,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

বিদ্যুৎ ষ্পৃষ্ট হয়ে নিহত আলমের মা’কে মেয়রের অনুদান প্রদান

aনিজস্ব প্রতিবেদক, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ চট্টগ্রাম,  চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের বিলবোর্ড অপসারন অভিযান চলাকালিন গত ৩ ফেব্রুয়ারি গভীর রাতে নাঈম এন্টারপ্রাইজের সামসুল আলম নামক এক কর্মচারী নগরীর এমইএস কলেজ সংলগ্ন এলাকায় ক্রেনের সাহায্যে বিলবোর্ড অপসারণের কাজে নিয়োজিত থাকা অবস্থায় বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যুবরণ করে। এ দুর্ঘটনার খবর অবহিত হয়ে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় নিহতের দাফন-কাফনের ব্যবস্থা করেন। পরে তাদের পরিবারের পুনর্বাসনে মেয়র প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহনের আশ্বাস প্রদান করে। মেয়রের সিদ্ধান্ত ও আশ্বাস অনুয়ায়ী ২৮ ফেব্রুয়ারি রবিবার, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন থেকে ৮০ হাজার টাকা এবং নাঈম এন্টারপ্রাইজের স্বত্ত্বাধিকারী হাজী নিজাম উদ্দিনর পক্ষথেকে ২০ হাজার টাকা সহ মোট ১ লক্ষ টাকা মৃত সামসুল আলম এর মাতা হালিমা খাতুনের হাতে তুলে দেন মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন। উল্লেখ্য যে, অনুদানের এই টাকাগুলো ফিক্স ডিপোজিট থাকবে, সেখান থেকে প্রাপ্ত লাভের অংশ সংসারের খরচে ব্যয় করা হবে। এ ছাড়াও মেয়র হালিমা খাতুনের এক ছেলেকে সিটি কর্পোরেশনে অস্থায়ী ভিত্তিতে চাকুরীতে নিয়োজিত করার সিদ্ধান্ত জানান। সিটি মেয়র মানবিক দৃষ্টিকোন থেকে  নিহত সামসুল আলম এর পরিবারকে পুনর্বাসনের এ উদ্যোগ বাস্তবায়ন করেন। এ সময় চসিক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মোহাম্মদ শফিউল আলম, কাউন্সিলর সালেহ আহমেদ চৌধুরী,  হাজী নিজাম উদ্দিন ও সহকারী প্রকৌশলী সুদীপ বসাক সহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

সিটি মেয়রের সাথে সীতাকুন্ড স্রাইন (তীর্থ) কমিটির সাক্ষাত

 

২৮ ফেব্রুয়ারি  রবিবার, দুপুরে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীনের সাথে তাঁর দপ্তরে সীতাকুন্ড স্রাইন (তীর্থ) কমিটির নেতৃবৃন্দ সৌজন্য সাক্ষাত করেন। সাক্ষাতে তারা ঐতিহ্যবাহী শিব চতুর্দশী উপলক্ষে আগামী ৬ মার্চ থেকে ৮ মার্চ পর্যন্ত ৩ দিনের সীতাকুন্ড চন্দ্রনাথ জাতীয় মহাতীর্থে অনুষ্ঠান সম্পর্কে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনকে অবহিত করেন এবং ঐতিহ্যবাহী শিব চতুর্দশী মেলার শুভ উদ্বোধনী কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির আসন অলংকৃত করতে আমন্ত্রণ জানান। তারা মেলায় পরিচ্ছন্ন, আলোকায়ন ও পানিয়জলের ব্যবস্থা করার জন্য মেয়রের সহযোগিতা কামনা করেন। সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন আমন্ত্রণ গ্রহন করেন এবং মেলার সার্বিক কর্মকান্ডে তাঁর সহযোগিতার আশ্বাস দেন। মেয়র বলেন, সীতাকুন্ড নগরীর বাহিরের এলাকা সত্তেও তিনি অতীতের ধারাবাহিকতাকে অটুট রাখবেন।

বৈঠকে স্রাইন কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট সাধনময় ভট্রাচার্য, সম্পাদক এডভোকেট সুখময় চক্রবর্তী, সদস্য প্রদীপ ভট্রাচার্য, এডভোকেট চন্দন তালুকদার, এডভোকেট চন্দন বিশ্বাস, অনিল চন্দ্র পাল, এডভোকেট লিটন কুমার গুহ, প্রকৌশলী সুদীপ বসাক, সজল দত্ত, শুভনন্দপুরী মহারাজ, দীপক ভট্রাচার্য, রাধাধর চক্রবর্তী ও এডভোকেট সুনীল সরকার।

 

ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবসের অনুষ্ঠানে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন

 

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, ডায়াবেটিস একটি জটিল রোগ। এ রোগ কিডনি ও চক্ষু সহ শরীরের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গগুলোকে তিলে তিলে ধ্বংস করে দেয়। স্থায়ীভাবে এ রোগের নিরাময় সম্ভব না হলেও নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়। মেয়র সচেতনতার সাথে ডায়াবেটিস রোগ নিয়ন্ত্রণের পরামর্শ দেন। জনাব আ জ ম নাছির উদ্দীন চট্টগ্রাম ডায়াবেটিক জেনারেল হাসপাতালকে মেডিকেল কলেজে উন্নিত করা এবং এ হাসপাতালের জন্য সরকারী অনুদান প্রদানের দাবীর প্রেক্ষিতে বলেন, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী ও দপ্তরে এ বিষয়ে ডিও লেটার প্রদান সহ সরাসরি যোগাযোগ করা হবে। মেয়র ডায়াবেটিক জেনারেল হাসপাতাল চত্তরটিকে সিসি ঢালাই করে চলাচলের উপযোগী করারও আশ্বাস দেন। ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস ২৮ ফেব্রুয়ারি উদ্যাপন উপলক্ষে চট্টগ্রাম ডায়াবেটিক জেনারেল হাসপাতাল আয়োজিত সুধি সমাবেশে প্রধান অতিথির ভাষনে মেয়র এ সব কথা বলেন। দিবসের কর্মসূচি অনুযায়ী মেয়র জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন এবং ডায়াবিটিক জেনারেল হাসপাতালের সভাপতি ডা. ছৈয়দুর রহমান চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাহাঙ্গীর চৌধুরী ডায়াবেটিক সমিতির পতাকা উত্তোলন করেন। পরে মেয়র ফেষ্টুন ও বেলুন উড়িয়ে ব্যালির শুভ উদ্বোধন করেন। সুধি সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি ডা. ছৈয়দুর রহমান চৌধুরী। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ হোসেন হিরন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম ডায়াবেটিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাহাঙ্গীর চৌধুরী। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করে সমিতির কোষাধ্যক্ষ মো. শাহাবউদ্দিন। অনুষ্ঠানে সমিতির নির্বাহী সদস্য মিসেস আবিদা মোস্তফা, এডভোকেট চন্দন তালুকদার, আলহাজ্ব শাহাজাদা মো. এনায়েত উল্লাহ খান, নিজাম উদ্দিন মাহমুদ হোসেন, মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ, করআইনজীবী জয়শান্ত বিকাশ বড়–য়া ও ডায়াবেটিক জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক ডা. নওশাদ আহমেদ খান, প্রিন্সিপাল নিউট্রিশন অফিসার হাসিনা আকতার লিপি সহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে ৪ জন আদর্শ ডায়াবেটিস রোগীকে সংবর্ধনা এবং ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। তারা হলো, হৃদয়রঞ্জন চক্রবর্তী, শওকত আলী, মিসেস নিগার সুলতানা ও নুর জাহান বেগম। সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন প্রত্যেকের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন।

 

জাতীয় ফুটবলার মসিহ সালাম এর মৃত্যুতে সিটি মেয়রের শোক

 

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ.জ.ম নাছির উদ্দীন জাতীয় ফুটবলার মসিহ সালাম এর অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। তিনি ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ খ্রি. রবিবার এক শোক বার্তায় মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন ও শোক সন্তপ্ত পরিবার পরিজনের প্রতি সমবেদনা জানান।

 

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের বই মেলার ১২তম দিবসে আলোচনা সভা

 

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন উপলক্ষে নগরী’র শহীদ মিনার ও মুসলিম ইনষ্টিটিউট হল প্রাঙ্গন জুড়ে আয়োজিত ১৩ দিন ব্যাপি বই মেলা’র ১২তম দিবস ২৮ ফেব্রুয়ারি রবিবার। আজ বই মেলা’র একুশ মঞ্চে বিকেল থেকে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করে পাঠানটুলী খান সাহেব সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও উত্তর  কাট্টলী সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়। পরে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ৩৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাজী নুরুল হক । বক্তব্য রাখেন ৩৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ হাবিবুল হক, উত্তর কাট্টলী সিটি কর্পোরেশন উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ আবুল কাশেম,শিক্ষিকা সুপ্রিয়া বড়–য়া।  মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা কর্মকর্তা সাইফুর রহমান, পাঠানটুলি খান সাহেব সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আবুল হোসেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবদুর রহিম। আলোচকগণ  পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসগুলোতে বাংলা ভাষা ও আঞ্চলিক ভাষার ডেস্ক খোলার  জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান এবং বিচারিক আদালতে উচ্চস্তর থেকে নিম্নস্তর পর্যন্ত সকল ক্ষেত্রে বাংলায় রায় লেখার আহবান জানান। পরে  ছড়া ও কবিতা পাঠের আসর অনুষ্ঠিত হয়।

২৯ ফেব্রুয়ারি  সোমবার চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের বই মেলায় পুরষ্কার বিতরণ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন। বিশেষ অতিথি থাকবেন চট্টগ্রাম ওয়াসা’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল্লাহ, ৩৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. জিয়াউল হক সুমন, ৪০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাজী মো. জয়নাল আবদীন, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিসেস আফরোজা কালাম, মিসেস লুৎফুন্নেসা দোভাষ বেবী। সভাপতিত্ব করবেন ৪১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ্ব ছালেহ আহমেদ চৌধুরী। বিকেল ৩ টা থেকে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করবেন কাপাসগোলা সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ।

প্রয়োজনে এক বেলা না খেয়ে সন্তানদের শিক্ষিত করতে হবে- মেয়র 

 

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, দারিদ্র নিরসন হলেই শিশুশ্রম বন্ধ হবে। তিনি বলেন, ক্ষুধা ও দারিদ্র পীড়িত পিতা মাতা তাদের সন্তানদের শিশু বয়স থেকেই শ্রমে নিয়োজিত করে  আর্থিক সুবিধা লাভের আশায়। মেয়র বলেন, বাংলাদেশ ধীরে ধীরে উন্নত হচ্ছে, বর্তমানে নিম্ন মধ্য আয়ের দেশে উন্নিত হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে এ ধারা অব্যাহত থাকলে বাংলাদেশ মধ্য আয়ের দেশ থেকে উন্নত দেশে পরিণত হবে। জনাব আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, সরকার প্রাথমিক শিক্ষা অবৈতনিক করে দিয়েছে, দশম শ্রেনী পর্যন্ত বিনামূল্যে পাঠ্য বই দিচ্ছে। শিক্ষা উপবৃত্তি চালু আছে। কন্যা শিশুদের ক্ষেত্রে শিক্ষার বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচী চালু আছে। সামাজিক বেষ্টনির আওতায় বিনামূল্যে খাদ্য সরবরাহ, কাজের বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচী, সরকারী খাস জমিতে ভূমিহীনদের পুনর্বাসন, বয়স্ক, প্রতিবন্ধী ও বিধবা ভাতা সহ স্বামী পরিত্যাক্তা ভাতার মাধ্যমে দরিদ্র  জনগোষ্টির ভাগ্যের পরিবর্তনে কাজ করছে সরকার। মেয়র বলেন, দরিদ্র ঘরের সন্তানদের পিতা মাতাদেরকে সচেতন হতে হবে। তাদের কষ্ট হলেও সন্তানদের লেখা পড়ার প্রতি মনোনিবেশ করতে বাধ্য করতে হবে। উচ্চ শিক্ষা অর্জনের সুযোগ সরকার করে দিচ্ছে। তিনি বলেন, আর্থিক সীমাবদ্ধতাকে জয় করে প্রয়োজনে এক বেলা না খেয়ে সন্তানদের শিক্ষিত করতে হবে। মেয়র বলেন, শিশুদের ভালমন্দ বোঝার বয়স হয় নাই। তাদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টির চেষ্টা সুফল আসবে না। সুফল আনতে হলে দরিদ্র পরিবার গুলোকে সচেতন করতে হবে। ২৮ ফেব্রুয়ারি রবিবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন কে বি আবদুচ ছত্তার মিলনায়তনে ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের শিশুশ্রম হ্রাসকরণ প্রকল্পের উদ্যোগে সিটি চাইল্ড কাউন্সিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এই কর্মসূচীতে অপারজেয় বাংলাদেশ ও ব্রাইট বাংলাদেশ ফোরাম সংযুক্ত ছিল। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্যানেল মেয়র নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, কাউন্সিলর সালেহ আহমেদ চৌধুরী, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবিদা আজাদ ও ফারজানা পারভিন। অনুষ্ঠানে ওয়ার্ড ভিশন বাংলাদেশ এর শিশুশ্রম হ্রাসকরণ প্রকল্পের প্রকল্প ব্যবস্থাপক রবার্ট কমল সরকার, ব্রাইট বাংলাদেশ ফোরামের প্রধান নির্বাহী উৎপল বড়–য়া, অপারাজেয় বাংলাদেশের শিশুশ্রম হ্রাস করণ প্রকল্প কর্মকর্তা মাহবুবুল আলম, সিটি চাইল্ড কাউন্সিলর চট্টগ্রাম এর সভাপতি ইশরাত জাহান ইশা সহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

বি এন আর/০০১৬০০২০২৮/০০০২০১/এস

 

মতামত...