,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃত্ব হারাল চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন

premear uনিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ রিভিউজঃ বিদ্যমান আইন অনুযায়ী কোন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনার এখতিয়ার চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নেই বলে পূর্ণাঙ্গ রায়ে উল্লেখ করেছে হাইকোর্ট।  এর ফলে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনার কর্তৃত্ব হারিয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির উদ্যোক্তা সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর আইনজীবীরা।

এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর হাইকোর্টে রিট পিটিশন (১২৮৯২/২০১৫) পর্যবেক্ষণসহ পূর্ণাঙ্গ রায় বুধবার ২৯ জুন প্রকাশ হয়েছে।

সদ্য প্রকাশিত পূর্ণাঙ্গ রায়ে হাইকোর্টের বিচারপতি মো.আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি মো.জাফর আহমেদ উল্লেখ করেছেন, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন অধ্যাদেশ ১৯৮২, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন ১৯৯২ ও (সংশোধিত ২০১০) পর্যালোচনা করে মতামত হচ্ছে, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা এবং পরিচালনার কোন ধরনের এখতিয়ার চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নেই।  বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনকে ভবিষ্যতে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনার বিষয় নিয়ে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনকে কোন ধরনের চিঠি দেয়া সমীচীন হবেনা।

মহিউদ্দিনের পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বলেন, পূর্ণাঙ্গ রায়ে বিচারপতিদ্বয় যে অভিমত দিয়েছেন তাতে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনার আর কোন এখতিয়ার চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নেই।  বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডই অতীতের মতো এ দায়িত্ব পালন করবে।

‘চসিকের সম্পত্তিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা নিয়ে কোন বিরোধ থাকলে আদালত তা দেওয়ানি আদালতের মাধ্যমে নিষ্পত্তি করতে বলেছেন। ’

প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ড গঠনসহ বিভিন্ন বিষয়ে দিকনির্দেশনা দিয়ে ২০১৫ সালের ১৪ জুলাই চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনকে একটি চিঠি দেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মঞ্জুরি কমিশন।  বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোক্তা এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী গত বছরের ৯ ডিসেম্বর ওই চিঠি চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট পিটিশন (১২৮৯২/২০১৫) দাখিল করেন।

রিটের শুনানি শেষে হাইকোর্ট কেন মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) চিঠি অবৈধ ঘোষনা করা হবেনা এবং উদ্যোক্তা হিসেবে কেনো এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী কর্তৃক ট্রাস্ট বোর্ড গঠন, পরিচালনা পরিষদের উদ্যোক্তা হিসেবে তার সক্রিয় অংশগ্রহন নিশ্চিত করা হবেনা মর্মে রুল জারি করে।  রুলের জবাব দিতে হাইকোর্ট বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন, সিটি কর্পোরেশন, শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়কে আদেশ দিয়েছে।

ওই শুনানিতে অংশ নিয়ে চলতি বছরের ১২ জুন ইউজিসি তাদের চিঠি প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে আদালতে অবহিত করেন।  এরপর আদালত কিছু পর্যবেক্ষণ দিয়ে রিট নিষ্পত্তি করেন।  পর্যবেক্ষণসহ পূর্ণাঙ্গ রায় বুধবার (২৯ জুন) প্রকাশ হয়েছে।

অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনে জিতে তিন দফায় টানা ১৭ বছর চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়রের দায়িত্ব পালন করেছিলেন এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী।  মেয়র থাকার সময় ২০০২ সালে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করে মহিউদ্দিন ব্যাপক প্রশংসিত হন।  ১৩ বছরের পথচলায় প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় ইতোমধ্যে ‘গরীব মধ্যবিত্ত মেধাবী শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয়’ হিসেবে নিজের ভাবমূর্তি প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছে।

ন্যূনতম ভর্তি ফি এবং সেমিস্টার ফি দিয়ে মেধাবী ছাত্রছাত্রীরা প্রিমিয়ারে ভর্তি হতে পারেন।  প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদ, বিবিএ অনুষদের শিক্ষার মান দেশের যে কোন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে চেয়েও বেশি বলে জানেন শিক্ষা সংশ্লিষ্টরা।  দেশের অনেক মেধাবী বিচারক প্রিমিয়ারের আইন অনুষদ থেকে এলএলএম শেষ করেছেন।

২০০২ সাল থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত মহিউদ্দিনই উদ্যোক্তা হিসেবে প্রিমিয়ারের ট্রাস্টি বোর্ড গঠন করতেন।  চট্টগ্রামের শিক্ষাবিদ, বুদ্ধিজীবীরা থাকতেন ট্রাস্টি বোর্ডে।

২০১০ সালে এম মনজুর আলম মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর ওয়ার্ড কাউন্সিলর, চসিকের কর্মকর্তাদের দিয়ে ট্রাস্টি বোর্ড গঠন করেন যা ব্যাপক সমালোচনা কুড়ায়।  তবে ট্রাস্টি বোর্ডে সদস্য হিসেবে এবিএম মহিউদ্দিনকে চৌধুরীকেও রাখেন তিনি।  কার্যত ২০১৫ সালে আ জ ম নাছির উদ্দিন মেয়র নির্বাচিত হওয়ার আগ পর্যন্ত মহিউদ্দিনের তত্ত্বাবধানেই পরিচালিত হচ্ছিল প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়। এর উপাচার্য হিসেবে আছেন একুশে পদকপ্রাপ্ত বরেণ্য শিক্ষাবিদ ড.অনুপম সেন।

 

মতামত...