,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

বিচারককে দুর্ব্যবহার, ৬আসামির বিরুদ্ধে মামলা

বিচারকের সঙ্গে দুর্ব্যবহার এবং অসযোগিতার অভিযোগ এনে চট্টগ্রামে তিনটি অভিজাত শপিং মলের ৬ কর্মকর্তা বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে চট্টগ্রামের একটি আদালতে। নরসিংদীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট চন্দন কুমার নাথের পক্ষে এ মামলাটি তার আত্মীয় অ্যাডভোকেট উপল কান্তি নাথ।

সোমবার বিকালে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম ফরিদ আলমের আদালতে অভিযোগ দায়ের পর আদালত তা নথিভুক্ত করে আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

আসামিরা হলেন, নগরীর জাকির হোসেন রোডে অবস্থিত খুলশী  মার্টের কর্মকর্তা সাকের হোসেন, নেজাম উদ্দিন, মারজাহান আলো, গোল পাহাড় মোড়ে অবস্থিত ‘স্বপ্ন’ সুপার শপের কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহাদাত, শাহ রিয়াজ এবং আফমি প্লাজার ‘আগোরা’র মোহাম্মদ সরোয়ার।

বাদি উপল কান্তি নাথ তার নিকট আত্মীয় ও আদালতকে নরসিংদীর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট চন্দন কান্তি নাথ গত ২২ নভেম্বর ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম আসার পথে তার ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের মাস্টার  ক্রেডিট কার্ডটি চুরি হয়ে যায়।
398
বিষয়টি জানার পর তিনি ব্যাংকে যোগাযোগ করলে তার এই কার্ড ব্যবহার করে চারটি সুপার শপ থেকে বাজার করার তথ্য জানতে পারেন বিচারক। এরপর বিচারক এ ব্যাপারে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নিয়ে উল্লিখিত তিনটিসহ চারটি প্রতিষ্ঠানে গিয়ে জানতে পারেন খুলশী মার্ট থেকে ৭ হাজার ৪২৯ টাকা, স্বপ্ন  থেকে ১০ হাজার ১২৭ টাকা, আগোরা থেকে ১০ হাজার ৩৩৪  ও জিইসি মোড়ের বাটা শো রুম থেকে ৩ হাজার ৪৭০ টাকার পণ্য কেনা হয়। তবে ক্রেডিট কার্ডের প্রকৃত মালিকের সই না মেলার পরও কেন পণ্য সামগ্রী বিক্রি করা হলো জানতে চান।

বাদীপক্ষের আইনজীবী ও চট্টগ্রাম আদালতের অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট নিখিল কুমার নাথ জানান, ভুলের বিষয়টি বুঝতে পেরে বাটার শো রুমে দায়িত্বরত কর্মকর্তারা ক্ষমা চাইলেও এই ব্যাপারে বিচারককে স্বপ্ন, আগোরা ও খুলশী মার্টের কর্মকর্তারা কোনো সন্তোষজনক জবাব না দিয়ে উল্টো বিচারক চন্দন কুমার নাথকে নানাভাবে নাজেহাল করেন। তাই তিনি নিকটাত্মীয় অ্যাডভোকেট উপল কান্তির মাধ্যমে আদালতের আশ্রয় নিয়েছেন। আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে সংশ্লিষ্ট থানার ওসিকে আসামিদের বিরুদ্ধে করা গ্রেফতারি পরোয়ানা তামিল করার আদেশ দেন।

মতামত...