,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

সীতাকুণ্ডে এলজিসহ যুবলীগ কর্মী হত্যার আসামি রিপন গ্রেপ্তার

সীতাকুন্ড প্রতিনিধি, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ সীতাকুণ্ডে দেশীয় তৈরি এলজিসহ যুবলীগ কর্মী হত্যা মামলার আসামি সন্ত্রাসী মোঃ রিপনকে (২৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার বিকালে উপজেলার বারৈয়াঢালা ইউনিয়নের মহালঙ্গা গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়। এছাড়া সোমবার রাত থেকে গতকাল পর্যন্ত বিভিন্ন মামলার ওয়ারেন্ট ভুক্ত আরো ১২ আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করেছে পুলিশ। থানা সূত্রে জানা যায়, বিগত ইউপি নির্বাচনের কয়েকদিন আগে উপজেলার বারৈয়াঢালার ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা শেষে পূর্ব থেকে ওৎপেতে থাকা একদল সন্ত্রাসী ধারালো অস্ত্র-শস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে ঐ ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য রিয়াজ উদ্দিন নয়নকে। ঐ ঘটনায় নয়নের মা নাজমা আক্তার বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করলেও এতদিন কোন আসামি গ্রেপ্তার হয়নি। উল্টো সন্ত্রাসীরা এলাকায় অবস্হান নিয়ে তার নয়নের মা-ভাইকেও হত্যার হুমকি দিয়েছিল বলে তিনি থানায় অভিযোগ করেন। এসব অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ নয়ন হত্যা মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারে নজরদারি শুরু করে। শেষ পর্যন্ত গতকাল (মঙ্গলবার) বিকালে গোপন সূত্রে সন্ত্রাসী রিপনের অবস্হান  জানতে পেরে সীতাকুণ্ড থানার এস.আই সুজয় মুজুমদার ও এস.আই শরীফ অভিযান চালিয়ে নয়ন হত্যা মামলার ৯নং আসামি মোঃ রিপনকে গ্রেপ্তার করেন। এদিকে সন্ত্রাসী রিপন গ্রেপ্তারের পর তার সাঙ্গপাঙ্গরা সন্ধ্যায় এলাকায় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে ব্যাপক মহড়া শুরু করে। পুলিশকে তথ্য দিয়েছে এমন সন্দেহে তাজুল ইসলাম (২৩) নামক এলাকার এক যুবককে লাঠি-সোটা দিয়ে মারধর করে গুরুতর আহত করেছে তার দলবল। এর আগেও রিপন ও তার বাহিনীর সন্ত্রাসীরা ঐ এলাকায় আরো ২ যুবককে কুপিয়ে মারাত্বক জখম করে ফেলে রেখে যায়। তারা দীর্ঘদিন হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে বর্তমানে কিছুটা সুস্হ্য হয়েছে। এসব ঘটনায় এলাকার মানুষ আতংকে ভুগছে। এ নিয়ে যেকোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা দেখা দিয়েছে। এস.আই সুজয় মজুমদার সন্ত্রাসী রিপন গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করে প্রতিবেদককে বলেন, বারৈয়াঢালার যুবলীগ কর্মী নয়ন হত্যা মামলার ৯নং আসামি রিপনের অবস্হান জানতে পেরে মঙ্গলবার বিকালে মহালঙ্গা গ্রামে অভিযান চালিয়ে আমরা তাকে গ্রেপ্তার করে থানায় এনেছি। এসময় তার কাছ থেকে একটি এলজি উদ্ধার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত রিপন বারৈয়াঢালা ইউনিয়নের মহালঙ্গা গ্রামের খায়রুল ইসলাম প্রকাশ বুদনের পুত্র। এলাকায় সে ডাকাতি, ছিনতাইসহ বিভিন্ন ঘটনায়ও জড়িত। তার বিরুদ্ধে থানায় আরো কয়েকটি মামলা আছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। অন্যদিকে থানার অপারেটর নুরে আলম জানান, গতকাল বিভিন্ন মামলার ওয়ারেন্ট ভুক্ত আরো ১২জন আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মতামত...