,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

বিশ্বকাপে আজ আয়ার্ল্যান্ডের মুখোমুখি বাংলাদেশ‍

taigrনিজস্ব প্রতিবেদক, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ ধর্মশালা, আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ‘এ’ গ্রুপের বাছাইপর্বের ম্যাচে আজ আয়ার্ল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ‍।

 

ধর্মশালার হিমাচল প্রদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায়।

 

প্রথম ম্যাচে দুর্বল ওমানের কাছে অপ্রত্যাশিতভাবে হেরে গিয়ে এই ম্যাচের আগে আইরিশরা যেমন চাপে, তেমনি বাংলাদেশর দুজন বোলারের অ্যাকশন নিয়ে আইসিসি প্রশ্ন তোলার পর বাংলাদেশও অন্যরকম চাপের মুখে পড়ে গেছে।

 

তবে এ ম্যাচে জিততে পারলে বাংলাদেশের সুপার টেনে ওঠা অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যাবে। অন্যদিকে হারলে টুর্নামেন্ট থেকেই ছিটকে পড়বে আয়ারল্যান্ড।

 

তবে ধর্মশালায় শুক্রবার রাতে বৃষ্টির পূর্বাভাস আছে – এবং সে ক্ষেত্রে পয়েন্ট ভাগাভাগির সম্ভাবনা ম্যাচের আগে দু’দলকেই দুশ্চিন্তায় রেখেছে।

 

তাসকিন আহমেদ ও আরাফাত সানির বোলিং অ্যাকশন নিয়ে প্রশ্ন ওঠার পরও শুক্রবারের ম্যাচে এরা দুজনেই প্রথম এগারোতে থাকবেন বলে বাংলাদেশ দল সূত্রে জানা গেছে।

 

তার একটা কারণ যদি হয় বাংলাদেশ মনে করছে এদের অ্যাকশন নিয়ে কোনো সমস্যা নেই – তাহলে আর একটা বড় কারণ হল মুস্তাফিজুর রহমানের আঘাত এখনো পুরোপুরি সারেনি।

 

প্রায় চারদিন হতে চললো ধর্মশালায় পা রেখেছে বাংলাদেশ – কিন্তু দলের বোলিংয়ে প্রধান চমক মুস্তাফিজুর এখনো প্র্যাকটিসেই নামতে পারেননি।

 

এদিকে তাসকিন ও আরাফাতকে নিয়ে নতুন উদ্বেগ এসে ভর করলেও বাংলাদেশের কোচ চন্দিকা হাথুরুসিংহে অবশ্য দাবি করলেন দলের বোলারদের নিয়ে তিনি ভাবছেন না – বরং তার দুশ্চিন্তা দলের ব্যাটিং নিয়ে। আমাদের বোলাররা কিন্তু গত বেশ কয়েক মাস ধরেই দারুণ করছে, যদিও কিছুটা চিন্তা আছে ব্যাটসম্যানদের নিয়ে।

 

আমি বারবারই বলছি, আমাদের ব্যাটাররা যদি একসঙ্গে জ্বলে উঠতে পারে তাহলে এই মাঠে বড় রান করা সম্ভব। প্রথমে ব্যাট করে ওরা যদি সেটা করে দেখাতে পারে তাহলে কিন্তু আমরা প্রতিপক্ষকে চাপে ফেলে দিতে পারব – কারণ বোলিংটাই আমাদের প্রধান শক্তি।

 

ম্যাচে যারা গোড়াতে বিপক্ষকে চাপে ফেলতে পারবে, এগিয়ে থাকবে তারাই। আয়ারল্যান্ড যদিও প্রায় দিন দশেক আগেই এখানে পৌঁছে গেছে, তার পরেও আলাদা করে কোনো দলই বাড়তি অ্যাডভান্টেজ নিয়ে শুরু করবে না।

 

আয়ারল্যান্ড অবশ্য অ্যাডভান্টেজ দূরস্থান, রীতিমতো কোণঠাসা অবস্থা থেকে কিভাবে ঘুরে দাঁড়াবে সেই মরিয়া চেষ্টাতেই ব্যস্ত।

 

প্রথম ম্যাচেই অনভিজ্ঞ ওমানের বিরুদ্ধে দুই উইকেটে পরাজয়ে বিশ্বকাপে দলের সম্ভাবনা বিরাট হোঁচট খেয়েছে, আর বাংলাদেশের বিরুদ্ধে হারলেই তাদের টুর্নামেন্ট একরকম শেষ হয়ে যাবে।

 

তবে আইরিশ সহ-অধিনায়ক গেরি উইলসন বলছিলেন এরকম চাপের মুখেই তাদের সেরাটা বের হয়ে আসে এবং এমন নয় যে তাদের বাংলাদেশকে আগে হারানোর অভিজ্ঞতা নেই।

 

গেরি উইলসন বলেন, ২০০৯ সালের টিটোয়েন্টি বিশ্বকাপেই কিন্তু আমরা বাংলাদেশের বিরুদ্ধে জিতেছিলাম। তারও বেশ কয়েক বছর আগে ইংল্যান্ডের মাটিতেও আমরা ওদের হারিয়েছি।

 

বাংলাদেশ অবশ্যই দল হিসেবে দারুণ উন্নতি করেছে, কিন্তু বিশ্বকাপ বা ওরকম বড় আসরে আমাদেরও অনেক অঘটন ঘটানোর ইতিহাস আছে। তা ছাড়া যখনই দেখেছি আমাদের দেওয়ালে পিঠ ঠেকে যায়, তখনই দলের বেশ কিছু ক্রিকেটার রুখে দাঁড়ানোর ক্ষমতা রাখে।

 

বুধবার আমরা সত্যিই ভাল খেলিনি। শিশির পড়েছিল বা ওই জাতীয় অন্য কোনো অজুহাত দেব না। কিন্তু সামনে আমাদের অন্য লড়াই। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে আমাদের নিজেদের প্রমাণ করতেই হবে।

 

আয়ারল্যান্ডের এই একরোখা, কিছুই হারানোর নেই মানসিকতাটা যদি বাংলাদেশের জন্য সমস্যার কারণ হয় তাহলে আর একটা সমস্যা হলো রাতে ধর্মশালাতে বৃষ্টির সম্ভাবনা। কোনো কারণে ওই ম্যাচ পরিত্যক্ত হলে পয়েন্ট ভাগাভাগি হবে দুই দলের মধ্যে।

 

আর তার আগে বিকেলের ম্যাচে ওমান যদি নেদারল্যান্ডসকে হারাতে পারে তাহলে এই গ্রুপ থেকে পরের পর্বে যাওয়ার অঙ্কটা ভীষণই জটিল হয়ে পড়বে।

 

তার মানে শুধু তাসকিন-আরাফাত ঘটিত সমস্যাই নয়, পাহাড়ি এই শহরে আকাশের মেজাজমর্জিও বাংলাদেশ দলের কপালে ভাঁজ ফেলছে।

 

 

বি এন আর/০০১৬০০৩০০১০/০০০১৭১/পি

মতামত...