,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের জন্য গৃহ নির্মাণের আশ্বাস মেয়রের

নিজস্ব প্রতিবেদক,  বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃচট্টগ্রাম,  বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিট কমান্ডের বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে ২৩ মার্চ  বুধবার বিকেলে মতবিনিময় করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন।

মতবিনিময়কালে কমান্ডার মোজাফফর আহমদ আবাসন নির্মাণ সহ পূনর্বাসনের জন্য অস্বচ্ছল, মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধা ৫০ জনের একটি তালিকা সিটি মেয়রের নিকট হস্তান্তর করেন। এসময় তারা মুক্তিযুদ্ধের গুরুত্বপূর্ণ স্মৃতি সমূহ সংরক্ষণ এবং জাতীয় স্মৃতি সৌধের আদলে চট্টগ্রামে স্মৃতি সৌধ নির্মানেরও দাবী জানান। মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মতবিনিময়কালে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন অস্বচ্ছল, মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধা ৫০ পরিবারের প্রদেয় তালিকার উপর ভিত্তি করে ৫ ধাপে ৫০ পঞ্চাশ পরিবারের জন্য গৃহ নির্মাণ করে তাদের পুনর্বাসন করার ঘোষনা দেন। তিনি বলেন, তাদের জায়গা পরিমাপ ও ডিজাইন করে ঘর তৈরী করে দেয়া হবে। মেয়র বলেন, সিটি কর্পোরেশন নাগরিক সেবায় নিয়োজিত একটি প্রতিষ্ঠান। মেয়র বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধারা দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান। মহান মুক্তিযুদ্ধে জীবনবাজী রেখে অধিকাংশ গরীব ঘরের যুবকেরা দেশপ্রেমে বলিয়ান হয়ে যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ে ছিল। মুক্তিযোদ্ধাদের রক্তের উপর প্রতিষ্ঠিত স্বাধীন বাংলাদেশে মুক্তিযোদ্ধা’রা ১৯৭৫ থেকে ১৯৯৬ পর্যন্ত চরম অবহেলার মধ্যে ছিল। জননেত্রী শেখ হাসিনা’র সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের মর্যাদার আসনে সমাসীন করেছে। তিনি বলেন, মৃত্যুর পর মুক্তিযোদ্ধাদের রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন, সম্মানিভাতা প্রদান, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও নাতি-নাতনিদের চাকুরী’তে কোটা সংরক্ষণ সহ নানামূখী কল্যানে দায়িত্ব পালন করছে সরকার। জনাব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, চট্টগ্রামের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ফিরিয়ে আনা হয়েছে, বিলবোর্ড উচ্ছেদ করে নাগরিক প্রত্যাশা পুরন করা হয়েছে। তিনি বলেন, আবর্জনা অপসারনে নতুন সিষ্টেম চালু করা হচ্ছে। আগামী ৬ মাসের মধ্যে ৪১ টি ওয়ার্ডে ডোর টু ডোর আবর্জনা সংগ্রহ কার্যক্রম চালু হবে। এ সিষ্টেম বাস্তবায়নে বিন, ভ্যানগাড়ী ও লোকবল নিয়োজিত করা হবে। মেয়র বলেন, দু’বছরের মধ্যে নগরবাসী দৃশ্যমান পরিবর্তন দেখতে পাবে। তিনি নাগরিক প্রত্যাশা পূরনে বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন। মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন আবু সাঈদ সর্দার, নুর উদ্দিন চৌধুরী, শেখ মাহমুদ ইসহাক, জাহাঙ্গীর চৌধুরী, সাধন চন্দ্র বিশ্বাস, এফ আকবর খান, খোরশেদ আলম (যুদ্ধাহত), রফিকুল ইসলাম, রুরেন্দ্র নাথ সেন, দোস্ত মোহাম্মদ, কুতুব উদ্দিন চৌধুরী, কামরুল আলম বতু, হাজী জাফর আহমদ, হাজী মোহাম্মদ ইউনুছ, সলিম উল্ল্যাহ, হাজী ইউনুচ সরকার,আবদুল মান্নান, এমরান গাজী, ফরিদ খান বাঘা, অনারারী ক্যাপ্টেন সাবের আহমদ। মতবিনিময় সভায় মুক্তিযোদ্ধাদের বিধবা স্ত্রীরা উপস্থিত ছিলেন।

 

বি এন আর/০০১৬০০৩০০২৩/০০০৩৯০/এস

মতামত...