,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

শোক দিবসে জাতীয় পতাকা উত্তোলন না করায় মাগুরায় মাদ্রাসা অধ্যক্ষ আটক

a.নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ রিভিউজঃ গণধোলাইয়ের পর পুলিশের হাতে আটক হয়েছেন শোক দিবসে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করতে রাজি না হওয়া মাগুরা সদর উপজেলার বেরইল দারুল হুদা সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসা অধ্যক্ষ আব্দুল আজিজ।

সোমবার সন্ধ্যায় সদর উপজেলার শত্রুজিৎপুর ফাঁড়ি পুলিশ তাকে আটক করেছে বলে নিশ্চিত করেছেন মাগুরার পুলিশ সুপার একেএম এহসান উল্লাহ।

বেরইল-পলিতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খন্দকার মহব্বত আলী জানান,  শোক দিবসে রাষ্ট্রীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক সব প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করার কথা। কিন্তু বেলা আড়াইটা পর্যন্ত বেরইল-পলিতা ইউনিয়ন পরিষদের অদূরের ওই মাদ্রাসায় পতাকা উত্তোলন করা হয়নি। এটি জানাতে পেরে ১৫ আগস্টের অনুষ্ঠান পালনের জন্য ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে আসা স্থানীয় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক মোল্যা, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান, মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার জবেদ আলীসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা ওই মাদ্রাসায় যান। তারা অধ্যক্ষকে পতাকা উত্তোলন করে অর্ধনমিত করার কথা বলেন।

এ সময় অধ্যক্ষ মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী আসেনি বলে পতাকা উত্তোলনে অস্বীকৃতি জানান। এলাকাবাসীর বারবার অনুরোধ সত্ত্বেও তিনি পতাকা উত্তোলন করতে রাজি হননি। বরং তিনি বলেন, আমি প্রয়োজনে আত্মহত্যা করব, তবু পতাকা ছোঁব না। এ অবস্থায় উত্তেজিত জনতা অধ্যক্ষ আজিজকে ধরে গণধোলাই দেয়। জনগণের রোষানল থেকে বাঁচতে তিনি মাদ্রাসা থেকে পালিয়ে যান।

এ নিয়ে এলাকায় মুক্তিযোদ্ধা ও সাধারণ মানুষের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। ক্ষুব্ধ ও উত্তেজনা জনতা বিষয়টি প্রশাসনকে জানালে শত্রুজিৎপুর থানা পুলিশ বিকেলে মাদ্রাসা অধ্যক্ষ আব্দুল আজিজকে আটক করে।

পুলিশ সুপার এহসান উল্লাহ আব্দুল আজিজকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

মতামত...