,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

প্রথম ওপেন কারাগার হচ্ছে কক্সবাজারের উখিয়ায়

bnr ad 300x250বিশেষ সংবাদদাতা, বিডিনিউজ রিভিউজঃ দেশের প্রথম ও একমাত্র ওপেন কারাগার, পুনঃবাসন কেন্দ্র স্থাপন করা হচ্ছে কক্সবাজারের উখিয়ায়। পৃথিবীর বিভিন্ন উন্নত ও উন্নয়নশীল দেশে এধরনের ওপেন পুর্নবাসন ও সংশোধনী কারাগার রয়েছে। মালয়েশিয়া, ভারত, কানাডা সহ বিভিন্ন দেশে এধরনের কারাগারের মাধ্যমে স্বল্প মেয়াদে সাজা প্রাপ্ত কয়েদিদের সংশোধন ও আর্থসামাজিক ভাবে প্রস্তুত করে মুক্তি দেওয়া হয়। মূলত এটি হবে কমিউনিটি রিহাবিলেটেশন প্রোগ্রাম বা সিআরপির একটি অংশ।

কক্সবাজার জেলা কারাগার সুপারের নেতৃত্বে উখিয়ার প্রস্তাবিত ওপেন জেল ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের জমি পরিদর্শনে আসেন। পরিদর্শনকালে জেল সুপার মোঃ বজলুর রশিদ জানান, মালয়েশিয়ার সিআরপির আদলে পৃথিবীর অন্যান্য দেশের সিআরপির ধারণায় বাংলাদেশের প্রথম ও একমাত্র ওপেন পাবলিক জেল ও পুনবাসন কেন্দ্রটি স্থাপন করা হবে। উখিয়া হলদিয়াপালং ইউনিয়নের পাগলির বিল মৌজায় টিলা, অকৃষি দ্বিতীয় শ্রেণীর প্রায় তিন শ ২৬ একর হাস জমি ওপেন জেলের জন্য প্রস্তাব করা হয়েছে। জানা গেছে আমাদের দেশে ওপেন জেলের ধারণা নতুন হলেও পৃথিবীর অনেক দেশে এধরনের সংশোধনী ও পুনর্বাসন কেন্দ্র রয়েছে। সারা দেশে ছোট খাট নানা অপরাধে অনেক কয়েদি ও অপ্রাপ্ত বয়ষ্ক শিশু কিশোররা স্বল্প মেয়াদে সাজা ভোগ করে থাকে। ছোট খাট অপরাধে সাজা ভোগ করার পর মুক্তি পেয়ে এসব কয়দিরা অনেক সময় মানসিকভাবে বির্পযস্ত হয়ে পড়ে। কিন্তু ওপেন জেলের মাধ্যমে এধরনের কয়েদিদের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কারিগরি কৌশল সহ বিভিন্ন কর্মমূখি আত্মকর্মসংস্থার মূলক শিক্ষা প্রদান করার মাধ্যমে কয়দিদের মনোবল বৃদ্ধি ও সমাজে অন্য দশ জনের ন্যায় বেঁচে থাকার উপযোগী করে গড়ে তোলাই লক্ষ্য। বিশাল আয়তনে জেল এলাকাটি হবে কয়দিদের সংশোধন ও পুনর্বাসন কেন্দ্র।

জানা গেছে, ওপেন কারাগারে কয়েদিরা নির্দিষ্ট মেয়াদে বসাবাসের সুযোগ পাবে। সেখানে কোন স্বাভাবিক কারাগারের ন্যায় শাস্তি বা অন্যকোন ব্যবস্থা থাকবে না। তারা জেলের পরিসীমার মধ্যে কর্মমূখি শিক্ষা গ্রহণ, খেলাধুলা, চিত্ত বিনোদনের সুযোগ পাবে। আত্মীয় স্বজন, পরিচিতজনদের সাথে দেখা স্বাক্ষাত করা, প্রয়োজনে ফোনে আলাপ করার সুবিধাও থাকবে ওপেন কারাগারে। উখিয়া ভূমি অফিসের কাননগো মিলন কান্তি চাকমা জানান, হলদিয়াপালং ইউনিয়নের পাগলির বিল মৌজার উত্তর বড়বিলে পাহাড়ি, টিলা অকৃষি শ্রেণীর ১নং খাস খতিয়ানের ৮০৩নং দাগের ৩২৬ একর জমি ওপেন কারাগারে জন্য প্রস্তাব প্রেরণের প্রক্রিয়া চলছে।

 স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ওপেন কারাগারের জন্য বর্ণিত জমির চাহিদা পত্র প্রেরণ করা হয়েছে। কক্সবাজার জেল সুপারের পরিদর্শন কালে সাথে ছিলেন, আওয়ামীলীগ নেতা আবুল মনসুর চৌধুরী, হলদিয়াপালং ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা অধ্য শাহ আলম, আওয়ামীলীগ নেতা রাসেল চৌধুরী সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

মতামত...