,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

বিবাহিত যুবকরাই এখন মানিকছড়ির ছাত্রদলের কর্ণধার!বিলুপ্তির পর আকস্মিক কমিটি ঘোষণায় অসন্তোষ

cআবদুল মান্নান,মানিকছড়ি,বিডিনিউজ রিভিউজঃ মানিকছড়ি উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক কমিটির পদত্যাগ ও কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণার রেশ কাটতে না কাটতে বিবাহিতদের নাম অর্ন্তভূক্ত করেই গত ২৬ সেপ্টেম্বর উপজেলা ছাত্রদলের (আংশিক) কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। ঘোষিত কমিটিতে সভাপতি ও সাংগঠনিকসহ ৭জনই বিবাহিত!

জানা গেছে, মানিকছড়ি উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি গঠনকে কেন্দ্র দীর্ঘ ৫ বছর (প্রায়) বিএনপি’র নেতারা সমঝোতায় আসতে পারেনি। বিএনপি’র সভাপতি এম.এ. করিম ও সাধারণ সম্পাদক মো. এনামুল হক এনাম নিজেদের মতাদর্শ নেতা-কর্মীদের মাঝে সৃষ্ট গ্রুপিং ও দ্বন্দ্ব সুরাহা করতে ব্যর্থ হওয়ায় গত ৬ সেপ্টেম্বর জেলা ছাত্রদল কর্তৃক মানিকছড়ি ছাত্রদলের আহবায়ক কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়। কিন্তু এ ঘোষণা সর্ম্পকে আহবায়ক কমিটি অবগত হওয়ার আগেই এ কমিটির ১০ সদস্যের মধ্যে ৭ জন পদবি থেকে পদত্যাগ করেন। ফলে মানিকছড়ি ছাত্রদলে লেজে-গোবরে অবস্থা বিরাজ করে। এ নিয়ে আঞ্চলিক পত্রিকা ও অন-লাইন নিউজে সংবাদ প্রচারের পর ২৬ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় আকস্মিক জেলা ছাত্রদল কর্তৃক ১৫ সদস্য বিশিষ্ট মানিকছড়ি উপজেলা ছাত্রদলের (আংশিক) কমিটি গঠন করেন। ঘোষিত কমিটির ১৫ জনের মধ্যে ৭ জনই বিবাহিত যুবক! তবেই ২/৩ জন ছাড়া কেউই পড়ালেখার সাথে এ মূহূর্ত্বে সম্পৃক্ত নেই!
বিবাহিত ও পড়ালেখায় সম্পৃক্তহীন ব্যক্তি দ্বারা উপজেলা কমিটি গঠন করায় তৃণমূলে আবারও সে অবস্থা! যে লাউ সে কদু।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা নাম প্রকাশ না করার স্বার্থে বলেন, বিএনপি’র সেক্রেটারী মো. এনামুল হক এনাম নিজের বাড়ীর কাজের লোককে ছাত্র বানিয়েছে এবং দু’জন গৃহশিক্ষকসহ পড়ালেখার সম্পৃক্তহীন ছেলেদের নাম অর্ন্তভূক্ত করে যে কমিটি গঠন করেছে। তৃণমূলে এর বিস্ফোরণ শিগরীই ঘটবে। দেখার অপেক্ষা। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে সাবেক আহবায়ক কমিটির কেউই এ মূহূর্ত্বে মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।
ঘোষিত কমিটির বিবাহিতরা হলেন, ক্রমিক অনুযায়ী ১. সভাপতি মো. মহি উদ্দীন কিশোর,২-৩. সহ-সভাপতি মো. বেলাল হোসেন ও মো. হানিফ মিয়া, ৯. মো. আকতার হোসেন(যুগ্ন সম্পাদক), ১২. মো. আবদুর রাজ্জাক (সহ-সাধারণ সম্পাদক) ১৩. মনছুর আলম (সাংগঠনিক সম্পাদক),ও ১৫. সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মো. এমদাদুল হক খোকন। উল্লেখিত কমিটি সর্ম্পকে জানতে চাইলে উপজেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক মো.মজিবুল হক বাহার বলেন, সম্প্রতি বিলুপ্ত আহবায়ক কমিটি দীর্ঘ দিন অর্ন্তকোন্দল ও গ্রুপিং জড়িয়ে থেকে তারা কমিটি গঠনে ব্যর্থ হয়েছিল। যার কারণে তৃণমূলে ছাত্রদল ঝিমিয়ে পড়ে। ফলে বাধ্য হয়ে জেলা ছাত্রদল যে সমস্ত ছেলেরা দ্বন্দ্বে নেই,তাদেরকে দিয়ে আংশিক কমিটি গঠন করেছে। এয়াড়া যে সমস্ত সিনিয়র ছেলেরা বাদ পড়েছে, তাদেরকে যুবদলে যোগ্যতানুযায়ী পদায়ণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ।

মতামত...