,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

রোহিঙ্গাদের জাতিগতভাবে নির্মুলের চেষ্টা করছে মিয়ানমার: জাতিসংঘ

rohinngআন্তর্জাতিক ডেস্ক,বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: রোহিঙ্গাদের জাতিগতভাবে নির্মুলের চেষ্টা করছে মিয়ানমার। বাংলাদেশের কক্সবাজারে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক কার্যালয়ের প্রধান জন ম্যাকিসিক বিবিসি বাংলার এক সাংবাদিককে এ কথা বলেছেন।

জন ম্যাকিসিক বলেন, মিয়ানমারের সেনাবাহিনী ও সীমান্ত রক্ষী পুলিশ যৌথভাবে রোহিঙ্গাদের শাস্তি দিচ্ছে। নিরাপত্তা বাহিনী পুরুষদের হত্যা করছে, তাদের গুলি করছে, শিশুদের জবাই করছে, নারীদের ধর্ষণ করছে, বাড়িঘর লুট ও অগ্নিসংযোগ করছে এবং এই লোকদের নদী পার হয়ে বাংলাদেশে আসতে বাধ্য করছে।

এখন সীমান্ত উন্মুক্ত -এটা বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে বলা বেশ কঠিন। কারণ এর মাধ্যমে মিয়ানমার সরকার নৃশংসতা চালাতে আরো উসাহিত হবে এবং মিয়ানমারে সংখ্যালঘু মুসলমান সম্প্রদায়টিকে জাতিগতভাবে নির্মূল করার উদ্দেশ্য পূরণ না হওয়া পর্যন্ত তাদেরকে সীমান্তের দিকে ঠেলতে থাকবে।

গত অক্টোবরে মিয়ানমারের মংডুতে বিদ্রোহীদের হাতে ৯ পুলিশ সদস্য নিহত হওয়ার পর রোহিঙ্গাদের দমন অভিযানে নামে দেশটির সেনাবাহিনী। রোহিঙ্গাদের বাড়িঘর পুড়িয়ে দেয়াসহ নির্বিচারে তাদের হত্যা করছে সেনাবাহিনী। গত সপ্তাহে একটি গ্রামে অভিযান চালাতে গিয়ে হেলিকপ্টার গানশিপ ব্যবহার করেছে তারা। এমনকি যেসব রোহিঙ্গা নাফ নদী পার হওয়ার জন্য পালিয়ে এসেছিল তাদেরকেও পেছন থেকে গুলি করেছে সেনারা। গত কয়েকদিনে কয়েক হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালিয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবি তাদেরকে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ ইতিমধ্যে প্রায় পাঁচ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়েছে। এসব রোহিঙ্গাদের ফেরত নেওয়া দূরের কথা বরঞ্চ বিভিন্ন সময় রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পুশ ইন করার চেষ্টা করেছে মিয়ানমার। দেশটির সরকারের দাবি, রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের নয়, বরং বাংলাদেশের নাগরিক।

মতামত...