,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

রবি’র গ্রাহক ও রাজস্ব আয় বেড়েছে

robiঢাকা নভেম্বর৩০ : মোবাইল ফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেডের রাজস্ব আয় ও গ্রাহক দু’টোই বেড়েছে। নেটওয়ার্ক সমপ্রসারণ ও গুণগত মান সম্পন্ন সেবা দেয়ার জন্য বিনিয়োগও বাড়িয়েছে রবি। গতকাল গুলশানে রবি’র কর্পোরেট অফিসে এক সংবাদ সম্মেলনে চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বর, ২০১৫) ব্যবসায়িক প্রতিবেদনে এসব তথ্য তুলে ধরা হয়। এতে জানানো হয়, ভয়েস সেবার চেয়ে ডাটা খাত থেকে রাজস্ব আয় বাড়ছে। রবি’র আর্থিক বিবরণী অনুসারে, ২০১৫ সালের প্রথম ৯ মাসে রবিতে ৩১ লাখ নতুন গ্রাহক যোগ হয়েছে। এতে রবি’র মোট গ্রাহকের সংখ্যা ২ কোটি ৮৪ লাখে পৌঁছেছে। এটি দেশের মোট মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর ২১ দশমিক ৬ শতাংশ। চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে গত বছরের একই সময়ের তুলনায় রাজস্ব প্রবৃদ্ধি ৬ দশমিক ৭ শতাংশ বেড়েছে। এটি একটি উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি। এর মধ্যে ডাটা থেকে রাজস্ব ১০০ শতাংশের বেশি বেড়েছে। গ্রাহকের জন্য উদ্ভাবনী অফার ও ৩.৫জি নেটওয়ার্ক বিস্তারে ক্রমাগত বিনিয়োগের ফলে ডাটার ব্যবহার এবং এইখাত থেকে রাজস্ব আয় বেড়েছে। নেটওয়ার্ক বিস্তারে ক্রমাগত বিনিয়োগ এবং পণ্য ও সেবার মূল্য নিয়ে কঠোর প্রতিযোগিতার কারণে প্রথম নয় মাসে পরিচালন মুনাফা হয়েছে ৩৬ দশমিক ৭ শতাংশ। ২.৫জি/৩.৫জি নেটওয়ার্ক বিস্তারে বিনিয়োগের কারণে কর পরবর্তী মুনাফা হয়েছে ৭ দশমিক ৮ শতাংশ যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় কিছুটা কম। গ্রাহকের প্রয়োজনীয় প্যাকেজ রেট, মানসম্পন্ন সেবা এবং নেটওয়ার্কের মান বৃদ্ধির কারণে গ্রাহক ৩ দশমিক ৭ শতাংশ বা ১০ লাখ বৃদ্ধি পেয়ে ২ কোটি ৮৪ লাখে পৌঁছেছে। এ ক্ষেত্রে ৯, ২৯ ও ৭৯ টাকার রিচার্জ অফারও ভালো ফল দিয়েছে। ৩৯ বা ৭৯ টাকা রিচার্জে প্রতি সেকেন্ডে ১ পয়সা কল রেট, ডাবল বোনাস অফার ইত্যাদি সহজ ও উদ্ভাবনী অফারের মাধ্যমে গত প্রান্তিকের তুলনায় এ প্রান্তিকে রাজস্ব ৩ দশমিক ৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ১ হাজার ৩৪০ কোটি টাকায় দাঁড়িয়েছে। অন্যদিকে তৃতীয় প্রান্তিকে ঈদুল-ফিতর ও ঈদুল-আজহা উদযাপনও রাজস্ব বৃদ্ধিতে সহায়ক হয়েছে। তৃতীয় প্রান্তিকে ডাটা ব্যবহার ৬৪ দশমিক ৬ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং এ খাত থেকে রাজস্ব বৃদ্ধি পেয়েছে ১৪ দশমিক ৯ শতাংশ। গত বছরের তৃতীয় প্রান্তিক থেকে এ বছরের তৃতীয় প্রান্তিক পর্যন্ত গ্রাহক ১৩ দশমিক ৬ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ২ কোটি ৮৪ লাখে পৌঁছেছে। উল্লেখযোগ্য গ্রাহক বৃদ্ধির পেছনে রয়েছে গ্রাহক-বান্ধব পণ্য ও সেবা প্রদান এবং রবি’র শক্তিশালী নেটওয়ার্ক। রবি’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও সিইও সুপুন বীরাসিংহে বলেন, দেশজুড়ে আমাদের ৩.৫জি নেটওয়ার্ক ছড়িয়ে দেয়ায় এ বছরের শুরু থেকেই লক্ষণীয়ভাবে ডাটা সেবা গ্রহণের অগ্রগতি দেখা যাচ্ছে। গ্রাহকদের জন্য সর্বোচ্চ মানসম্মত ২.৫জি ও ৩.৫জি মোবাইল সেবা প্রদান করতে আমরা নেটওয়ার্ক খাতে বিনিয়োগ আগের চেয়ে বাড়িয়েছি। রবি’র চিফ অপারেটিং অফিসার মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, গ্রাহকের বিভিন্ন ধরনের চাহিদার কথা মাথায় রেখে উদ্ভাবনী পণ্য ও সেবা চালু করাতে রবি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ইন্টারনেট ডটওআরজি চালুর পর রবি বাজারে এনেছে শেয়ার মাই নেট। এর মাধ্যমে গ্রাহকরা বন্ধুবান্ধব বা আত্মীয় স্বজনদের সঙ্গে ইন্টারনেট শেয়ার করতে পারছেন। রবিই  এমন একটি অনন্য ইন্টারনেট শেয়ারিং প্যাক দেশে প্রথমবারের মতো চালু করেছে। এ ছাড়া গ্রাহকদের পুরস্কৃত করার জন্য বিভিন্ন ফিচারের পাশাপাশি ‘ধন্যবাদ’  কর্মসূচি চালু করেছে রবি। ২০১৫ সালের তৃতীয় প্রান্তিকে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে ৩২০ কোটি টাকা জমা দিয়েছে রবি যা মোট রাজস্বের ২৪ শতাংশ। ১৯৯৭ সালে যাত্রা শুরুর পর থেকে রবি রাষ্ট্রীয় কোষাগারে মোট ১৫ হাজার ৩০০ কোটি টাকার বেশি জমা দিয়েছে, অন্যদিকে একই সময়ে শেয়ারহোল্ডারদের লভ্যাংশ দিয়েছে মাত্র ২৯০ কোটি টাকা।

মতামত...