,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

মন্ত্রী-সাংসদদের প্রচারের সুযোগ চায় আ. লীগ

পৌরসভা নির্বাচনে সাংসদদের প্রচারের সুযোগ রাখার জন্য নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) চিঠি দেবে আওয়ামী লীগ।  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে দলের কার্যনির্বাহী সংসদ ও সংসদীয় বোর্ডের জরুরি সভায় গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বৈঠকে পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী মনোনয়নের পদ্ধতিও চূড়ান্ত করা হয়।

দলের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত রুদ্ধদ্বার এই সভায় দলের জ্যেষ্ঠ ও কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে উপস্থিত একাধিক নেতা সভার এ সিদ্ধান্ত সম্পর্কে জানান।
পৌরসভা নির্বাচনের আচরণবিধিতে বলা আছে—প্রধানমন্ত্রী, সংসদের স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার, মন্ত্রী, চিফ হুইপ, বিরোধীদলীয় নেতা, সংসদ উপনেতা, বিরোধীদলীয় উপনেতা, প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রী, হুইপ বা তাঁদের সমমর্যাদার কোনো ব্যক্তি, সিটি করপোরেশনের মেয়র ও সংসদ সদস্যরা নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিতে পারবেন না। তবে এঁদের কেউ কোনো নির্বাচনী এলাকার ভোটার হলে ভোট দিতে ভোটকেন্দ্রে যেতে পারবেন।
বৈঠকে উপস্থিত একাধিক নেতা পরে প্রথম আলোকে বলেন, এই আচরণবিধির বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন অন্তত ৮-১০ জন মন্ত্রী, সাংসদ ও কেন্দ্রীয় নেতা। তাঁরা বলেন, নির্বাচন হবে দলীয়, কিন্তু আচরণবিধি করা হয়েছে নির্দলীয় নির্বাচনের মতো, যা মেনে নেওয়া যায় না। অনেক মন্ত্রী-সাংসদ জেলা আওয়ামী লীগের পদে আছেন। তাঁদের যেতে না দেওয়া অন্যায়। পরে সিদ্ধান্ত হয়, সাংসদদের প্রচারের সুযোগ দেওয়ার দাবি জানিয়ে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে কমিশনে একটি চিঠি দেওয়া হবে।

মতামত...