,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে অচল চুয়েট ৮ দফা দাবীতে ক্লাস বর্জন, ভবনে তালা

aনিজস্ব প্রতিবেদক, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃচট্টগ্রাম, ছাত্র ধর্মঘটের কারণে অচল হয়ে পড়েছে রাউজানে অবস্থিত চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)।
শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনগুলোতে তালা দিয়ে ধর্মঘট পালন করছে। ফলে রোববার সকাল থেকে প্রতিষ্ঠানটিতে সব ধরণের ক্লাস ও পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে।

কয়েকদিন আগে কাপ্তাই সড়কে দুর্ঘটনায় মোহাইমিনুল ইসলাম নামে এক শিক্ষার্থী মৃত্যুর ঘটনার জের ধরে অভিযুক্ত চালক সহকারীদের বিচারসহ ৮ দফা দাবিতে সাধারণ শিক্ষার্থীরা সকাল থেকে এ আন্দোলন শুরু করেছে। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষা কার্যক্রম অনেকটা অচল হয়ে পড়েছে। এতোদিন ৮ দফা দাবীতে আন্দোলন করে আসলেও আজ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র কল্যাণ সম্পাদক আশুতোষ সাহার পদত্যাগ দাবী করেছেন।

ফাহাদ নামে আন্দোলনকারী একজন শিক্ষার্থী জানান, সাধারণ শিক্ষার্থীরা ৮ দফা দাবীতে এ আন্দোলন করছে। দাবীগুলো হচ্ছে, অভিযুক্ত চালক সহকারীদের দ্রুত গ্রেফতার, তিন চাকার চলাচলকারী লেগুনা বন্ধ করা, রেজিষ্টেশন বিহীন গাড়ি চলাচল বন্ধ, বিশ্ববিদ্যালয়ের গেইট থেকে একঘন্টা পর পর নিউ মার্কেট পর্যন্ত বাস চলাচলা, প্রতি পাঁচ কিলোমিটারে একটি করে ট্রাফিক চেকপোস্ট স্থাপন, সড়ক সম্প্রসারণ ও সংস্কারকরণ, ক্যাম্পাসে দুটি এ্যাম্বুলেন্স সার্বক্ষণিক রেডি রাখা, কাপ্তাই সড়কে পর্যাপ্ত স্প্রীডব্রেকার দেয়া।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ সুত্রে জানাগেছে, শিক্ষার্থীরা সকাল ৮টা থেকে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করছে। তারা সকল একাডেমিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে শিক্ষকদের ক্লাশে প্রবেশে বাধা দেয়। ক্যাম্পাসের গোল চত্বরে টায়ার জ্বালিয়ে আগুন দিয়েছে। বিভিন্ন কক্ষে ভাঙচুরও করেছে।

চুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. জাহাঙ্গীর আলম জানান, আমরা শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো মানার এবং বাস্তবায়নের ব্যাপারে তৎপর আছি। কিন্তু তার জন্য সময় দরকার। সকালে আন্দোলনকারী ছাত্রদের সাথে আমাদের বৈঠক হয়েছে। আমরা তাদের দাবী মেনে নেয়ার ব্যাপারে ঐক্যমত এবং চেষ্টার কথা বলেছি।

চুয়েট ক্যাম্পাস পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আমীর হোসেন বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় একজন ছাত্র মারা যাওয়ার পর থেকে শিক্ষার্থীরা ইতোপূর্বে সড়ক অবরোধ ভাঙচুর করেছে। আমরা তাদের বুঝিয়ে তা সামাল দিয়েছি। আজ তারা ৮ দফা দাবীর সাথে ছাত্রকল্যাণ সম্পাদকের পদত্যাগ চেয়ে ক্যাম্পাসের ভিতরে ক্লাশ বর্জন করছে।

তাদের দাবী গুলো কয়েকটি ইতোমধ্যে পূরণ হয়েছে দাবী করে তিনি বলেন, তারা লেগুনা চলাচল বন্ধ করতে বলেছে। আমরা বন্ধকরে দিয়েছি। এবং বেশ কয়েকটি লেগুনা আটক করেছি। এরপর অবৈধ রেজিষ্টেশন বিহীন গাড়ি চলচল বন্ধে প্রতিদিন অভিযান চলছে। তাদের অন্যতম দাবী অভিযুক্ত চালক সহকারীদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান করছে। বাকি দাবী গুলো বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিবেচনা করবে।

মতামত...