,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

ভারতে ৬ মন্ত্রী ২৫ সচিবসহ প্রধানমন্ত্রীর ৩৫১ সফরসঙ্গী

বিশেষ সংবাদদাতা, ৭ এপ্রিল, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: দ্বিপাক্ষিক সরকারি সফর। এই নামেই ডাকা হচ্ছে শেখ হাসিনার ৭ থেকে ১০ এপ্রিল পর্যন্ত চার দিনের ভারত সফরকে। তবে এই সফর হতে যাচ্ছে ভ্রাতৃত্বের, আন্তরিকতার, সর্বোচ্চ মর্যাদার আর সর্বোপরি পারস্পরিক সহযোগিতার।

আজ শুক্রবার সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী ভিভিআইপি ফ্লাইট বিজি-১০৯৭ ঢাকা ছাড়বে। আর তা টানা প্রায় দুই ঘণ্টা উড়ে নয়াদিল্লির ভারতীয় বিমানবাহিনীর পালাম স্টেশনে অবতরণ করবে স্থানীয় সময় বেলা ১২টা ২৫ মিনিটে।

গুরুত্বপূর্ণ এই সফরে প্রধানমন্ত্রীর বহরটিও বেশ বড়। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এরইমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর এই দ্বিপাক্ষিক সফরের পূর্ণাঙ্গ কর্মসূচির পাশাপাশি সফরসঙ্গীদের তালিকাও প্রকাশ করেছে।

মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, ভারতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই সফরে সরকারের ছয় মন্ত্রী-উপদেষ্টা-প্রতিমন্ত্রী, সচিব ও সচিব পর্যায়ের ২৫ কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন বিভাগ থেকে অন্তত ৯৫ জন থাকছেন। এর বাইরে এই সফরে রয়েছেন আড়াইশ’রও বেশি ব্যবসায়ীর একটি বড়সড় প্রতিনিধি দল।

মন্ত্রিসভার ছয় সদস্য প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যাচ্ছেন। এরা হচ্ছেন- মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, পানিসম্পদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, প্রধানমন্ত্রীর অর্থনীতি বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

চারজন বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বকে দলের অন্তর্ভূক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী। এরা হচ্ছেন বাগেরহাট-১ এর সংসদসদস্য শেখ হেলাল উদ্দিন, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফর উল্লাহ, নজীব আহমেদ ও মানু মজুমদার।

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীনসহ ১৫ সদস্য সফরসঙ্গী হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে।

পররাষ্ট্রসচিব শহীদুল হক, মেরিটাইম বিষয়াবলী ইউনিটের সচিব রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব) মো. খুরশেদ আলম, রাষ্ট্রাচার প্রধান একেএম শহীদুল করিমসহ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এই সফরে থাকছেন নয় জন। তাদের সঙ্গে নয়াদিল্লিতে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী রয়েছেন।

বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী মো. আমিনুল ইসলাম, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমেদ খান, সশস্ত্র বাহিনীর প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার লে. জে. মো. মাহফুজুর রহমান, সড়ক ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এমএএন ছিদ্দিক, রেল সচিব ফিরোজ সালাহ উদ্দিন, তথ্য সচিব মরতুজা আহমদ, বিদ্যুৎ সচিব ড. আহমদ কায়কাউস, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সচিব সিরাজুল হক খান, জন নিরাপত্তা সচিব ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, নৌসচিব অশোক মাধব রায়, মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের সচিব মাহমুদ রেজা খান, জ্বালানি সচিব নাজিম উদ্দিন চৌধুরী, আইন সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক, বিটিআরসি চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ, ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষা সচিব আখতার হোসেন ভূঁইয়া, ভারপ্রাপ্ত তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব কাজী শফিকুল আজম ও ভারপ্রাপ্ত বাণিজ্য সচিব শুভাশীষ বসুও যাচ্ছেন সফরে।

এসএসএফ’র মহাপরিচালক মেজর জেনারেল সফিকুর রহমান ও প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্টের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জাহাঙ্গীর হারুনের নেতৃত্বে নিরাপত্তা দলে রয়েছেন মোট ২১ জন। যাদের মধ্যে ১৩ জন আগাম দল হিসেবে আগেই দিল্লি পৌঁছেছেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিমের নেতৃত্বে প্রেস ও মিডিয়া টিমে রয়েছেন ১৩ সদস্য। এরা হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিব নজরুল ইসলাম, সহকারী পরিচালক রোমানা শারমীন, বাংলাদেশ বেতারের সিরাজুল ইসলাম খান, বিটিভির আসিফুর রহমান ও রুবাইয়াত হাসান খান, বাসসের অনুপ কুমার খাস্তগীর, বাংলানিউজের মাহমুদ মেনন, বিডিনিউজের শেখ সুমন মাহবুব, ইউএনবি’র ফাহাদ ফেরদৌস, ফোকাস বাংলার ইয়াসিন কবির জয়, ডিএফপি’র লুৎফর রহমান ও পিআইডি’র সুমন দাস।

এর বাইরে বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যক্তিত্ব হিসেবে সফরে অংশ নিচ্ছেন দৈনিক সমকাল সম্পাদক গোলাম সারোয়ার, জাগরণ সম্পাদক আবেদ খান, বাসসের প্রধান সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, সংবাদ সম্পাদক আলতামাস কবীর, জনকণ্ঠের নির্বাহী সম্পাদক স্বদেশ রায় ও ইত্তেফাকের নির্বাহী সম্পাদক আশীস সৈকত।

এফবিসিসিআই’র সভাপতি আব্দুল মাতলুব আহমাদের নেতৃত্বে ২৫৭ জন রয়েছেন ব্যবসায়ী প্রতিনিধি দলে।

-বাংলা নিউজ24- এর প্রতিবেদন।

মতামত...