,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

রাউজানে তাহেরীয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন

এম বেলাল উদ্দিন, রাউজান, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: চট্টগ্রামের দক্ষিণ রাউজানে তাহেরীয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন উপলক্ষে নোয়াপাড়া চৌধুরীহাট পার্শ্বস্থ মাঠে আয়োজিত লাখো মুসলিম জনতার উপস্থিতিতে স্মরণকালের বৃহত্তর সুন্নি সমাবেশে রাসুলে পাক (দ.) এর ৪১ তম বংশধর, রাহনুমায়ে শরীয়ত তরিক্বত, গাউছে জামান আল্ল¬ামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ তাহের শাহ ছাহেব কেবলা (মা.জি.আ.) বলেছেন মহান আল্ল¬াহ রাব্বুল আলামিন অল্প সময়ের জন্য মানুষকে পৃথিবীতে পাঠিয়েছেন। তাই এ সময়কে আখেরাতের কাজে লাগিয়ে মুত্তাকী বনে সমাজে ভাল কাজ করে মহান আল¬াহ ও তার রাসুল (দ.) এর সন্তুষ্টি অর্জন করতে হবে। তিনি বলেন, আমাদের দেহ এবং প্রাণ খুব অল্প সময়ের জন্য একত্রিত আছে। আর এই সংক্ষিপ্ত সময়টিই এবাদত বন্দেগীর একমাত্র সুযোগ। যা কবরে হাশরে আর ফিরে পাওয়া যাবেনা। এ জন্য নিজেদের কে মন্দ লোক থেকে রক্ষা করতে হবে। হুজুর কেবলা আরো বলেন, তাওবার মাধ্যমে জীবনের সকল পাপ মোচন হয়ে যায় বটে, কিন্তু জালেম ও অপরের হক্ব ধ্বংসকারী, আত্মসাতকারী কোন পার পাবেনা। তাই তিনি নব দীক্ষিতদেরকে নির্দেশ দেন যেন, সংশ্লিষ্ট ক্ষতিগ্রস্তদের কাছ থেকে ক্ষমা চেয়ে কিংবা হক্ব পরিশোধ করে এ ধরনের পাপিদের পাপ মোচন করে নতুনভাবে তরিক্বত জীবন শুরু করে দুনিয়া ও আখিরাতকে উজ্ঝল করেন এবং দেশ সমাজ, মুসলিম মিল্লাতকে অশান্তি ও হানাহানি থেকে রক্ষা করার কাজে আত্মনিয়োগ হন। গতকাল ১৭ ডিসেম্বর শনিবার দক্ষিণ রাউজান উপজেলা গাউছিয়া কমিটি আয়োজিত সমাবশে হুজুর কেবলা প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই) গাউছিয়া কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ আইয়ুবের সভাপতিত্বে এতে উদ্বোধক ছিলেন রেলপথ মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি। এমপি ফজলে করিম চৌধুরী বলেন, এখানে একটি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান হুজুর কিবলার মাধ্যমে ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হলো। এটি নিশ্চয় এ এলাকার মানুষের জন্য সৌভাগ্যের বিষয়। আমি ব্যক্তিগতভাবে হুজুরের এ মাদ্রাসার জন্য সর্বাত্মক সহযোগীতা করে যাবো। প্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠা করতে যা যা করা প্রয়োজন সব ব্যবস্থা করা হবে।
এ সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওলাদে রাসুল (দ.), আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ কাসেম শাহ (মা.জি.আ.) ও আল্লামা সৈয়্যদ আহমদ শাহ (মা.জি.আ.), আনজুমানে রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়ার সহ সভাপতি আলহাজ্ব মুহ্ম্মাদ মহসিন, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, ফাইনেন্স সেক্রেটারী আলহাজ্ব সিরাজুল হক, প্রপেসর কাজী শামসুর রহমান, গাউছিয়া কমিটির কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান আলহাজ্ব পেয়ার মোহাম্মদ কমিশনার, যুগ্ম মহাসচিব এডভোকেট মোসাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, সংযুক্ত আরব আমিরাত গাউছিয়া কমিটির সেক্রেটারী আলহাজ্ব জানে আলম। উপজেলা (দক্ষিণ) গাউছিয়া কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হানিফ ও অধ্যক্ষ সৈয়দ গোলাম কিবরিয়ার সঞ্চালনায় এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, উপজেলা গাউছিয়া কমিটি দক্ষিণের সভাপতি আহমেদ সৈয়দ। প্রধান আলোচক ছিলেন, ঢাকা কাদেরীয়া তৈয়্যবীয়া আলিয়ার মুহাদ্দিস হাফেজ মাওলানা মুনিরুজ্জামান আল-কাদেরী। উপস্থিত ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব দিদারুল আলম, মুক্তিযোদ্ধা আব্বাস উদ্দিন আহমেদ, সৈয়দ আব্দুল জব্বার সোহেল, সাবেক চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম, আলহাজ্ব শামসুল আলম, আ.লীগ নেতা জাফর আহমদ, জাহাঙ্গীর সিকদার, তাহেরীয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসার ভমিদাতা জাহেদুল ইসলাম, বাবুল মিয়া মেম্বার, উত্তরজেলা গাউছিয়া কমিটির সহসভাপতি আলহাজ্ব আব্দুস শুক্কুর, সাধারণ সম্পাদক এডভোবেট জাহাঙ্গীর আলম, ইঞ্জিনিয়ার নুরুল আজিম, অধ্যক্ষ মাওলানা ইলিয়াছ নূরী, অধ্যক্ষ আবু মোস্তাক আল-কাদেরী, মাওলানা ইকবাল হোসাইন কাদেরী, চুয়েটের অধ্যাপক গোফরান উদ্দিন, উপজেলা গাউছিয়া কমিটির প্রধান উপদেষ্টা আলহাজ্ব আবু বক্কর সওদাগর, আলহাজ্ব হাবিবুল ইসলাম চৌধুরী, ব্যাবসায়ী আজিজুল হক, মাওলানা ইয়াছিন হোসাইন হায়দরী, সৈয়দ মুহাম্মদ হোসাইন, স.ম. হারুনুর রশিদ, নাছির উদ্দিন মাহমুদ, মাওলানা আব্দুল মালেক, মাওলানা আব্দুল আজিজ, মাওলানা অলিয়র রহমান, মাওলানা জিল্লুর রহমান হাবিবী, অধ্যাপক সৈয়দ মুহাম্মদ জামাল উদ্দিন, মাওলানা আশেকুর রহমান, মাওলানা আবুল ফাজেল নঈমী, মাওলানা শওকত হোসেন রেজভী, মাওলানা আবুল কাশেম রেজবী, ওয়াহিদুল আলম সুজন, ইউনুছ তালুকদার, মোহাম্মদ ইউচুপ, জাহেদুল হক, হাফেজ সালাহ উদ্দিন, আব্দুল করিম, মেহাম্মদ ইউনুছ, আজিজ উদ্দিন, সালাহ উদ্দিন, মোরশেদ আলম, আব্দুল আল মামুন, আমান উল্লাহ আমান, নুরুল হাকিম নিয়াজ, নওশাদ হোসেন, তসলিম উদ্দিন, আলমগীর হোসেন প্রমুখ।
উল্লেখ্য নোয়াপাড়ায় হুজুর কেবলার আগমন উপলক্ষ্যে বিভিন্ন সড়ত হয়ে মাহফিলস্থল নোয়াপাড়া চৌধুরীহাট মাঠ পর্যন্ত বিভিন্ন সামাজিক, ধর্মীয় সেচ্ছাসেবী সংগঠন কয়েক শতাধিক তোরণ ও ফেষ্টুন নির্মাণ করে আওলাদে রাসুলের প্রতি সম্মান জানান।
মঞ্চে হুজুর আসন গ্রহন পর্ব থেকে অর্ধলক্ষ মুসলি¬ম জনতা নারায়ে তাকবীর আল¬াহু আকবর নারায়ে রেসালাত ইয়া রাসুল¬াহ (দ.) শ্লোগান দিয়ে মুখরিত করে তোলে পুরো এলাকা। এদিন বাদে জোহর ২০ সহস্রাধিক মহিলা আলাদা প্যান্ডেলে অবস্থান নিয়ে হুজুরের নসিহত শুনে তার হাতে বায়াত গ্রহণ করেন। মাহফিলে আগত মুসলিম জনতারা সাংবাদিকদের বলেন, জীবনে অনেক মাহফিলে গেছি কিন্তু এরকম জনসমুদ্রের মত মাহফিল এই এলাকায় প্রথম দেখলাম।

মতামত...