,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

সারাদেশে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার: নিজামীর রায়

751নিজস্ব প্রতিবেদক,ঢাকা,৬, জানুয়ারি (বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম)::মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা  মতিউর রহমান নিজামীর আপিলের চূড়ান্ত রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে সুপ্রিম কোর্ট এলাকাসহ দেশব্যাপী নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর নজরদারির পাশাপাশি তল্লাশি চৌকি বসানো হয়েছে।

 

বুধবার সকালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা যায়।

 

নিজামীর চূড়ান্ত রায় ঘোষণা সামনে রেখে মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে সুপ্রিম কোর্ট এলাকায় জনসাধারণের প্রবেশ নিয়ন্ত্রণ করা হয়। ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে তৎপর রয়েছে পুলিশ। বেশ কিছু চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। এ ছাড়া রয়েছে অতিরিক্ত টহল পুলিশ। সোয়াত বাহিনীর পাশাপাশি সাদা পোশাকের গোয়েন্দা সদস্যরা মাঠে কাজ করছেন। রাজধানীতে সক্রিয় রয়েছে র‌্যাবের একাধিক টিম।

 

সরেজমিনে দেখা যায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থেকে ট্রাইব্যুনালের আশপাশে প্রেসক্লাব, দোয়েল চত্বর, শিশু একাডেমীসহ সড়কগুলোতে সাধারণ যানবাহন চলাচল করলেও মাঝে মধ্যে গাড়ি থামিয়ে চেক করা হচ্ছে। সন্দেহভাজন প্রাইভেট ও সিএনজিকে থামিয়ে তল্লাশি করা হচ্ছে। এসব এলাকায় সন্দেভাজন সাধারণ যাত্রীদেরও তল্লাশ করছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

 

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ভোর থেকে সুপ্রিম কোর্টের সবগুলো প্রবেশপথ, আশপাশের সব সড়ক ও পুরো এলাকায় কয়েক স্তরের নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে। রাত থেকে দেশের বিভিন্ন বিভাগীয় ও জেলা শহরে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বসানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা। পর্যবেক্ষণ করা হবে, কোথাও কোনো নাশকতা চালানো হয় কী না।

 

রাজধানীর নিরাপত্তা বিষয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গণমাধ্যম শাখার উপ কমিশনার মারুফ হোসেন সরদার জানান, নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। সুপ্রিম কোর্ট এলাকাসহ রাজধানীতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

 

পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের গণমাধ্যম শাখার এআইজি নজরুল ইসলাম জানান, নিজামীর চূড়ান্ত রায় নিয়ে জামায়াত-শিবিরের সদস্যরা নাশকতা চালাতে পারে। এজন্য সারা দেশে পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হলে তা কঠোরভাবে দমন করা হবে।

 

জামায়াতের  ঢাকা মহানগর নেতাদের কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, জামায়াত নেতা  মতিউর রহমান নিজামীর রায়কে কেন্দ্র করে এখন পর্যন্ত কোনো কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়নি। রায়ের পর সিদ্ধান্ত আসতে পারে বলে জানান তারা। সেক্ষেত্রে আগামী বৃহস্পতিবার দেশব্যাপী সকাল-সন্ধ্যা হরতাল দিতে পারে জামায়াত। তবে অন্য আরেক নেতা জানান, রায়ে ফাঁসি বহাল না থাকলে কর্মসূচি ভিন্ন হতে পারে।

 

২০১৪ সালের ২৯ অক্টোবর জামায়াতের এই নেতাকে ফাঁসির আদেশ দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। রায়ে বলা হয়, ১৬টি অভিযোগের মধ্যে ৮টিই প্রমাণিত হয়েছে।

 

ওই রায়ের বিরুদ্ধে ২০১৪ সালের ২৩ নভেম্বর সর্বোচ্চ আদালতে আপিল করেন নিজামী। নিজামীর করা আপিলে ১৬৮টি যুক্তি তুলে ধরে সাজার আদেশ বাতিল করে খালাস চাওয়া হয়। সর্বোচ্চ শাস্তি হওয়ায় রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেনি রাষ্ট্রপক্ষ।

চট্টগ্রামে বিজিবি মোতায়েন

চট্টগ্রামে যেকোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা, নাশকতা ও সহিংসতা ঠেকাতে মোতায়েন করা ১৮ প্লাটুন বিজিবি গতকাল ভোর ৬টা থেকে জেলা ও নগরীর বিভিন্ন স্থানে টহল দিচ্ছে। পুলিশি তৎপরতাও ছিল চোখে পড়ার মতো।

 চট্টগ্রামের আটটি পৌরসভা এবং নগরী মিলিয়ে মোট ১৮ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। তারা আজ বুধবারও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সহায়তা করবে। ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ পালনের নামে নাশকতা ঠেকাতে এবং নিজামীর রায়ের পর যাতে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে, সেজন্য বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে।

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ২০১৪ সালের ২৯ অক্টোবর নিজামীকে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করেন যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনাল১। ওই রায় বাতিল চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে আপিল করেন তিনি। শুনানি শেষে গত ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে রায় ঘোষণার জন্য ৬ জানুয়ারি দিন ধার্য করেছিলেন আপিল বিভাগ।

মতামত...