,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করার ক্ষমতা বিএনপির নেই: হানিফ

‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া পরিস্কার করেছেন, আন্দোলন করে সরকারের বিরুদ্ধে কিছু করার ক্ষমতা তাদের নেই বলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম392 হানিফ বলেন, এখন ব্যর্থ হয়ে নিজের মনে সান্ত্বনা খোঁজার জন্য নির্বাচনের মাধ্যমে কিছু অর্জন করা যায় কি না, সেই চেষ্টা করছেন।আমার বিশ্বাস, জনগণ যেভাবে তাদের আন্দোলনকে ব্যর্থ করে দিয়েছে, ঠিক সেভাবেই নির্বাচনের মাধ্যমে তাদের পরাজয় সুনিশ্চিত করে এই মনোভাবকে ব্যর্থ করে দেবে।’

 

সোমবার বিকেলে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন মাহবুব উল আলম হানিফ। খালেদা জিয়ার বক্তব্যের জবাবে এ সংবাদ সম্মেলন করে আওয়ামী লীগ।

আওয়ামী লীগের আমলে কোনো ধর্মের মানুষ নিরাপদ নয়, খালেদা জিয়ার এমন অভিযোগের জবাবে হানিফ বলেন, ‘সেই কথা বলার আগে সাংবাদিকদের মাধ্যমে জাতির কাছে আমাদের জিজ্ঞাসা, উনি সব ধরনের মানুষকে আশ্বস্ত করার আগে বলতে হবে যে, ওনি ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকাকালে মানুষের ওপর যে নির্যাতন নিপীড়ন চালিয়েছিলেন এর জন্য কি অনুতপ্ত? এজন্য কি উনি জাতির কাছে ক্ষমা চেয়েছেন?’

ওই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নাম উল্লেখ না করে তার প্রতি ইঙ্গিত করে খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘এখন তিনি সম্পূর্ণ অসুস্থ, মানসিক দিক থেকে আরো বেশি অসুস্থ।’

হানিফ বলেন, ‘এ ধরনের নোংরা ভাষা একমাত্র তার মুখেই মানায়। পৃথিবীর কোনো সভ্য দেশে আজ পর্যন্ত কারো মুখে এমন বক্তব্য শোনা যায়নি।খালেদা জিয়ার এই বক্তব্য শোনার পরে আমার বিশ্বাস, বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষেই বিশ্বাস করে, তিনি নিজেই মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছেন।আর মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে কখন কী কথা বলছেন, সেটা উনি নিজেই বুঝতে পারছেন না। কোন কথাটা বলাটা যৌক্তিক বা সমীচীন, সেটাও বোঝার বোধশক্তি হারিয়ে ফেলেছেন উনি। খালেদা জিয়া ক্ষমতার লোভে এতই অন্ধ হয়ে গেছেন, এতই অসহায় হয়ে গেছেন যে, উনি এখন উন্মাদের মতো আচরণ করে যাচ্ছেন। গতকাল তিনি যে বক্তব্য রেখেছেন, তা উন্মাদের প্রলাপ ছাড়া আর কিছুই মনে হয় না।’

আসন্ন পৌর নির্বাচন প্রসঙ্গে হানিফ বলেন, ‘জনগণ যদি আবার দেশে বোমাবাজি দেখতে চায়, বাসের মধ্যে পেট্রোল দিয়ে মানুষ হত্যা দেখতে চায়, তাহলে বিএনপিকে ভোট দিতে পারে। আমার বিশ্বাস এ দেশের জনগণ আর চায় না পেট্রোল বোমায় প্রাণ হারাতে। কারণ, জনগণ এখন চায় বাংলাদেশের উন্নয়ন, তাদের ভাগ্যের উন্নয়ন। তাই তারা নৌকা মার্কা প্রতীকেই ভোট দেবে।’

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন- দলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ড. দীপু মনি, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য ড. হাছান মাহমুদ, ডা. বদিউজ্জামান ভুঁইয়া ডাবলু, হাবিবুর রহমান সিরাজ, ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, আব্দুল মান্নান খান, দেওয়ান শফিউল আরেফিন টুটুল প্রমুখ।

 

মতামত...