,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

রাখাইন প্রদেশে কফি আনানের ক্ষোভ, সহিংসতা বন্ধ করতে বললেন মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে

rohiggaআন্তর্জাতিক ডেস্ক, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম: মিয়ানমারের উত্তর-পশ্চিমের রাখাইন রাজ্যে স্থানীয় মুসলমানদের গণহত্যার স্থান পরিদর্শন করেছেন জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান। সেখানে গিয়ে তিনি বাড়িঘরে আগুন লাগিয়ে দেওয়া ধ্বংসস্তূপ পরিদর্শন করেছেন, কথা বলেছেন নির্যাতনের শিকার মানুষজনের সঙ্গে।
কফি আনান শুক্রবার দিনব্যাপী রাখাইন রাজ্য ঘুরে দেখেন। সেদেশের সরকারের মতে, প্রদেশটিতে সরকারি বাহিনীর অভিযানে ৮৬ জন মুসলিম নিহত হয়েছে এবং অন্তত ১০ হাজার মানুষ বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে।
পরিদর্শনকালে সাবেক এই জাতিসংঘ প্রধান ক্ষোভ প্রকাশ করেন। পাশাপাশি তিনি গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তিনি মত দেন, সহিংসতা প্রদেশটিকে নতুন করে অস্থিতিশীলতার দিকে ঠেলে দিচ্ছে এবং নতুন করে অনেককে ঘরবাড়ি থেকে উৎখাত করা হয়েছে, যা কখনোই কাম্য নয়। সরকারি বাহিনীকে সহিংসতা পরিত্যাগ করতে মত দেন তিনি।
কট্টর বৌদ্ধদের বিক্ষোভ
বিবিসি জানায়, রোহিঙ্গা মুসলিমদের অবস্থা দেখতে রাখাইনে গিয়ে সেখানকার বৌদ্ধ কট্টরপন্থীদের বিক্ষোভের মুখে পড়েছেন সাবেক জাতিসংঘ মহাসচিব কফি আনান।
আনানের নেতৃত্বে একটি আন্তর্জাতিক কমিশন গতকাল রাখাইন রাজ্যের রাজধানী সিটুয়ে যান। রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমার ব্যাপক নির্যাতন চালাচ্ছে বলে যে অভিযোগ উঠেছে, তা সরেজমিনে তদন্ত করে দেখতে চায় এই কমিশন। রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে এই সর্বশেষ দফা সহিংসতা শুরুর আগে মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সুচি নয় সদস্যের এই আন্তর্জাতিক কমিশন গঠন করেছিলেন। কমিশনে মিয়ানমারের ছয়জন এবং কফি আনান ছাড়া আরো দুজন বিদেশি প্রতিনিধি আছেন।
বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, গতকাল সিটুয়ে পৌঁছানোর পর বিমানবন্দরে তাঁদের স্বাগত জানান রাখাইন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু বিমানবন্দরের বাইরে এসময় কফি আনানের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করছিলেন শ’খানেক বিক্ষোভকারী। তাদের প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিল, ‘কফি আনান কমিশন নিষিদ্ধ করো’। তারা ‘আমরা কফি আনান কমিশন চাই না’ বলে োগান দেয়।
বিক্ষোভকারীদের একজন বলেন, রাখাইন রাজ্যে যা ঘটছে সেটা আমাদের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার। এখানে আমরা বিদেশদের হস্তক্ষেপ চাই না।
রোহিঙ্গাদের মানবাধিকার লংঘন নিয়ে তীব্র আন্তর্জাতিক সমালোচনা চলছে। তার পরিপ্রেক্ষিতে সু চি এই কমিশন গঠনে বাধ্য হয়েছিলেন। জাতিসংঘের হিসেব অনুযায়ী, রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর সর্বশেষ অভিযানের মুখে অন্তত দশ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

মতামত...