,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

রেলের ভাড়া বাড়ছে কাল থেকে

loglনিজস্ব প্রতিবেদক,বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম:: ঢাকা,সারাদেশে শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) থেকে কার্যকর হচ্ছে বর্ধিত ভাড়া। ২০১২ সালের সেপ্টেম্বরে অনুমোদিত ভাড়ার সাথে গড়ে ৭ দশমিক ২৩ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি করে এ ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে।

পাশাপাশি রেলে ভ্রমণের ন্যূনতম ভাড়াও বাড়ানো হয়েছে। একই হারে বেড়েছে রেলপথে কনটেইনার পরিবহন ভাড়াও। বর্ধিত ভাড়ার টিকিট এরই মধ্যে বিক্রি শুরু করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। এর আগে বিষয়ে একটি পরিপত্র জারি করে রেলওয়ে। এতে ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে রেলের দুটি বাণিজ্যিক বিভাগকে নির্দেশনা দেয়া হয়।

জানা গেছে, গত ১২ জানুয়ারি রেলপথ মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে অনুমোদন পাওয়া প্রস্তাব অনুযায়ি যাত্রী, পার্সেল, মালামাল ও কন্টেইনার পরিবহনে ভাড়া বাড়ছে গড়ে ৭ দশমিক ২৩ শতাংশ। এ লক্ষে সংশ্লিষ্ট বিভাগে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল থেকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

গত ১১ ফেব্রুয়ারি রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের অতিরিক্ত চীফ কমার্শিয়াল ম্যানেজার মোছা. রাশিদা সুলতানা গণি স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ নির্দেশ দেওয়া হয়। এর আগে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে গত ৪ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে রেলের ভাড়া বাড়ানোর প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। টিকিট প্রিন্টিং ছাড়াও সার্ভারে টিকিটের নতুন ভাড়ার তথ্য সংরক্ষণের কাজও শুরু হয়েছে বলে জানান রেলওয়ে কর্মকর্তারা।

রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের তথ্যমতে, বর্ধিত ভাড়া কার্যকর হলে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে শোভন শ্রেণির ভাড়া ২৬৫ থেকে বেড়ে ২৮৫ টাকা হবে। শোভন চেয়ারে ভাড়া ৩২০ টাকার স্থলে ৩৪৫, এসি চেয়ার ৬১০ টাকার স্থলে ৬৫৬, এসি সিট ৭৩১ টাকার স্থলে ৭৮৮, এসি বার্থে ১ হাজার ৯৩ টাকার স্থলে ১ হাজার ১৮৯ টাকা এবং স্নিগ্ধা শ্রেণির ভাড়া হবে ৭২২ টাকা। বিভিন্ন শ্রেনীর নূন্যতম ভাড়া হবে, দ্বিতীয় সাধারন ৫ টাকা, দ্বিতীয় মেইল ১৫ টাকা, কমিউটার ২০ টাকা, প্রথম সিট ৯০ টাকা।

রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের অতিরিক্ত চীফ কমার্শিয়াল ম্যানেজার মোছা. রাশিদা সুলতানা গণি  বলেন, ‘২০ ফেব্রুয়ারি থেকে বর্ধিত ভাড়া আদায়ের নির্দেশনা পেয়েছি। এ লক্ষে সংশ্লিষ্ট বিভাগে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল থেকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম চলছে। যাত্রীদের সুবিধার্থে বিভিন্ন স্টেশনে নতুন ভাড়ার তালিকাও টানিয়ে দেয়া হয়েছে।’

জানা গেছে, ২০১২-১৩ অর্থবছরের তুলনায় ২০১৩-১৪ অর্থবছরে জ্বালানি বাবদ ১৭ কোটি ৫৩ লাখ ও মেরামত বাবদ ২৭  কোটি ৫৫ লাখ টাকা ব্যয় বেড়েছে। তবে বেতন-ভাতা খাতে ব্যয় ৫৭ কোটি ৪৬ লাখ টাকা কমেছে। এ হিসাবে ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ব্যয় কমেছে ১২ কোটি ৩৪ লাখ টাকা। অথচ বেতন-ভাতা বাদ দিয়ে ৪৫ কোটি টাকা ব্যয় বৃদ্ধির অনুপাতে ৭ দশমিক ২৩ শতাংশ ভাড়া বাড়ানো হয়েছে।

 

বি এন আর/০০১৬০০২০১৯/০০০৯৭/ বি

মতামত...