,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

লুই কানের নকশা ও আলোচনায় জিয়ার কবর, উত্তাপ রাজনীতিবিদদের বক্তব্যে

js babanবিশেষ সংবাদদাতা, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম: যুক্তরাষ্ট্র থেকে স্থপতি লুই আই ক্যানের মূল নকশার অনুলিপি গত ১ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার পাওয়ার পর থেকে সংসদ ভবন এলাকা থেকে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের কবর সরিয়ে নেওয়ার দাবি জোরালো হয়েছে। আওয়ামী লীগ এবং বিএনপি দুই শিবিরে এ নিয়ে চলছে উত্তেজনা আর দু’দলের রাজনীতিবিদদের বক্তব্যেও উত্তাপ ছড়াচ্ছে। সর্বশেষ রোববার রাতে আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য নুরজাহান বেগম জাতীয় সংসদে ৭১ বিধিতে উত্থাপিত নোটিশের আলোকে বক্তব্য প্রদানকালে জিয়ার কবরসহ বিধি-বহির্ভূত সকল স্থাপনা সরানোর দাবি জানিয়েছেন। অন্যদিকে জাতীয় সংসদ এলাকা থেকে জিয়াউর রহমানের কবর সরানোর কথা বলে সরকার ‘দেশকে গৃহযুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তবে দলটির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান অবশ্য বিষয়টিকে ’নিরপেক্ষ’ নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে খালেদা জিয়ার সাম্প্রতিক প্রস্তাব ধামাচাপা দেওয়ার কৌশল বলে উল্লেখ করেছেন।

জানা যায়, ১৯৯৪ সালে সংসদ ভবনের কেন্দ্রীয় শীতাতপ নিয়ন্ত্রণব্যবস্থা হঠাৎ বন্ধ হয়ে গেলে প্রথমবারের মতো নকশাবহির্ভূত কাজ শুরু হয়। ভিআইপিদের অফিসকক্ষে বক্স এয়ারকন্ডিশনার বসানো হয়। অথচ মূল নকশায় এ ধরনের ব্যবস্থা নেই। পরে কেন্দ্রীয় শীতাতপ নিয়ন্ত্রণব্যবস্থা সচল হলেও বক্স এয়ারকন্ডিশনার সরানো হয়নি বরং প্রতিনিয়ত বাড়ানো হচ্ছে। পরে সপ্তম সংসদে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি গঠনের পর নকশা উপেক্ষা করে সংসদ ভবনের ভেতরে দুই শতাধিক কক্ষ তৈরি করা হয়। কিন্তু সম্প্রতি লুই আই কানের নকশায় শেরেবাংলা নগর এলাকায় কবরস্থানের জন্য কোনো জায়গা রাখা হয়নি- এমন যুক্তিতে সেখানকার কবর সরানোর পক্ষে মত দিয়েছে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়। এ নিয়ে শুরু হয় রাজনৈতক উত্তাপ। এরপরই মূলত স্থপতি লুই কানের নকশা উপেক্ষা করে জাতীয় সংসদ ভবনের ভেতরে-বাইরে নির্মিত স্থাপনা ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সিদ্ধান্ত কার্যকর হলে জাতীয় সংসদের মূল ভবনের উত্তর গেটে নির্মাণাধীন সংসদ বাংলাদেশ টেলিভিশন সেন্টার এবং সংসদ ভবন ও ন্যাম ফ্ল্যাটের মধ্যে যাতায়াতের জন্য মানিক মিয়া এভিনিউতে ওভারপাস নির্মাণের কাজ বন্ধ হয়ে যেতে পারে। এমনকি প্রস্তাবিত মেট্রোরেলের নকশায় পরিবর্তন আনারও প্রয়োজন হতে পারে। তবে সবকিছু ছাপিয়ে জিয়ার কবর সরানোর সিদ্ধান্তে সরকারের অনড় অবস্থানে দিশেহারা হয়ে পড়েছে বিএনপি।

জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে রবিবার এক আলোচনা সভায় বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনাকে উদ্দেশ্য করে বলতে চাই, “ওই ‘চাঁন-তারা’ ডিজাইন নিয়ে পার্লামেন্ট ও লেক- আপনি সেটা পরিবর্তন করতে চান না। লুই আই কানের ম্যাপ নিয়ে এসে আপনি অশুভ ষড়যন্ত্র প্রতিষ্ঠিত করতে চান, বাস্তবায়ন করতে চান। জিয়াউর রহমানের মাজারকে আপনি সেখান থেকে ধ্বংস করতে চান। তিনি বলেন, আপনি অনিবার্য গৃহযুদ্ধের দিকে দেশকে ঠেলে নিয়ে যাচ্ছেন। বাংলাদেশের মানুষের মণি কোঠায় জিয়াউর রহমানের প্রতি যে শ্রদ্ধা আছে, আপনার ষড়যন্ত্র, আপনার র‌্যাব-পুলিশ দিয়ে সেটাকে আপনি কখনোই দমন করতে পারবেন না।

বিএনপির এসব প্রতিক্রিয়াকে আমলে না নিয়ে অনড় অবস্থানে রয়েছে সরকার। এ প্রসঙ্গে সংসদের মূল নকশা লঙ্ঘন করে জিয়াউর রহমানের সমাধি করা হয়েছে মন্তব্য করে নুরজাহান বেগম বলেন, সংসদ ভবনের মূল নকশা পদে পদে লঙ্ঘন করা হয়েছে। লঙ্ঘন করে বিধি বহির্ভূত অনেক স্থাপনা করা হয়েছে, যেটি কিনা আমাদের সংসদ ভবনের পরিবেশ সংসদের জনগুরুত্বপূর্ণ স্বার্থ লঙ্ঘিত হয়েছে। অবিলম্বে লুই আই কানের নকশা বাস্তবায়নের জোর দাবিও জানান তিনি।

মতামত...