,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

মেয়র এর সাথে ক্যাবের বাজার মনিটরিং ও নিয়ন্ত্রনে মতবিনিময় ও স্মারকলিপি প্রদান

aনিজস্ব প্রতিবেদক, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ চট্টগ্রাম, কনজুমারস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) এর নেতৃবৃন্দ ৩ মে মঙ্গলবার, দুপুরে নগর ভবনে কে বি আবদুচ ছত্তার মিলনায়তনে সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন এর সাথে মতবিনিময় করেন। মতবিনিময়কালে তারা সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন এর নিকট ১৬ দফা প্রস্তাবনার একখানা স্মারকলিপি হস্তান্তর করেন। সিটি মেয়র স্মারকলিপি গ্রহণ করে ১৬ দফার প্রতিটি দফা পড়ে পড়ে সিটি কর্পোরেশনের নিয়ন্ত্রিত বিষয়গুলোকে কার্যকর করার আশ্বাস দেন। এ সময় সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, নগরবাসীর প্রদেয় হোল্ডিং ট্যাক্সের উপর ভিত্তি করে নাগরিক সেবা দেয়া হয়। সরকারী বিধি বিধানের আওতায় প্রতি ৫ বছর অন্তর অন্তর পৌরকর পুন:মূল্যায়নের সুযোগ রাখা হয়েছে। তিনি বলেন, ১৯৮৫ সনের গেজেট মূলে আজোবধি ১৭% ভাগ পৌরকর চলমান। এ সীমা অতিক্রম করে বাড়তি কর ধার্য করার এখতিয়ার সিটি কর্পোরেশন সংরক্ষন করেনা। তবে প্রতি বছর স্থাপনা বাড়ছে, হোল্ডিং বাড়ছে, বর্ধিত স্থাপনা ও নতুন হোল্ডারদেরও মূল্যায়ন আইনের আওতায়ই পুনঃমূল্যালয়ন করা হয়। এ প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, ১ তলা ভবন, ১০ তলা হলে পৌরকর বৃদ্ধি পাওয়াই স্বাভাবিক। এ ক্ষেত্রে বিভ্রান্তি ছড়ানো কতটুকু যুক্তি যুক্ত- তা বিচারের ভার নগরবাসীর উপর। সিটি মেয়র বলেন, ভোক্তা সাধারণ সচেতন হলে খাদ্যে ভেজাল দেয়া ও ওজনে কম দেয়ার মত অপরাধ ধীরে ধীরে কমে যাবে। তিনি বলেন, পবিত্র রমজানে বাজার মনিটরিং করার জন্য স্থায়ী কমিটি দায়িত্ব পালন করবে। মেয়র বলেন, খাদ্যে ভেজাল ও নকল রোধ, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রন, ভোক্তা স্বার্থ সংরক্ষন সহ ভোক্তাদের স্বার্থে চসিক যথাযথ ভাবে দায়িত্ব পালন করবে। সিটি মেয়র বলেন, সিটি কর্পোরেশন বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় আমূল পরিবর্তন এনেছে, ডোর টু ডোর বর্জ্য সংগ্রহ কার্যক্রম চালু করতে যাচ্ছে। জলাবদ্ধতা নিরসনে খাল-নালা খনন ও মাটি উত্তোলন করছে। যানজট নিরসনে পুলিশ প্রশাসনের সাথে বৈঠক করে কারণ চিহ্নিত করা হবে এবং প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়া হবে। বাড়ী ভাড়ার বিষয়ে সরকারী আইন অনুসরন, শিক্ষা ক্ষেত্রে আসন সংখ্যা বৃদ্ধি করা হচ্ছে, হোল্ডিং ট্যাক্স বিষয়ে মেয়াদ উত্তীর্ণ ১১টি ওয়ার্ডে পুন:মূল্যায়ন কার্যক্রম চালু আছে বলে অভিমত ব্যক্ত করেন তিনি।

মতবিনিময়ে সিটি কর্পোরেশনের ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইয়াছিন চৌধুরী আশু, সাবের আহমদ, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবিদা আজাদ, জেসমিন পারভিন জেসী, মনোয়ারা বেগম মনি, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মোহাম্মদ শফিউল আলম, সচিব মো. আবুল হোসেন, জনংযোগ কর্মকর্তা মো. আবদুর রহিম, সহকারী এষ্টেট অফিসার এখলাছুর রহমান, ক্যাব চট্টগ্রাম বিভাগের সভাপতি এস এম নাজের হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক কাজী ইকবাল বাহার ছাবেরী, ক্যাব মহানগর সাধারণ সম্পাদক অজয় মিত্র শংকু, তৌহিদুল ইসলাম, সৈয়দ লকিয়ত উল্লাহ, জানে আলম, খালেদা আক্তার, আবু তাহের, অঞ্চল চৌধুরী, হারুন গফুর ও জান্নাতুল ফেরদৌস সহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

মতামত...