,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

বিলবোর্ডের পর সাইনবোর্ড উচ্ছেদের পালা?

azm nasirনাছির মীর , বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম,চট্টগ্রাম  :  গ্রিন ও ক্লিন সিটি রুপান্তরের অংশ হিসাবে বিলবোর্ড উচ্ছেদের পর নগরীর বাহ্যিক রূপ দৃষ্টিনন্দনভাবে ফুটিয়ে তোলার জন্য নগরীতে এবার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও দোকানপাটের সাইনবোর্ডের ডিজাইনও ঠিক করে দেবে সিটি করপোরেশন । ট্রেড লাইসেন্স নবায়নের সময় সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ ব্যবসায়ীদের কাছে সাইনবোর্ডের জন্য একটি নির্দিষ্ট ডিজাইন সরবরাহ করবে। সেটি অনুসরণ করে ই সাইনবোর্ড লাগাতে হবে। নির্ধারিত ডিজাইনের বাইরে কেউ সাইনবোর্ড লাগাতে পারবে না। বিষয়টি নিয়ে ব্যবসায়ীদের সাথে মেয়রের আলাপ কালে তারাও মেয়রের এ উদ্যোগ কে  স্বাগত জানান।
মঙ্গলবার নগরীর দোকান মালিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সাথে নাগরিক সেবার বিষয়ে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের মতবিনিময়ের  সময় মেয়র নগরী থেকে বিলবোর্ড চিরতরে উচ্ছেদ হয়েছে উল্লেখ করে ব্যবসায়ীদের কাছে সাইনবোর্ডের ডিজাইন ঠিক করে দেওয়ার বিষয়টি তুলে ধরেন। মেয়র বলেন, দোকান প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড হতে হবে দৃষ্টিনন্দন। রাস্তার দু’ধারের দোকানের কোন মালামাল ফুটপাতে রাখা যাবে না। প্রতিটি দোকানকে সমান্তরালভাবে মালামাল সাজিয়ে ব্যবসা করতে হবে। হকারদের শৃঙ্খলার মধ্যে আনা হবে।
বৈঠকে দোকান মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ ট্রেড লাইসেন্সের ফি বেশি নির্ধারণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ তোলেন। মেয়র ব্যবসায়ীদের জানান, ট্রেড লাইসেন্স ফি কত হবে তা করপোরেশন নির্ধারণ করেনি, সেটি নির্ধারণ করে দিয়েছে সরকার। করপোরেশন সরকারের সহযোগী প্রতিষ্ঠান। ব্যবসায়ীরা নগরীর কিছু কিছু জায়গায় সন্ত্রাসীদের চাঁদাবাজির বিষয়ে মেয়রকে অবহিত করলে মেয়র সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পুলিশ কমিশনারকে নির্দেশ দেবেন বলে জানান।
সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী বলেন, অনেক দোকান মালিক আছেন তার প্রতিষ্ঠানের সামনে ফুটপাত দখল করে পণ্য রাখেন। এতে পথচারীদের হাঁটাচলা করা সম্ভব হয় না। মেয়র দোকান মালিকদের ফুটপথ দখল না করা এবং দোকানের বাইরে পণ্য না রাখার আহ্বান জানিয়েছেন। দোকানের ময়লা নালায় না ফেলে নির্দিষ্ট ডাস্টবিনে ফেলে চট্টগ্রামকে ক্লিন সিটি গড়তে ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা চেয়েছেন।
সাইনবোর্ডের ডিজাইন ঠিক করে দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে হাসনী বলেন, নগরীর সৌন্দর্য ফিরিয়ে আনার জন্য মেয়র বিলবোর্ড উচ্ছেদ করেছেন। একইভাবে দোকানপাটের সাইনবোর্ডগুলোও একটা শৃঙ্খলার মধ্যে এনে দৃষ্টিনন্দন করতে চান তিনি। এ জন্য সিটি করপোরেশন ট্রেড লাইসেন্স নবায়নের সময় ব্যবসায়ীদের সাইনবোর্ডের একটি নির্দিষ্ট ডিজাইন সরবরাহ করবে। সব সাইনবোর্ড হবে একই ধরনের। তবে বিষয়টি প্রাথমিক প্রক্রিয়ায় রয়েছে। ব্যবসায়ীদের সাথে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’
সাইনবোর্ডের নির্দিষ্ট ডিজাইন এর প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানতে চাইলে সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবদুর রহিম বলেন, ‘বর্তমানেও ট্রেড লাইসেন্স করার সময়ই সাইনবোর্ডের নমুনা করপোরেশন থেকে অনুমোদন করিয়ে নিতে হয়। নগরীকে নান্দনিকভাবে সাজিয়ে তোলার জন্য এখন সব সাইনবোর্ড একই ডিজাইনের করার জন্য উদ্যোগ নিয়েছেন মেয়র। এটি ব্যবসায়ীদের জন্য নতুন কোনো ব্যাপার নয়, কেবল একটি নির্দিষ্ট ডিজাইন অনুসরণ করে সাইনবোর্ড তৈরি করতে হবে।

 

বি এন আর/০০১৬০০২০২৩/০০০১৩৯/এন

 

মতামত...