,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

সিলেটে ভারতীয় ভিসা কেন্দ্র হবে- হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা

aপিক্লু চক্রবর্তী, সিলেট প্রতিবেদক,  বিডিনিউজ রিভিউজ ডটকমঃ বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বলেছেন, বাংলাদেশী ভ্রমণকারীদের জন্য ভারতীয় ভিসা আরও সহজতর করা হবে। আগামীতে সিলেটে নতুন করে একটি ভারতীয় ভিসা কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। বাংলাদেশ ও ভারতের সামজিকতা ও সংস্কৃতি প্রায় একই ধরনের। এর মাঝে বাংলাদেশী মনিপুরীদের সংস্কৃতি খুবই সমৃদ্ধ। আগামীতে ভারতের রাজধানী দিল্লীতে আয়োজিত নৃত্য প্রতিযোগিতায় কমলগঞ্জের মণিপুরী নৃত্য শিল্পীদের আমন্ত্রণ জানানো হবে। সিলেট বিভাগে দুই দিনের সফরের অংশ হিসাবে মঙ্গলবার (২৮ জুন) সকাল সাড়ে ১০টায় মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের তেতইগাঁও গ্রামে ভারতীয় অর্থায়নে নির্মিত মণিপুরী কালাচারাল কমপ্লেক্স পরিদর্শন উপলক্ষে তাঁর সম্মানে আয়োজিত আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। অনুষ্ঠান শেষে ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা মণিপুরী কালচারাল কমপ্লেক্সের লাইব্রেরী, আইসিটি সেন্টার, মিউজিয়াম, নারী তাঁতকেন্দ্র, ডরমেটরী পরিদর্শন করেন।

কমলগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রফিকুল আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ভারতের বৈদেশিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (অর্থ) ড. সুমিত জেরাথ, বাংলাদেশের রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শশী কুমার সিংহ, মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল হাসান, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহজালাল, ভারতীয় হাই কমিশনারের ফাষ্ট সেক্রেটারী (অর্থ ও প্রকল্প) গিনা উইখা। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মাহমুদুল হক, মণিপুরী সাংস্কৃতিক পরিষদের সভাপতি চন্দ্রর্কীতি সিংহ, অবসরপ্রাপ্ত ব্যাংক কর্মকর্তা নীল চাঁদ সিংহ প্রমুখ। এ সময় মৌলভীবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) প্রকাশ কান্তি চৌধুরী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) খায়রুল আলম, সহকারি পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোল্লা মোহাম্মদ শাহীন, কমলগঞ্জ থানার ওসি বদরুল হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষ বর্ধণ শ্রিংলা আদমপুর মণিপুরী কালচারাল কমপ্লেক্সে পৌছেন। এসময় চিরাচরিত মণিপুরী মৃদঙ্গ বাজিয়ে নেচে ও ফুলের পাঁপড়ি ছিটিয়ে ভারতীয় হাই কমিশনারসহ অতিথিদের বরণ করেন নেওয়া হয়।

আলোচনা পর্বে বক্তব্যে ভারতীয হাই কমিশনার হর্ষ বর্ধণ শ্রিংলা আরো বলেন, বাংলাদেশ ভারতের খুব কাছের বন্ধু প্রতীম দেশ। দিনে দিনে বাংলাদেশের সাথে সামজিকতা, সংস্কৃতি ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে ভারতের সম্পর্ক আরও বৃদ্ধি পাচ্ছে। বাংলাদেশের সংখ্যালুঘু মণিপুরীদের সংস্কৃতি খুবই সমৃদ্ধ। এজন্য ভারতীয় হাই কমিশন আদমপুর মণিপুরী কালচারাল কমপ্লেক্স নির্মাণ করে দিয়েছে। পর্যায়ক্রমে এ কমপ্লেক্সের আরও উন্নয়ন করা হবে। আজকের সফরের দিল্লী থেকে ভারতীয় বৈদেশিক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (অর্থ) ড: সুমিক জেরাথও এসে বাংলাদেশী মনিপুরী সংস্কৃতি দেখে তিনি মুগ্ধ হয়েছেন। তিনিই মূলত ভারতের বন্ধু দেশের অর্থনৈতিক ও সংস্কৃতির উন্নয়নে তহবিল বরাদ্ধ করে থাকেন। তাই তিনিও তার বক্তেব্য বলেছেন, আগামীতে দিল্লীীতে অনুষ্ঠিত নৃত্য প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের কমলগঞ্জের মণিপুরী নৃত্য শিল্পীদের আমন্ত্রন জানানো হবে। এর কোন ব্যতিক্রম হবে না বলেও হাই কমিশনার বরেন।

বাংলা ও হিন্দি ভাষায় মিশ্রিত বক্তব্যে ও দুই দেশের সামাজিকতা, অথনৈতিক ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নে সহযোগিতার হাত বাড়ানোর কথা বলেন ড: সুমিত জেরাথ। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষ বর্ধণ শ্রিংলা বলেন, ভারেতর ভিসা আরও সহজ করা হবে। এজন্য আগামীতে সিলেট শহরেও নতুন করে একটি ভিসা কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। ভারতের সাথে নেপালের ভিসা মুক্ত যাতায়তের মত বাংলাদেশেও ভারতে চালু হবে কিনা এ প্রশ্নের জবাবে ভারতীয় হাই কমিশনার বলেন, এটি দুই দেশের উচ্চ পর্যায়ের চিন্তা ভাবনার বিষয়। তবে একটি কথা বলা যায়, বাংলাদেশ ও ভারতের সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ট হবে। আগামীতে দ্রুততম সময়ে কুলাউড়া-শাহবাজপুরের সাতে ভারতের রেল যোগাযোগ চালু হবে। গতকাল সোমবার সরেজমিন তারা এ অঞ্চল সফর করেছেন। এখন রেলপথের নতুন করে নক্সার কাজ চলছে বলেও তিনি জানান।

সবশেষে ভারতীয় অতিথিদের সম্মানে দুটি মণিপুরী নৃত্য পরিবেশন করা হয়। বাংলাদেশী মণিপুরি নৃত্য উপভোগ করে ভারতীয় হাই কমিশনার নগদ ১০ হাজার টাকা প্রদান করেন। কমলগঞ্জের মণিপুরীদের তাঁতের তৈরী বস্ত্র সামগ্রী ভারতীয় অতিথিদের উপহার প্রদান করা হয়।

মতামত...