,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

সাতকানিয়ায় অগ্নিকান্ডে অস্থায়ী ইউপি কার্যালয়সহ ৫ বসতঘর ও ৪ দোকান ভষ্মিভূত

aমোঃ নাজিম উদ্দিন, দক্ষিণ চট্টগ্রাম সংবাদদাতা, বিডিনিউজ রিভিউজঃ চট্টগ্রামের সাতকানিয়া পৃথক অগ্নিকান্ডে বাজালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের অস্থায়ী কার্যালয়সহ ৫ বসতঘর ও ৪ দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। গত ২২ সেপ্টম্বর বৃহষ্পতিবার রাত ১টার সময় উপজেলার ঢেমশা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড হাদুর পাড়া এবং রাত আড়াইটায় বাজালিয়া ষ্টেশন এলাকায় ঘটনাটি ঘটে । প্রথম অগ্নিকান্ডে রান্না ঘরের চুলা থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে বেড়ার তৈরী টিন সেট ঘরগুলো পুড়ে ছাই হয়ে যায়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও ক্ষতিগ্রস্থরা জানান, গভীর রাতে নবী হোসেনের রান্না ঘরের চুলার পার্শ্বে রাখা জ্বালানী কাঠে আগুন ধরে এ দূর্ঘটনা ঘটে।
স্থানীয়রা জানান, রাতে লোকজন ঘুমিয়ে পড়ার কারনে বাড়ী থেকে কেউ কিছু বের করতে পারেনি। অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ বসতঘরের মালিকরা হলেন, আমির হোসেন, আবুল হোসেন, নবী হোসেন, দেলোয়ার হোসেন ওরফে দুলা মিয়া ও জামাল হোসেন। অগ্নিকান্ডে ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১০ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে স্থানীয়রা জানান। ক্ষতিগ্রস্থদের মধ্যে অধিক ক্ষতিগ্রস্থ হলেন দিনমজুর দুলা মিয়া। দুলা মিয়ার স্ত্রী বাড়িতে দর্জির কাজ করে সংসারে সহযোগিতা করতেন। সেকারনে তাঁর ঘরে ছিল বহু লোকের কাপড়। ক্ষতিগ্রস্থ দুলা মিয়া বলেন, ঘর পুড়ে গেলেও আমার কোন দূঃখ নেই কিন্তু বিভিন্ন লোকজনের কাপড়গুলো কিভাবে কিভাবে দেব, আমিতো এখন নিঃস্ব হয়ে গেছি। বসত ঘরে আগুন ধরলে এলাকার জাহেদুল ইসলাম ও রকিবুল ইসলাম আগুন নেভানোর জন্য এগিয়ে আসলে বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়ে কোন রকমে প্রানে বাঁচলেও গুরুতর আহত হন। আহতরা কেরানীহাট একটি বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। যোগাযোগ করা হলে সাতকানিয়া ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন অফিসার মাহবুব এলাহী বলেন, খবর পেয়ে দমকল বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে স্থানীয় মেম্বার মোহাম্মদ মিয়া ও ইউপি চেয়ারম্যান রিদুওয়ান উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সদস্যদের আর্থিক সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দেন।
অপরদিকে উপজেলার বাজালিয়া ইউনিয়নের বাস ষ্টেশন এলাকায় অগ্নিকান্ডে অস্থায়ী ইউপি কার্যালয়সহ ৪ দোকান পুড়ে যায়। দীর্ঘদিন ধরে একটি ভাড়ার দোকান বাজালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের অস্থায়ী কার্যালয় হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। বাস ষ্টেশনের ভাড়ার দোকানটিতে ইউপি’র সকল কার্যক্রম পরিচালিত হত। এ সময় অগ্নিকান্ডে ইউপি’র অস্থায়ী কার্যালয়ের পাশে লিটন দাশের টেইলার্সের দোকান, অমূল্য দত্তের মুদির দোকান, প্রদীপ দাশের কুলিং কর্ণার ও শ্যামল দত্তের কাঁচা মালের দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। অগ্নিকান্ডে ইউনিয়ন পরিষদের জরুরী নথি ও কাগজ-পত্র পুড়ে যায়। আগুনের সূত্রপাত কোথা থেকে তা’ জানা গেলেও এলাকাবাসীর অনেকে এটাকে নাশকতা বলে মন্তব্য করেন। এ ব্যাপারে বাজালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান বাদী হয়ে সাতকানিয়া থানায় জিডি করেন। ক্ষতিগ্রস্থ শ্যামল দত্ত জানান, সবকিছু মিলে ক্ষয়ক্ষতি ৪০ লক্ষ টাকা হবে।
বাজালিয়া ইউপি’র নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান তাপস কান্তি দত্ত বলেন, গভীর রাতে আগুনের বিষয়টি রহস্যজনক। তবে আমি নাশকতাও বলব না। থানা প্রশাসন তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবেন।
এব্যাপারে সাতকানিয়া থানার সেকেন্ড অফিসার শাহ জালাল বাবুল বলেন, প্রাথমিকভাবে কিছুই বুঝা যাচ্ছে না। তদন্ত করলে সঠিক বিষয়টি বের হয়ে আসবে।

মোঃ নাজিম উদ্দিন, দক্ষিণ চট্টগ্রাম প্রতিনিধি।

মতামত...