,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার প্রস্তাব বিএনপির!

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া। ফাইল ছবি। -বিডিনিউজ রিভিউজ.কম

নিজস্ব প্রতিবেদক,১৩ ফেব্রুয়ারী বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: বিএনপি সহায়ক সরকারের প্রস্তাব দেবে কি না- এমন প্রশ্নে মির্জা ফখরুল বলেন, এদেশের মানুষ তারা খুব ভালোভাবেই উপলব্ধি করে, একটি নির্বাচনকালীন সময়ে যদি নিরপেক্ষ সরকার না থাকে তাহলে কারো পক্ষেই সেখানে সুষ্ঠু নিবার্চন করা সম্ভব নয়। সেই কারণেই নিরপেক্ষ নির্বাচন পরিচালনায় সহায়ক সরকার ছাড়া কোনো ভাবেই সম্ভব নয়। এই ব্যাপারটি খুবই পরিষ্কার। তিনি বলেন, আমরা (বিএনপি) সহায়ক সরকারের প্রস্তাব দেবো এবং সরকারকে আলোচনার জন্য উদ্যোগ নিতে বলবো। কারণ রাষ্ট্রপতিকে বলার কাজ শেষ হয়ে গেছে। তিনি তো অপকর্ম যেটা করার সেটা করে ফেলেছেন। এখন আমরা প্রধানমন্ত্রীকেই এই (সহায়ক সরকার) প্রস্তাব দেবো। আলোচনায় আসতে হবে, অন্যথায় সব দায়ভার তাকেই বহন করতে হবে।

বর্তমান ইসির অধীনে নির্বাচনে অংশ নেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা অত্যন্ত পরিষ্কারভাবে বলেছি, গঠিত নতুন নির্বাচন কমিশনের প্রধান কর্মকর্তা; তিনি প্রধান কমিশনার হওয়ার মতো যোগ্য ব্যক্তি নন। এই নির্বাচন কমিশনের অধীনে জাতীয় নির্বাচনে যাব কী যাব না সেটা অনেক পরের ব্যাপার। তবে স্থানীয় সরকার নির্বাচন এটা চলমান প্রক্রিয়া আমরা তা করছি এবং তা করবো। দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার সাজা হলে বিএনপির হাল কে ধরবেন- গণমাধ্যমে প্রকাশিত ওই খবরের উদ্ধৃতি তুলে ধরে তিনি বলেন, আমরা অত্যন্ত দৃঢ়তার সঙ্গে বলতে চাই, এই ধরনের চিন্তাভাবনার মধ্য দিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীরা কোনো বৈঠক, আলোচনা করেনি, কোনো সিদ্ধান্তও নেননি। এসব খবর কাল্পনিক রচনা মাত্র।

পদ্মা সেতু দুর্নীতি প্রসঙ্গে ফখরুল বলেন, কোথায় নেই দুর্নীতি? শুধু পদ্মা সেতুই নয়, সবখানেই দুর্নীতি হচ্ছে। পদ্মা সেতু নিয়ে দুর্নীতি অভিযোগ থেকে বিশ্বব্যাংক তাদের অবস্থান থেকে সরে এখনো আসেনি। দুর্নীতি যে হয়নি এটা তারা বলেনি। দুর্নীতির যা হয়েছে সেটার অবস্থান থেকে তারা সরে এসেছে। ঢাকা মহানগর বিএনপির কমিটি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, খুব শিগগিরই পর্দা উত্তোলন হবে।

এসময় মির্জা ফখরুল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বিএনপির কর্মসূচির ঘোষণা করেন। ২১ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টা ১ মিনিটে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুলে দিয়ে শ্রদ্ধা জানাবে বিএনপি। এছাড়া ২০ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর রমনা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনিস্টিটিউশনে আলোচনার আয়োজন করবে দলটি। একইসঙ্গে সারাদেশে দলীয়ভাবে ২১ ফেব্রুয়ারি পালন করার সিদ্ধান্তের কথাও জানান তিনি।

গত ১৮ নভেম্বর নির্বাচন কমিশন গঠনে ১৩ দফা প্রস্তাব তোলার সময়ই বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া প্রথম নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের কথা জানান। এ বিষয়ে যথা সময়ে রূপরেখা নিয়ে হাজির হওয়ার কথাও উল্লেখ করেছিলেন তিনি। এরপর থেকে বিএনপি নেতারা এই বিষয়ে কথা বলে আসছেন। অবশ্য ওই সংবাদ সম্মেলনের এক মাস পর নির্বাচন কমিশন গঠনে রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলোচনা শুরু করেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। এক মাস সংলাপ শেষে গঠন করা সার্চ কমিটির সুপারিশের আলোকে গত ৬ ফেব্রুয়ারি ৫ সদস্যের নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয় আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি এই কমিশনের শপথ নেয়ার কথা আছে।

প্রসঙ্গত নির্বাচনকালীন নির্দলীয়, নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করেছিল বিএনপি। এখন সেই দাবি থেকে সরে এসেে দলটি। এরই মধ্যে আগামী সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে প্রস্তুতি শুরু করতে দলীয় নেতাকর্মীদের নির্দেশ দিয়েছেন চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। আর এই সময় নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের বিষয়টি নিয়ে আওয়ামী লীগের সঙ্গে আলোচনা করে একটি সমঝোতায় পৌঁছতে চায় বিএনপি। – প্রতিদিনের সংবাদদের প্রতিবেদন।

মতামত...