,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

রাউজানে ২শ কোটি টাকার প্রকল্প উদ্বোধনে আনিস: সরকার জনগণের ভাগ্য উন্নয়নে নিবেদিত

এম বেলাল উদ্দিন, রাউজান,বিডিনিউজ রিভিউজ.কম::হালদা নদীর তীরবর্তী রাউজান ও হাটহাজারী উপজেলা অংশের উভয় তীরের ভাঙ্গন রক্ষাকল্পে তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের উদ্বোধন হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ২শ ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটির কাজ উদ্বোধন করেন পানিসম্পদ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি। এ সময় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী। উপস্থিত ছিলেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল রেজাউল মজিদ। কাজের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপনশেষে সন্ধ্যায় মদুনাঘাটে আয়োজিত এক বিশাল সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক একেএম মমতাজ উদ্দিন। সমাবেশে

প্রধান অতিথির বক্তব্য পানিসম্পদ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০২১ সালে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালে উন্নত রাষ্ট্র করার স্বপ্ন দেখছেন। দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা যেভাবে চলছে, তাতে সেটি এখন আর স্বপ্ন নয়, বাস্তবে রূপ লাভ করছে। মন্ত্রী বলেন, যে যেই দলের রাজনীতি করুক মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। রাউজান-হাটহাজারীর মানুষ চায় হালদা নদীর ভাঙ্গনরোধ। আমরা সেটি করতে পেরে গর্বিত বলে মনে করছি। তিনি বলেন, এ সরকার জনবান্ধব সরকার। ১৫শ কোটি টাকা ব্যয়ে বঙ্গোপসাগরের তীরে মিরসরাই পর্যন্ত বাঁধ নির্মাণের কাজ চলছে। আরো বহু প্রকল্প বাস্তবায়ন ও প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। চট্টগ্রাম শহরের জলাবদ্ধতা দূর করার জন্য বড় প্রজেক্ট হাতে নেয়া হয়েছে। মন্ত্রী নদীর দু’পাড়ে জনগোষ্ঠী রাউজান-হাটহাজারী উপজেলার সঙ্গে সংযোগ স্থাপন, নদীর বাম তীর অর্থাৎ রাউজান অংশে বাঁধ নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন, হালদার দুইপাড়ের রাঙামাটি সড়ক পর্যন্ত রাস্তা নির্মাণ করার কথা উল্লেখ করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। দীর্ঘ বিশ বছর ধরে রাউজান-হাটহাজারীর মানুষের স্বপ্ন ছিল, এ নদীর ভাঙ্গন রোধ হবে। আজকে সেটি বাস্তবে হতে যাচ্ছে। রাউজানের কাছে হাটহাজারীর সন্তান পানিসম্পদ মন্ত্রী হয়েছেন বলে এটা সহজ হয়েছে। তিনি বলেন, চট্টগ্রামে এখন হাজার হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন হচ্ছে। শেখ হাসিনা নেতৃত্বে আছেন বলে এসব উন্নয়ন হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, হালদা নদীতে আরো ৬টি ব্রিজ হবে। এগুলো হলে রাউজান হাটহাজারী ও শহরের সঙ্গে যোগাযোগ সহজ হবে।

সমাবেশে অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলার আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইউনুছ গণি চৌধুরী, রাউজান উপজেলা চেয়ারম্যান এ কে এম এহছানুল হায়দার বাবুল, পানি উন্নয়ন বোর্ডের চট্টগ্রাম বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী একেএম সামসুল করিম, হাটহাজারী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাছির উদ্দিন মনির, আওয়ামী লীগ নেতা জসিম উদ্দিন শাহ, এএসপি মো. জাহাঙ্গীর, রাউজান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীম হোসেন রেজা, হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আক্তার উননেছা শিউলী, রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কামাল উদ্দিন আহমদ, রাউজান পৌরসভার প্যানেল মেয়র বশির উদ্দিন খান, ২য় প্যানেল মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ, কাউন্সিলর আলমগীর আলী, ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ দিদারুল আলম, সরোয়ার তালুকদার, মো. সালাউদ্দিন, এডভোকেট শামীম, মজিদ, মনজুর হোসেন, মো. রফিক, আব্বাস উদ্দিন আহমদ, লায়ন সাহাবউদ্দিন আরিফ, ভূপেশ বড়–য়া, নুরুল আবছার বাঁশি, সৈয়দ আবদুল জব্বার সোহেল, রোকন উদ্দিন, তসলিম উদ্দিন চৌধুরী, বিএম জসিম উদ্দিন হিরু, সাবেক চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, মনিরুল ইসলাম প্রমুখ। এদিকে প্রকল্পের উদ্বোধন উপলক্ষে দুই উপজেলার নদীর তীরবর্তী হাজার হাজার মানুষ অভিনন্দন ব্যানার ফেস্টুন ও মিছিল সহকারে অনুষ্ঠানস্থলে আসেন। তারা দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্নপূরণ হতে যাচ্ছে বলে সাংবাদিকদের কাছে মন্তব্য করেন।
প্রসঙ্গত, ২শ ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে এই প্রকল্পটির তত্ত্বাবধায়নকারী

সংস্থা বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড। বাস্তবায়নককারী সংস্থা বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৩৪ ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশন বিগ্রেড। এই প্রকল্পে হাটহাজারী-রাউজান অংশে ১২.১২ কিলোমিটারে ব্লক বসানো হবে। এরমধ্যে রাউজান অংশে ব্লক বসানো হবে মাত্র ৩.৬ কিলোমিটার। এছাড়া হাটহাজারী অংশে ২১ কি.মি. বাঁধ নির্মাণ, জোয়ারের পানি রোধে ৪.০০৮ কি.মি. সড়ক উঁচুকরণ করা হবে। এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে আনুমানিক ৫৭১০ কোটি টাকার সম্পদ নদীর ভাঙ্গনের ঝুঁকিমুক্ত হবে এবং প্রকল্প এলাকায় সামাজিক উন্নয়ন ও অর্থনৈতিক কর্মকা- বৃদ্ধি পাবে বলে জানায় পানি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ।

One comment

  1. রাউজানে ২শ কোটি টাকার প্রকল্প উদ্বোধনে আনিস: সরকার জনগণের ভাগ্য উন্নয়নে নিবেদিত

Leave a Reply to mirnasirjournalist Cancel reply