,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

মুক্তিযুদ্ধ বাঙালির হৃদয়ে প্রতিদিনের সংকল্প চিত্রঃ মেয়র

aনিজস্ব প্রতিবেদক,বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ চট্টগ্রাম, বেগম জিয়া ইতিহাসের পাঠ গ্রহণ করেন না মন্তব্য করে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, তিনি  ইতিহাসের উল্টোযাত্রা ঘটাতে চান। এটা করতে গিয়ে তিনি ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হবেন।

শুক্রবার (২২ এপ্রিল) বিকেলে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) কেবি আবদুচ ছত্তার মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলা শাখার মুক্তিযোদ্ধা ও সাহসিকা জননী সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এসব কথা বলেন।

এবছর মুক্তিযোদ্ধা ও সাহসিকা জননী সম্মাননা পেয়েছেন শামসুন্নাহর দেওয়ান (মরনোত্তর), বেগম দিল আফরোজ, প্রফেসর হান্নানা বেগম, হাসিনা মান্নান,মুক্তিযোদ্ধা মরহুম শেখ জমির আহমেদ (মরণোত্তর), মো. আবু হোসাইন, বীর মুক্তিযোদ্ধা গৌরী শংকর চৌধুরী,বীর মুক্তিযোদ্ধা কিরণ লাল আচার্য, মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক তপতী সেনগুপ্তা ও বীর মুক্তিযোদ্ধা পঞ্চানন চৌধুরী।

এ ছাড়া কৃতী সম্মাননা পেয়েছেন প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক, আকবর শাহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সদীপ কুমার দাশ, ডা. মুহাম্মদ জসিম উদ্দিন, প্রকৌশলী সুদীপ বসাক ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য কেএম শহিদুল কাউসার।  মেয়র তাদের হাতে সম্মাননাপত্র তুলে দেন।

aমেয়র বলেন, মুক্তিযুদ্ধ কোনো গল্পগাথা নয়, বাঙালির হৃদয়ে প্রতিদিনের সংকল্প চিত্র।  আমি চাই চট্টগ্রাম নগরী পরিচ্ছন্ন ও সবুজাভ হোক-আমার এই আকাঙ্ক্ষা পরিপূর্ণ করতে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সব শক্তি ও সংগঠনের সাথে হাত মেলাতে চাই।

মুক্তিযোদ্ধাদের যথাযথ সম্মান এবং তাদের পোষ্যদের অবশ্যই যথাকর্মে তথা নিয়োগপ্রাপ্ত হবেন ঘোষণা দিয়ে মেয়র বলেন, এক্ষেত্রে স্বচ্ছতা কাম্য।  বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ একটি কিংবদন্তি তুল্য মিথ।  জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের আহ্বানে নিরস্ত্র বাঙালি অস্ত্র তুলে নিতে বাধ্য হয়ে মরণ-সাগরে ঝাঁপ দিয়ে স্বাধীনতা ছিনিয়ে এনেছিল।

তিনি বাংলাদেশকে উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির রোল মডেল হিসেবে অভিহিত করে বলেন, কৃষি উৎপাদনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ পৃথিবীর বিস্ময়। বিদ্যুৎ উৎপাদনে ১৪ হাজার মেগাওয়াট ছাড়িয়ে গেছে এবং অচিরেই ২০ হাজার মেগাওয়াটে পৌঁছে যাবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জাতীয় পরিষদের সদস্য অ্যাডভোকেট আনোয়ারুল কবির চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশ আজ ১২টি মানবিক সূচকে ভারতের চেয়ে এগিয়ে আছে।  ক্ষুধা ও দারিদ্র্য মুক্তির লড়াইয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুরোভাগে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। বাংলাদেশ আজ কেউ না খেয়ে নেই। এই প্রাপ্তি ও অর্জনকে ধরে রাখতে পারলে বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে মধ্য আয়ের দেশে পরিণত হবে।

বিশেষ অতিথি মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম জেলার ইউনিট কমান্ডার মো. সাহাবউদ্দিন বলেন, সুশৃঙ্খল জাতি গঠন উন্নয়নের পূর্বশর্ত।  আইনশৃঙ্খলার প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধা সমাজের মর্যাদা বাড়ায়।  সবাইকে এই সত্য অন্তর দিয়ে উপলব্ধি করতে হবে।

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলার সহ-সভাপতি ও চসিক কাউন্সিলর এইচএম সোহেলের সভাপতিত্বে ও সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলমের সঞ্চালনায় সম্মাননা স্মারক প্রদান অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন সম্মাননা স্মারক প্রদান উপ কমিটির সদস্যসচিব লিটন রায় চৌধুরী।

বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য হাসিনা মান্নান, এফএফ গ্রুপ কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরু বাঙালি,চসিকের প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলা সভাপতি অনুপ বিশ্বাস, প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক, নগর যুবলীগের সদস্য সুমন দেবনাথ,প্রকৌশলী সুদীপ বসাক, সংস্কৃতিকর্মী নিজামুল ইসলাম শরাফী, নজরুল মোস্তাফিজ, মাঈনুল ইসলাম, সুদীব দাশ অপু প্রমুখ।

 

মতামত...