,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

বাঁশখালীর উপকূলে চাষিরা লবণ মাঠ ব্যস্ত

salt-fild1বাঁশখালী প্রতিনিধি, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: বাঁশখালীর উপকূলের লবণ চাষিরা মাঠে নেমে পড়েছে। হাজার হাজার লবণ চাষি এখন পুরোদমে লবণ উৎপাদনে ব্যস্ত। বাঁশখালীর উপকূলীয় বড়ঘোনা, গন্ডামারা, ছনুয়া, মিনজিরীতলা, পুঁইছড়ি, সরল, শেখেরখীল, পশ্চিম মনকিচর, পশ্চিম চাম্বল ডেপুটিঘোনা এলাকার লবণ চাষিরা এখন সারাদিন লবণ মাঠ নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

বাঁশখালীর উপকূলের কয়েক বছর যাবত বহু জমি অনাবাদী হয়ে পড়া থাকলেও চলতি বছরে কোন জমি লবণ উৎপাদনের আওতার বাইরে থাকছে না।  লবণের বাজার বেশ চড়া ও আশানুরূপ মূল্য পাওয়ায় চাষিরা তাদের সাধ্যমত লবণ উৎপাদনে উথসাহী ।

 বাঁশখালীর উপকূলীয় কয়েক সহস্রাধিক লবণ চাষিরা বেশ লাভ করতে পারবে বলে ধারনা করছে । সরকারের কঠোর নজরদারির ফলে চোরাকারবারি সিন্ডিকেটের সদস্যরা বিদেশ থেকে লবণ আমদানি করতে না পারায় বর্তমানে দেশীয় লবণের দাম ন্যায্যমূল্যে বিক্রি হওয়ায় চাষিরা তাদের লবণের ন্যায্য মূল্য পাচ্ছে ।

বর্তমানে সরকার লবণ চাষিদের স্বার্থ সুরক্ষার জন্য বিদেশ থেকে লবণ আমদানি বন্ধ করে দেওয়ায় চাষিরা তাদের পুনঃ শ্রম এখন লবণ মাঠে দিয়ে যাচ্ছে। তাছাড়া বিগত বছরের বেশ কিছু লবণ এখনো বাঁশখালীর উপকূলীয় এলাকাগুলোতে মজুদ রয়েছে বলে লবণ উৎপাদনকারীরা। বাঁশখালীতে উৎপাদিত লবণগুলো বিশেষ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সারা দেশে রপ্তানি করে থাকে। বিশেষ করে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুঠির শিল্প কর্পোরেশন (বিসিক) বাঁশখালীর উপকূলীয় সরল এলাকায় তাদের নিজস্ব তদারকির মাধ্যমে লবণ উৎপাদন ও রপ্তানি করে থাকে।

বাঁশখালীর উপকূলীয় ছনুয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রেজাউল হক চৌধুরী বলেন, বর্তমানে ছনুয়া এলাকার কয়েক হাজার লবণ চাষি তাদের মাঠে সময় দিয়ে লবণ উৎপাদন শুরু করেছে। এবছর প্রাকৃতিক অবস্থা ভাল থাকায় এবং ন্যায্য মূল্য পাওয়ার আশায় চাষিরা শুরু থেকেই তাদের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। আশারাখি চাষিরা তাদের শ্রমের যথাযথ সুফল পাবে।

বাঁশখালীর গন্ডামারা এলাকার বিশিষ্ট লবণ চাষিরা জানান, গন্ডামারা-বড়ঘোনা লবণ উৎপাদনকারী সমবায় সমিতির মাধ্যমে প্রায় কয়েকশ কানি জমিতে ইতিমধ্যে লবণ উৎপাদন শুরু হয়ে গেছে।  বাঁশখালীতে যে লবণ উৎপাদন হয় তা যথাযথ ভাবে সংরক্ষণ করা হলে দেশের চাহিদা পূরণ করে বাহিরেও রপ্তানি করতে পারবে। বর্তমান সরকার তা কঠোর হস্তে দমন করায় বাঁশখালীর বর্তমানে অর্ধ লক্ষাধিক লবণ চাষি ন্যায্য মূল্য ও পরিশ্রমের যথাযথ মূল্য পাবে এই আশায় লবণ মাঠে রাতদিন পরিশ্রম করে যাচ্ছে।

মতামত...