,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনের সুড়ঙ্গে ৪০ বছর ধরে বসবাস

indian-presidents-houseআন্তর্জাতিক ডেস্ক, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: বিগত ৪০ বছর ধরে ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনের সীমানার মধ্যেই বাস করছিলেন তারা। অথচ তাদের উপস্থিতি টের পায়নি কেউ।

না এটি কোন বলিউড থ্রিলারের ঘটনা নয়। এমনটাই ঘটে‌ছে নয়াদিল্লিতে অবস্থিত রাষ্ট্রপতি ভবনে।
শনিবার রাতে রাষ্ট্রপতি ভবনের পিছনে টহলরত একটি পি সি আর ভ্যানের এক পুলিশকর্মী দেখেন, পাঁচিল টপকে ঢুকছেন দু’জন। সঙ্গে সঙ্গে সকলকে সতর্ক করেন ওই পুলিশকর্মী। জঙ্গি হানার আশঙ্কায় শুরু হয়ে যায় তল্লাশি। শেষ পর্যন্ত জানা গেল একাধিক চোখ কপালে তুলে দেওয়ার মতো তথ্য।

যে ব্যক্তি পাঁচিল টপকে রাষ্ট্রপতি ভবনে ঢুকেছেন, তিনি কোন সন্ত্রাসবাদী নন। তিনি রাষ্ট্রপতি ভবনেরই ‘‌বাসিন্দা’‌। তবে রাষ্ট্রপতি ভবনে থাকার কোন অনুমতি তার নেই। তবু বিগত ৪০ বছর ধরে সেখানেই রয়ে গিয়েছেন ওই ব্যক্তি এবং তার বাবা।

তল্লাশি চালিয়ে রাষ্ট্রপতি ভবনের পিছনের জঙ্গলে একটি মাজারের খোঁজ পাওয়া যায়। তার পাশেই ছিল একটি রহস্যজনক সুড়ঙ্গ। সেই সুড়ঙ্গে থাকতেন গাজি নুরুল ইসলাম এবং মহম্মদ নুর। সম্পর্কে তারা বাবা এবং ছেলে। গাজি নুরুলের দাবি, তিনি চল্লিশ বছর ধরে ওই গুহায় বসবাস করছেন। গুহা সংলগ্ন মাজারে যে প্রণামী জমা হয়, সেটা দিয়েই দিন চালান তারা।

এদিকে এ ঘটনায় দু’জনকেই আটক করে দীর্ঘক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদ চালায় পুলিশ। গাজি নুরুল দাবি করেছেন, বাইরে যাওয়ার জন্য রাষ্ট্রপতি ভবনের পিছনের রাস্তা দিয়ে পাঁচিল টপকেই তারা যাতায়াত করেন। এদিকে পুলিশও স্বীকার করে নিয়েছে, রাষ্ট্রপতি ভবনের পিছনের জঙ্গলে যে একটি মাজার রয়েছে, সেটা তারা জানতই না। তবে জেরা করার পরে গাজি নুরুল ইসলাম এবং তার ছেলে মহম্মদ নুরকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ।

ভারতের আজকাল’র প্রতিবেদন।

মতামত...