরে স্বতন্ত্রভাবে মনোয়নপত্র দাখিল করেছেন ৫০৩ জন।

রিটার্নিং অফিসারদের যাছাই-বাছাইয়ে আওয়ামী লীগের সাত জন মেয়র প্রার্থী, বিএনপির নয় জন, জাতীয় পার্টির ছয় জন মেয়র প্রার্থীর মনোয়নপত্র বাতিল হয়। আর স্বতন্ত্র ১৫৮ জনের মনোয়নপত্র বাতিল করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা। এছাড়া বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির দু’জন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদের দু’জন, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি তিন জন, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-ন্যাপের এক জন, ইসলামী ঐক্যজোটের এক জন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের পাঁচ জন, বাংলাদেশ ইসলামি ফ্রন্টের এক জন এবং খেলাফত মজলিশের দু’জন মেয়র প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।

স্বতন্ত্র প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে ১১৮ জনের। ফলে বৈধ স্বতন্ত্র প্রার্থীর সংখ্যা দাঁড়ায় ৩৮৫ জন।

তবে, বিএনপির পক্ষে ১২ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিলের দাবি করা হয়েছে। তার মধ্যে দলটির পক্ষে টুঙ্গীপাড়া ও মাদারীপুরের কালকিনিতে ক্ষমতাসীনদের হুমকির মুখে প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারেননি বলে দাবি করা হয়।

এদিকে, স্বতন্ত্র ব্যানারে চার শতাধিক প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নিলেও তারা মূলত বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বিদ্রোহী প্রার্থী। দল থেকে সমর্থন ও মনোনয়ন না পেয়ে দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন তারা। আর এদিক থেকে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহীরা এগিয়ে।

যাচাই-বাছাই শেষ হলেও দলভিত্তিক তালিকা দিতে দেরির কারণ জানতে চাইলে ইসির উপসচিব সামসুল আলম বলেন, ‘তথ্যে গড়মিল থাকায় দলভিত্তিক তালিকা প্রস্তুত করতে ইসির একটু সময় লেগেছে।’

নতুন কর্মকর্তা, যান্ত্রিক ত্রুটি ও অদক্ষতার কারণে দলভিত্তিক তালিকা করতে বেশি সময় লেগেছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, কাউন্সিলর পদে মনোনয়পত্র দাখিল করেছিলেন মোট ১৩ হাজার ৬২৬ জন প্রার্থী। তাদের মধ্যে বাতিল হয়েছে ৮৯৮ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র। মোট বৈধ কাউন্সিলর প্রার্থীর সংখ্যা ১২ হাজার ৭২৮ জন। এর মধ্যে সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ২ হাজার ৫১৩ জন ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৯ হাজার ১৫৯ জন প্রার্থী বৈধ হয়েছেন বলে ইসির সর্বশেষ তথ্যে পাওয়া যায়। আর ১৩ ডিসেম্বরের মধ্যে বৈধ প্রার্থীরা মনোয়নপত্র প্রত্যাহার করতে পারবেন। আগামী ৩০ ডিসেম্বর ২৩৫টি উপজেলা ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হওয়ার লক্ষ্যে ১৪ ডিসেম্বর চূড়ান্ত প্রার্থীর প্রতীক বরাদ্দ দেবে ইসি।

মতামত...