,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

বান্দরবানে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের শীতের কম্বল বিতরণ

bরিমন পালিত, বান্দরবান, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: বান্দরবানে শনিবার দুপুরে সদর উপজেলা চত্ত্বরে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প সুফলভোগী সদস্যদের মধ্যে শীত বস্ত বিতরন করা হয়েছে । শীত বস্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তব্যে পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেন, ভাগ্য বদলে দেয়না, নিজেকে বদলিয়ে নিতে হয়।বর্তমান সরকার দেশের হতদরিদ্র মানুষের ভাগ্য বদলাতে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প চালু করেছে।

সরকার দেশের হতদরিদ্র মানুষের জন্য ঢেউটিন,গরু-ছাগল ও সেবা মূল্যে নগদ অর্থ ঋণ দিচ্ছে। তিনি আরো বলেন,সঞ্চয়ী মনোভাব গড়ে তুলতে হবে। দেশি-বিদেশি বেসরকারি সংস্থাগুলোর চড়া সুদের বোঝা থেকে রক্ষা পেতে হতদরিদ্র পরিবারগুলোকে সুদ মুক্ত রাখা ও সঞ্চয়ী মনোভাব গড়ে তোলা হচ্ছে এই প্রকল্প মাধ্যমে।আর আত্মকর্মসংস্থানের সুবর্ন সুযোগ ও পরিবেশ তৈরি করেছে।

অনুষ্ঠানে সদর উপজেলার ৮৫টি হতদরিদ্র পরিবার সদস্যদের মধ্যে সেবা মূল্যে ১৫লাখ ৮০হাজার টাকা ঋণ বিতরণ করা হয়। তাছাড়াও ৮০বান্ড ঢেউ টিন,শীতের কম্বল আর মৎস্য জীবীদের মধ্যে পরিচয় পত্র স্মার্ট কার্ড বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে বান্দরবান সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজন চৌধুরী বলেন,বর্তমান সরকার দেশের হতদরিদ্রের সংখ্যা ২৫শতাংশ থেকে কমিয়ে ১২তে আনা হয়েছে। এই প্রকল্প দেশের দরিদ্র ও হতদরিদ্র মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করে দিয়েছে। অনেক দুর্গম এলাকার মানুষ যারা জীবনে কোন দিন ব্যাংকে গিয়ে একটি সঞ্চয়ী হিসাব খুলতে পারেনি,তারাই এই প্রকল্পের পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে দশ টাকায় সঞ্চয়ী হিসাব খুলে সঞ্চয় করছে তাদের উপার্জিত অর্থ দিয়ে।

জানা যায়,প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ দশটি উদ্যোগের মধ্যে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পটি প্রথম।২০০৯ সালে শুরু হওয়া এই প্রকল্পের সুফল পেয়ে পাহাড়ে অনেক হতদরিদ্র মানুষের আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হয়েছে। অভাব অনটনে বসবাসরত হতদরিদ্র মানুষের জীবন জীবিকায় পরিবর্তন ঘটেছে। বদলে যাচ্ছে পার্বত্যাঞ্চলের দূর্গম পাহাড়ি এলাকায় হতদরিদ্র মানুষের জীবন যাত্রা। প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ উদ্যোগ একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের মাধ্যমে ২০২১সালের মধ্যে বাংলাদেশে আর হতদরিদ্র থাকবেনা। বিশ্বে বাংলাদেশ একটি মধ্য আয়ের দেশ হিসেবে পরিচিতি লাভ করবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

মতামত...