,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

সারাদেশে সতর্ক আওয়ামী লীগ

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়কে কেন্দ্র বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই সতর্ক অবস্থান নিয়েছে আওয়ামী লীগ।

রায়কে কেন্দ্র করে যেকোনো নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সামাল দিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি দলীয়ভাবে সজাগ থাকার অংশ হিসেবে এ অবস্থান নিয়েছে ক্ষমতাসীন দলের নেতা-কর্মীরা।

বৃহস্পতিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ের আশপাশে দলীয় নেতা-কর্মীরা সতর্ক অবস্থান নিয়েছে। কেন্দ্রীয় নেতারাও সকাল থেকেই সভানেত্রীর কার্যালয়ে আসা শুরু করেন। ইতিমধ্যে আওয়ামী লীগের উপপ্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিনসহ অনেকে সভানেত্রীর কার্যালয়ে এসেছেন।

তবে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই রাজধানীর রাস্তায় দাঁড়িয়ে/বসে যেকোনো ধরনের মিছিল-সমাবেশ ও জমায়েত নিষিদ্ধ করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ। এ অবস্থায় পাড়া-মহল্লায় সতর্ক থেকে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা। কেউ নৈরাজ্য সৃষ্টির চেষ্টা করলেই জনতাকে সঙ্গে নিয়ে ‘গণধোলাই’ দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে দলটির পক্ষ থেকে। তবে কোনো ধরনের উসকানি না দিতেও সতর্ক করা হয়েছে।

দলীয় মতে, খালেদা জিয়ার মামলার ইস্যুটি আদালতের, তাই রাজনৈতিক প্রস্তুতি না রাখলেও সারা দেশে সতর্ক রয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। দলের নেতারা জানান, খালেদা জিয়া অপরাধী সাব্যস্ত হলে শাস্তি হবে। নিরপরাধী প্রমাণিত হলে খালাস পাবেন। ফলে এখানে রাজনৈতিক প্রস্তুতি নেওয়ার কিছু নেই। তবে রায়কে কেন্দ্র করে যেকোনো পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে তা মোকাবিলার জন্য দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মী ও সহযোগী সংগঠনের নেতাদের প্রয়োজনীয় দিক-নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে মঙ্গলবার বিকালে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর কার্যালয়ে প্রথমে সম্পাদকমণ্ডলীর সভা এবং পরবর্তীতে সহযোগী সংগঠনের সঙ্গে যৌথ সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

মতামত...