,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

বাংলাদেশে হিন্দু সুরক্ষায় ভারতের হস্তক্ষেপ প্রশ্নে বিতর্ক

a

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ রানা দাশগুপ্ত বলছেন, ভারতের গণমাধ্যমে ভুলভাবে তার বক্তব্য তুলে ধরা হয়েছে। হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতা রানা দাশগুপ্ত হিন্দুদের সুরক্ষার জন্য ভারতের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন বলে যে খবর বেরিয়েছে সেটি নিয়ে তীব্র বিতর্ক শুরু হয়েছে।

rana das - pijosভারতের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়া বা পিটিআই-য়ের বরাত দিয়ে ভারত ও বাংলাদেশের কয়েকটি সংবাদপত্রে এ খবর বেরিয়েছে।

ভারতের অন্যতম শীর্ষ স্থানীয় সংবাদপত্র দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশের হিন্দুদের সুরক্ষার জন্য রানা দাশগুপ্ত ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

সেই প্রতিবেদনে রানা দাশ বলেন, ‘আমরা মনে করি, হিন্দু সংখ্যা গরিষ্ঠ দেশ হিসেবে ভারতের কিছু একটা করা উচিত। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উপর আমাদের অনেক আশা। বাংলাদেশের হিন্দুদের নিরাপত্তার জন্য তার (নরেন্দ্র মোদি) উচিত বিষয়টি বাংলাদেশ সরকারের কাছে তুলে ধরা।’

রানা দাসগুপ্ত প্রতিবেদনে বলেন, বাংলাদেশে হিন্দুরা ঝুঁকির মুখে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে আমাদের বড় আশা রয়েছে। অন্য আরেক নেতা পীযুষ বন্দোপাধ্যায় বলেন, এ অঞ্চলে ভারত একটি বড় শক্তিধর দেশ। প্রতিবেশী দেশে যখন হিন্দুদের নৃশংসভাবে জবাই করা হয়, ভারত তখন অলস বসে থাকতে পারে না।

কিন্তু এক সাক্ষাৎকারে রানা দাশগুপ্ত বলেন, ‘ভারতের হস্তক্ষেপ চেয়ে তিনি কোনো বক্তব্য দেননি।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের যে সংবিধান, এই সংবিধানেই বলা আছে – নাগরিকদের সুরক্ষা, নিরাপত্তা এটির দায়িত্ব হচ্ছে রাষ্ট্রের বা সরকারের। সেখান অপর কোনো রাষ্ট্রের বা রাষ্ট্রীয় নেতার কোনো ভূমিকা থাকতে পারে বলে আমাদের কাছে মনে হয়না।’

এদিকে রানা দাশগুপ্ত তাকে ভুলভাবে উদ্ধৃত করার দাবি করলেও পিটিআইয়ে’র দিল্লি ও কলকাতা অফিসের সাথে সংশ্লিস্ট কয়েকজন জানিয়েছেন বিষয়টিতে রানা দাশগুপ্ত আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো প্রতিবাদ পাঠায়নি।

পিটিআইয়ে’র কলকাতা এবং দিল্লী অফিসের সাথে সংশ্লিস্ট কয়েকজন জানান, রানা দাশগুপ্ত যেভাবে বলেছেন তাকে ঠিক সেভাবেই উদ্ধৃত করা হয়েছে।

  •  বিবিসি বাংলার প্রতিবেদন।

 

মতামত...