,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

বাঁশখালীতে ইউপি নির্বাচন সম্পন্ন:বিচ্ছিন্ন ঘটনায় গুলিবিদ্ধ ৫ আহত ১৫ আটক ৩

শাহ্ মুহাম্মদ শফিউল্লাহ্, বাঁশখালী, ২৫এপ্রিল, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে কয়েকটি কেন্দ্রে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের মধ্য দিয়ে নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। এ কেন্দ্র গুলোতে সংঘর্ষ ভয়াবহ রূপ নেওয়ার পূর্বেই আইন শৃংখলা বাহিনীর হস্তক্ষেপে তা নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। এছাড়া অন্যান্য কেন্দ্রে সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪ টায় পর্যন্ত ভোগ গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সূত্রমতে, বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রে আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টাকে কেন্দ্র করে ৬ নং কাথরিয়া ইউনিয়নের ৯ নং এবং ২ নং কেন্দ্রে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও গুলিবিনিময়ের ঘটনা ঘটেছে। এতে ৩ জন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ৫ জন আহত হয়েছে। গুলিবিদ্ধ ৩ জনকে চমেকে প্রেরণ করা হয়েছে। অপরাপর আহতরা স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে। এ ঘটনায় আহতদের মধ্যে আওয়ামীলীগ প্রার্থীর এক সমর্থক রয়েছে বলেও জানা যায়। অপরদিকে বেলা ১২টার দিকে কালীপুর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের একটি ভোট কেন্দ্রে প্রভাব বিস্তারের চেষ্টাকালে ৩ জনকে আটক করে পুলিশ।
দুপুর সোয়া ১২টার দিকে কাথারিয়া ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী জয়নাল আবেদীন ও আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নৌকা প্রতীকের ইবনে আমীনের সমর্থকদের মধ্যে সংঘটিত ওই ঘটনায় গুলিবিদ্ধ আহতরা হলেন- ৬নং ওয়ার্ডের ইবনে আমিনের পুত্র এরশাদ (৩০), ২নং ওয়ার্ডের মৃত আবুল হোসেনের পুত্র খোরশেদ (২৮), ২নং ওয়ার্ডের গোলাম কাদেরের কন্যা শামীমা আক্তার (১১), মৃত আবদুল আলিমের পুত্র জিল্লুর রহমান (৩৪), সরল ইউনিয়নের মিনজিরীতলার গ্রামের ছিদ্দিকুর রহমানের পুত্র শফিকুর রহমান (৩৮)। এছাড়াও আহতরা হলেন, চাম্বল ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের মৃত জাফর আলীর পুত্র আবদুল মতলব (৬৫), আবদুল গণির পুত্র সাহাব উদ্দিন (২৮), গুরুত্বর আহত বাঁশখালী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শেখেরখীলের আহতরা হলেন- রেজাউল করিম (২৮), আবদুন নুর (৩৮), মোঃ রাকিব (৮), শাহানা আক্তার (২৪), শীলকূপ ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের জানে আলম (৩৬)। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আশংকাজনকদের চমেক হাসপাতালে এবং অপরাপর আহতরা বাঁশখালী হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিল।
এদিকে দুপুরে সাড়ে ১২টার দিকে কাথারিয়া ইউনিয়নে আরেক দফা হামলায় ১,৬,৫,২ ও ৭ নং কেন্দ্রে পুলিশ ও বিজিবির সাথে চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ফাঁকা গুলি ছোঁড়ার ঘটনা ঘটে। এতে ২ জন আহত হয়েছে বলে জানাগেছে। সংঘর্ষ চলাকালীন এ কেন্দ্র গুলোতে ১০ থেকে ১৫ মিনিট ভোট গ্রহণ বন্ধ ছিল। পরে আবারও ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (সন্ধ্যা ৬ টা ৪৬ মিনিট) আওয়ামীলীগের মনোনীত ১১ জন ও বিএনপি’র মনোনীত ৩ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী এগিয়ে রয়েছে বলে জানা যায় এছাড়াও কেন্দ্র গুলোতে এখনো পর্যন্ত ভোট গণনা চলছিল।

মতামত...