,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

হরতালে আজও অচল পার্বত্য চট্টগ্রাম

abnr ad 1আবদুল মান্নান, মানিকছড়ি (খাগড়াছড়ি)  সংবাদদাতা, বিডিনিউজ রিভিউজঃ পার্বত্য ভূমি বিরোধ নিস্পত্তি কমিশন আইন (সংশোধন) ২০১৬ বাতিলের দাবীতে ৩ পার্বত্য জেলায় বাঙ্গালী সংগঠনের উদ্যোগে টানা ৩৬ ঘন্টা হরতালে জনজীবন বিপর্যস্থ হয়ে পড়েছে। বাস-ট্রাকের পাশাপাশি মোটর সাইকেল, দোকান-পাট বন্ধ থাকায় জন-জীবনে নেমে এসেছে দূর্ভোগ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৭ সালে সম্পাদিত পার্বত্য চুক্তির আলোকে গঠিত পার্বত্য ভূমি বিরোধ নিস্পত্তি কমিশন আইন-২০০১। এতে ১জন অবসর প্রাপ্ত বিচারপতি কমিশনের চেয়ারম্যান, তিন পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, তিন সার্কেল চিফ, আঞ্চলিক পরিষদ চেয়ারম্যানের প্রতিনিধি ও বিভাগীয় কমিশনারের প্রতিনিধি নিয়ে ৯ সদস্যের এ পার্বত্য ভূমি বিরোধ নিস্পত্তি কমিশন।গত ১ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্টিত মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে ভেটিং সাপেক্ষে ‘পার্বত্য ভূমি বিরোধ নিস্পত্তি কমিশন (সংশোধন)আইন, ২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগতভাবে অনুমোদন দেওয়া হয়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে পার্বত্যাঞ্চলে বসবাসরত বাঙ্গালী জনগোষ্টির মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। ফলে এখানকার বাঙ্গালী জনগোষ্টির প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠনগুলো গত ১ আগস্ট থেকেই বিক্ষোভ মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচী পালন করে আসছে। পূর্বঘোষিত বুধবারের হরতাল শেষ হতে না হতেই ওই আইনটি অধ্যাদেশ (গেজেট) আকারে প্রকাশের প্রতিবাদে এ অঞ্চলের আন্দোলনরত বাঙ্গালী সংগঠন, পার্বত্য নাগরিক পরিষদ, পার্বত্য গণ-পরিষদ, পার্বত্য সমধিকার আন্দোলন পরিষদ, পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ, পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র ঐক্য পরিষদ আহুত হরতাল একদিন বাড়িয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত বৃদ্ধি করে। ফলে আজ সকাল থেকেই পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটি, বান্দরবান ও খাগড়াছড়ি তৃণমূলে হরতাল সমর্থনকারী পিকেটারদের পিকেটিং এর কারণে সকল প্রকার যান-বাহন চলাচল বন্ধসহ জেলা সদর এবং বাঙ্গালী অধ্যুষিত জনপদ মাটিরাঙ্গায় ব্যবসায়ীরা দোকান-পাট বন্ধ রেখেছে। ফলে এখানকার জনজীবনে চরম দূর্ভোগ নেমে আসে। হরতালের কারণে পার্বত্য জেলার সাথে সমতল জেলার যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে। সড়কে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা টহল জোরদার করা হয়েছে।
এদিকে বঙ্গোপসাগরে লঘু চাপ থাকার কারণে গত দু’দিন ধরে অঝোরে বৃষ্টি ঝড়ছে। ফলে জনদূর্ভোগের মাত্রা আরো বেড়েছে। সকাল থেকেই পার্বত্য জেলা সদরের পাশাপাশি বাঙ্গালী অধ্যুষিত জনপদে হরতাল আহব্বানকারী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা বৃষ্টি উপেক্ষা করে রাস্তায় পিকেটিং করছে। চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি সড়কের শতাধিক পয়েন্টে পিকেটিং চলছে। সকালে সাড়ে ৮টার দিকে মানিকছড়ির গবামারা এলাকায় সড়কে পিকেটিং কালে সেনাবাহিনীর একটি টহল দল পিকেটারদের ধাওয়া করলে পিকেটাররা ছত্রবঙ্গ হয়ে যায়। পরে আবার পিকেটারা রাস্তায় নেমে পিকেটিং জোরদার করে।
মানিকছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবদুর রকিব জানান, ২য় দিনে হরতালকে ঘিরে আইন-শৃংখলা নিয়ন্ত্রণে রাখতে রাস্তার মোড়ে মোড়ে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

মতামত...