,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

বঙ্গবন্ধুর ছবি জালিয়াতির অভিযোগ এমপি লতিফের বিরুদ্ধে

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম,০৩ ফেব্রুয়ারি (বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম):: চট্টগ্রামের সেই এমপি এম এ লতিফ আবারও আলোচনায় এলেন । এবার বঙ্গবন্ধুর ছবি নিয়ে  জালিয়াতি করার অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। এর আগে তিনি জামায়াত থেকে হঠাৎ করে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে ও আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ গণবিচার’ নামের সংগঠনের কাজকর্ম নিয়ে আলোচনায় আসেন ।

গেল ৩০ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রাম সফর উপলক্ষে লতিফ এমপি বঙ্গবন্ধুর  ছবি সম্বলিত পোস্টার টাঙ্গান চট্টগ্রামের বিভিন্ন স্থানে । নিজের অবয়ব  ছবিতে বঙ্গবন্ধুর মুখ লাগিয়ে ফটোশপে তৈরি করা এই ফেস্টুন গুলোর বঙ্গবন্ধুর ছবি নিয়ে বিতর্ক উঠে । সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা এটি বঙ্গবন্ধুর ছবি নয় বলে দাবি করে । তাদের দাবি এম পি  লতিফ নিজের ছবিতে বঙ্গবন্ধুর মুখ লাগিয়ে ফটোশপে ফেক ছবি তৈরি করেছেন, যা জাতির পিতাকে অবমাননার শামিল।

লতিফের টাঙ্গানো  বঙ্গবন্ধুর নতুন এ ছবিতে দেখা গেছে, বঙ্গবন্ধুর পরনে লম্বা ঝুলের পাঞ্জাবি ও ঢোলা পায়জামা এবং পায়ে কালো স্নিকার জুতা। প্রত্যক্ষ দর্শীদের দাবি, এটি জাতির পিতার অবয়ব নয়! ছবিতে  দাঁড়ানোর ভঙ্গি মোটেও বঙ্গবন্ধুর নয়!

ছবির নিচে লেখা আছে- জনসংখ্যা আর নদ-নদী/বাংলাদেশের জীয়নকাঠি। তার নিচে লেখা- এম এ লতিফ এমপি।

এম পি লতিফ এ সব অভিযোগ অস্বীকার করে বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমকে  বলেন, বঙ্গবন্ধুর ছবি লাগিয়ে আমার বেনিফিট (লাভ) কী? প্রধানমন্ত্রীর সফরকালে আমার ছবি লাগালে আমি বেনিফিট পেতাম। সবাইতো লাভের জন্যই কাজ করে। অহেতুক বিতর্ক তৈরি করতে এসব কথা বলা হচ্ছে।

বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃতি প্রসঙ্গে জানতে চাইলে সুপ্রিম কোর্ট আইজীবী  বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমকে বলেন, এটি প্রতরণা , মানহানি ও তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা হতে পারে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর পরিবারের পক্ষ থেকে কিংবা যে কোনো নাগরিক সংক্ষুব্ধ হয়ে মামলা করতে পারেন। আমি যদি সংক্ষুব্ধ হই তাহলে আমিও মামলা করতে পারি। কারণ আমি মনে করি, বঙ্গবন্ধু ফাদার অব দ্য ন্যাশন। এর মধ্য দিয়ে আমাকেও আহত করা হয়েছে। তাহলে আমিও মামলা করতে পারি।

 

 

মতামত...