,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

মানিকগঞ্জে ভাগ্নের হাতে ২মামা খুন

111a  মানিকগঞ্জ সংবাদ দাতা, বিডি নিউজ রিভিউজ দতকমঃ  মানিকগঞ্জের সিংগাইর সদর ইউনিয়নের গোবিন্ধল উত্তর পাড়া গ্রামে আজ রোববার সকালে জমি সংক্রান্ত ও টাকা পয়সা লেনদেনের জের ধরে ভাগ্নেদের হাতে দুই মামা খুন হয়েছেন। নিহতরা হলেন- ওই গ্রামের মৃত দিরগজ মোল্লার দুই পুত্র টেনডল (৫৬) ও তার চাচাতো ভাই রহিম মোল্লার পুত্র আব্দুল আজিজ (৫০)। আহত হয়েছেন আরো তিনজন।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, গোবিন্ধল গ্রামের মৃত দিরগজ মোল্লার কন্যা হাসনা বেগম দীর্ঘদিন বাহরাইন থাকার পর গত ৪/৫ মাস আগে সেখানে মারা যান। হাসনার রেখে যাওয়া অর্থ ও জমি তার বড় বোন রাজিয়ার স্বামী সামছুল ও পুত্র জাহিদ এবং রশিদ ও জসিম ভোগ করতে থাকেন। হাসিনার অপর তিন ভাই টেনডল মোল্লা, করিম মোল্লা, অহেদ মোল্লা ও বোন হেলেনা ওই সম্পত্তি ওয়ারিশ হিসেবে দাবি করেন। কিন্তু তার বোন জামাই সামছুল ও তার পুত্ররা ওই সম্পত্তি আত্মসাতের পায়তারা করে আসছিলেন। এ নিয়ে বিরোধ দেখা দিলে দফায় দফায় সালিশ বৈঠক হয়। সর্বশেষ থানায় সালিশ বৈঠকে সাড়ে তিন লাখ টাকা সামছুলের পক্ষ থেকে দাবিদার তিন ভাই এক বোনকে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। পুলিশ সদস্যদের এই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গত ১৯ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় স্থানীয় জামটি মার্কেটের নূরুল ইসলামের চায়ের দোকানে নিহতদের ওপর হামলা চালায় সামছুল ও তার পুত্রগণ। এ বিষয় নিয়ে আজ রোববার সকাল ৮টার দিকে সামছুলের বাড়িতে মীসাংসার জন্য একত্রিত হন টেনডলরা। এ সময় সামছুলের পুত্র জাহিদ, জসিম, রশিদ হামলা চালায় টেনডল, আজিজ, করিম, রমজান ও আলামিনের ওপর। প্রথমে তারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম ও পরে বল্লম দিয়ে একেরপর এক আঘাত করতে থাকে। এতে ঘটনাস্থলেই টেনডল মোল্লা ও আজিজ মোল্লা মারা যান। আহত হন তিনজন। গুরুতর আহত করিম মোল্লাকে এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মুমূর্ষ অবস্থায় ভর্তি করা হয়েছে। অপর দুজন রমজান (২৭) ও টেনডলের পুত্র আলামিনকে (১৬) সিংগাইর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতদের পরিবারের দাবি, সামছুল ও তার পুত্ররা তাদের বাড়িতে ডেকে নিয়ে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি জানিয়েছেন, এ হত্যাকাণ্ডে সামছুলের পরিবারের লোকজন ছাড়াও তার পুত্র জসিমের শ্বশুর বাড়ির লোকজন প্রতিবেশী রশিদ, সিদ্দিক, জিয়াউদ্দিনসহ ১৫/২০ জন অংশ নিয়েছে। সিংগাইর সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দেওয়ান মাহবুবুর রহমান মিঠু বলেন, মৃত হাসিনার রেখে যাওয়া সম্পত্তি নিয়ে একাধিক সালিশ বৈঠকে মীমাংসা না হওয়ায় এ হত্যাকাণ্ড সংঘঠিত হয়েছে। এদিকে লোমহর্ষক জোড়া খুনের ঘটনায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। নিহতের পরিবারে চলছে শোকের মাতম। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ ও র‌্যাব মোতায়েন করা হয়েছে। সিংগাইর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ জাহিদুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মৌসুমী সরকার রাখীসহ পুলিশের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ ব্যাপারে সিংগাইর থানার ওসি সৈয়দুজ্জামান বলেন, একপক্ষের অভিযোগের ভিত্তিতে থানায় মীমাংসা করে দেয়া হয়েছিল। সে মীমাংসা সামছুল পক্ষ মেনে না নিয়ে এ হত্যাকাণ্ড ঘটায়। নিহতদের লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছিল। জড়িত কেউ গ্রেফতার হয়নি। মানিকগঞ্জের এএসপি জাকির হোসেন জানান, ঘটনাস্থল থেকে দুজনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার পরপরই হামলাকারীরা পালিয়ে গেছে। ঘটনাস্থল থেকে লাঠি, বল্লম ও দা জব্দ করা হয়েছে। আর জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা

 

বি এন আর/০০১৬০০২০২০/০০১১৪/বি

মতামত...