,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

ভারতের সংসদে হামলার আশংকা

indian-jsআন্তর্জাতিক ডেস্ক, বিডিনিউজ রিভিউজঃ লাইন অব কন্ট্রোল (এলওসি) পেরিয়ে পাক শাসিত কাশ্মীরে গিয়ে ভারতীয় সেনার সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের বদলা নিতে এবার ভারতের সংসদে হামলার পরিকল্পনা করছে পাক মদদপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদ।

ভারতের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা এবং জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের গোয়েন্দা সূত্রে জানা যায়, জইশ-ই-মহম্মদের প্রধান মৌলানা মাসুদ আজাহারই ফের ভারতীয় সংসদে মারাত্মক হামলার ছক কষছে। যে কোনো মূল্যে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের বদলা নিতে এই জঙ্গি সংগঠনটিকে বার্তা দিয়েছে পাক গুপ্তচর সংস্থা ইন্টার সার্ভিসেস ইন্টেলিজেন্স (আএসআই)।

সংসদে হামলা চালানোর জন্য প্রস্তুতিও নিতে শুরু করেছে জঙ্গিরা। তবে কীভাবে জঙ্গিরা ওই হামলা চালাবে, সে বিষয়ে জানা যায়নি। সংসদে হামলা করতে জইশ যদি ব্যর্থ হয়, সেক্ষেত্রে দিল্লির সেক্রেটারিয়েট ভবন, অক্ষরধাম মন্দির, লোটাস টেম্পলেও হামলা হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। হামলাকারীরা তাতেও ব্যর্থ হলে পরবর্তী পদক্ষেপ হিসেবে বাজার, শপিংমলসহ জনবহুল এলাকায় এই হামলা চালাতে পারে।

বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই সংশ্লিষ্ট নিরাপত্তা এজেন্সিগুলোকে সতর্ক করা হয়েছে। পাশাপাশি হামলা ব্যর্থ করতে সব ধরনের পদক্ষেপও নিতে বলা হয়েছে। এমন একটা সময় এই জঙ্গি হামলার হুমকি বার্তা এল যখন ভারতে উৎসবের মরসুম চলছে এবং বাজার, শপিং মলসহ প্রতিটি জায়গা ভিড়ে ঠাসা থাকবে।

ভারতীয় গোয়েন্দারা এমনও জানাচ্ছেন যে, জইশ-ই-মহম্মদের স্প্লিন্টার গ্রুপ (শাখা সংগঠন) মৌলনা আবদুর রহমানের নেতৃত্বে জইসুল-হক-তানজিম দিল্লিতে হামলা চালাতে পারে।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৯ সালের ২৪ ডিসেম্বর ইন্ডিয়ান এয়ারলাইন্সের আইসি-৮১৪ বিমানকে অপহরণ করে আফগানিস্তানের কান্দাহারে নামানোর পেছনেও জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠে জইসুল-হক-তানজিম নামে জইশ-এর ওই শাখা সংগঠনটির বিরুদ্ধে।

উল্লেখ্য ভারতের সংসদে প্রথম হামলাটি হয় ২০০১ সালের ১৩ ডিসেম্বর। হামলাকারীরা জইশ-ই-মহম্মদ এবং লস্কর-ই-তৈবার সদস্য ছিল। হামলায় নিহত হয়েছিল ১৪ জন, এর মধ্যে হামলাকারী পাঁচ জঙ্গিও ছিল। হামলার সঙ্গে জড়িত থাকার দায়ে ২০১৩ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি আফজাল গুরুকে ফাঁসিতে ঝোলানো হয়।

চলতি বছরের জানুয়ারিতে পাঠানকোটে ভারতীয় বিমান ঘাঁটিতে হামলার অভিযোগে ইতিমধ্যে জইশ-ই-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজাহার এবং তার ভাই আবদুল রউফের বিরুদ্ধে নতুন করে রেড কর্নার নোটিশ জারি করেছে ইন্টারপোল।

মতামত...